স্মরণে অভিজিৎ রায়

[youtube https://www.youtube.com/watch?v=jTvXYf8SYhQ&w=560&h=315]

অনেকদিন ধরেই আরিফ বলছিল ওর ইউটিউব অনুষ্ঠানে কথা বলতে। সাধারণত ইন্টারভিউ দিতে বা ব্যক্তিগত বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলতে ভাল লাগেনা – তাই বেশীরভাগ সময়েই না করেই দেই। কিন্তু সেদিন অনেক কথা বলা হয়ে গেল- হড়বড় করে এত কথা বলে ফেললাম! অভির কথা, আমাদের প্রথম পরিচয়ের কথা, ব্লগিং, লেখালিখি, সোশ্যাল মিডিয়া, সেদিন রাতে কী ঘটেছিল – সঅঅঅব …। আরিফকে কৃতিত্ব দিতেই হবে আমার কাছ থেকে এত কথা বের করে নেওয়ার জন্য। জিম থেকে মোটে বাসায় ফিরেছিলাম, দেরি হয়ে গেছিল দেখে ওভাবেই বসে পড়েছিলাম কম্পিউটারের সামনে। ২৬ তারিখ মোটে গেছে, তৃষার সাথে ওই দিনটা কাটিয়ে ফেরত এসেছি – অভির কথা, আক্রমণের কথা বলতে গিয়ে মনে হয় খুব ইমোশানাল এবং উত্তেজিত হয়ে গেছিলাম (:। এত ধরনের বিষয় নিয়ে কথা হচ্ছিল যে ভুলেই গেছিলাম এটা একটা অনুষ্ঠান – এত কিছু নিয়ে কথা বললে একটাই সমস্যা, কোনটা নিয়েই ঠিকমত গভীরে ঢোকা হয়না। ধন্যবাদ আরিফকে।

গবেষক, লেখক এবং ব্লগার। প্রকাশিত বইঃ 'বিবর্তনের পথে ধরে', অবসর প্রকাশনা, ২০০৭।

মন্তব্যসমূহ

  1. Ashim আগস্ট 13, 2018 at 7:25 পূর্বাহ্ন - Reply

    অভিজিৎ রায় অনন্তকাল আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবে…..

  2. Ranojit Kumar মার্চ 9, 2018 at 5:24 অপরাহ্ন - Reply

    মুক্তমনা ব্লগের ডেভেলপারদের নিচের লিংকে দেওয়া দুটো লাল দাগ করা সমস্যাকে সমাধান করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

    https://photos.app.goo.gl/xNL6ZW5TFYCMcEBp1

  3. বিপ্লব রহমান মার্চ 9, 2018 at 11:02 পূর্বাহ্ন - Reply

    ফেসবুকের সূত্র ধরে ইউটিউবে কথোপকথনটি আগেই শুনেছিলাম। বন্যাদির স্পষ্ট উচ্চারণ ও দৃঢ় মানসিক শক্তি সম্মুখে চলার প্রেরণা জোগায়।

    জয়তু অভিজিৎ রায়!

  4. যুক্তি পথিক মার্চ 8, 2018 at 3:25 অপরাহ্ন - Reply

    নিজেকে খানিকটা বদলে ফেললাম। আপনি বারবার মৌলিক কাজের জন্য বলছিলেন।সত্যি দিদি,অভিজিৎ রায়ের কোন লেখা পড়ে আমি এখনও বলতে পারি না যে পড়া হয়ে গেছে।কেননা তখনো মাথায় ঘোরে কিভাবে তিনি লিখলেন?কেন উক্ত কোটেশনটা ব্যবহার করলেন?
    আর এমন লেখা নিঃসন্দেহে লেখার মৌলিকত্বকেই তুলে ধরে।সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যাপারে আপনার অভিমত আমাকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করেছে।বুঝেছি ‘মৌলিক’কাজের গুরুত্ব কতখানি।যার জন্য শ্রম দিতে হয়,ফোকাস করতে হয়।
    দিদি, যখন আপনি বলছিলেন,”জানেন,অভি,তখনও বেঁচে ছিল?”
    এই কথাটি শোনার পর চোখের জল ধরে রাখতে পারি নি।শুধু ভাবছি, তিনি যদি বেঁচে থাকতেন আমরা হয় তো এতো দিনে অন্য রকম হতে পারতাম।
    তবে আপনি খুব পজিটিভলি যেভাবে কাজ করার আহবান করেছেন তা আশা জাগায়।ভাবতে থাকি,অভিজিৎ রায় কিন্তু যে সব দিক ছুঁয়ে গেছেন তাই নিয়ে আমরা অনেকদূর এগোতে পারব।অনেক গবেষনার আছে তাঁর লেখা নিয়ে,তাঁর চিন্তা নিয়ে।যেটা কিনা তাঁর লেখার প্রতিটি বাক্যেই খুঁজে নিতে হবে আমাদের।
    আরিফুর ভাইকেও ধন্যবাদ জানাই,এভাবে আপনার সময়কে আমাদের কাছে আশার আলো করে তোলার জন্য।

মন্তব্য করুন