আজ যে দুটো ডকুমেন্টারির কথা উল্লেখ্য করে আমি লিংক শেয়ার করতে যাচ্ছি সে দুটোই হয়তো আপনাদের কেউ কেউ হয়তো দেখে ফেলেছেন। কারণ প্রথমটি ২ বছর আগে বের হলেও দ্বিতীয়টি বেশ কয়েক বছর আগে তৈরি হয়েছে। তারপরও শেয়ার করছি মুক্ত-মনার সেই সব পাঠকদের কথা ভেবে যারা এখনো এই দুটো চমৎকার শিক্ষনীয় ডকুমেন্টারি দেখার সুযোগ হয় নি। প্রথমটির ডারউইন ও তার বিবর্তন থিওরী এবং দ্বিতীয়টি আফ্রিকা থেকে সারা পৃথিবীতে মানব জাতির মাইগ্রেসনের উপর নিমির্ত। আশা করি মুক্ত-মনাদের ডকুমেন্টারি দুটো ভালো লাগবে।

Charles Darwin and The Tree of Life

২০০৯ সালে চার্লস ডারউইনে ২০০তম জন্ম বাষির্কী ও তাঁর বই ‘অরিজিন অব স্পিসিসের’ প্রকাশনার দেড়শতম বর্ষে বিবিসি এই ডকুমেন্টারিটি তৈরি করে। স্বনামধন্য নেচারালিষ্ট স্যার ডেভিড এটেনবরার যাদুকরী উপস্থাপনায় চালর্স ডারউইনের বিগলে যাত্রা থেকে শুরু করে, গেলাপাগোস দ্বীপে তার আবিস্কার এবং তাঁর থিওরি প্রকাশের পর বিশ্বব্যাপি কি বিরুপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে তা ভেবে ডারউইনের ‘অরিজিন অব স্পিসিসের’ প্রকাশে দেরি করার মতো বিভিন্ন ঘটনা উঠে এসেছে এই ডকুমেন্টারিতে।

কুকুরদের ব্রিডিং পদ্ধতিকে উদাহরণ হিসেবে দেখিয়ে ডকুমেন্টারিটিতে এটেনবরা কিভাবে প্রাকৃতিক নিবার্চনের মাধ্যমে একটা স্পেসিস আরেকটা স্পেসিসে পরিবর্তন হয় তার বণর্ণা খুব সুন্দর ভাবে দিয়েছেন এই ডকুমেন্টারিতে। একই জিনিস উপস্থাপন করেছেন Great Dane cannot ও Chihuahua পাখিদের বিবর্তনের উদাহরণের তুলে ধরে।

এই ডকুমেন্টারির সবচেয়ে আকর্ষনীয় দিক হচ্ছে- ‘‘ ট্রি অব লাইফের’’ এক মন মুগ্ধকর এনিমেশনগত উপস্থাপনা। যেখানে দেখানো হয়েছে, কিভাবে সরল এক কোষী সেলগুলো থেকে ক্রমে জটিল প্রাণের বিবর্তনের মাধ্যমে দীর্ঘ সময়ের পরিক্রমায় বর্তমানের বৈচিত্রপূর্ণ জীব জগতের উদ্ভব হয়েছে। যাদের সময়ের স্বল্পতা পুরো ডকুমেন্টারিটি দেখবার সময় নেই তারা অবশ্যই ‘Charles Darwin And The Tree of Life’ ডকুমেন্টারিটির এই এনিমেটেড অংশটুকু দেখতে ভুলবেন না-

ডকুমেন্টারিটির ইউটিউব লিংক-

Journey of Man: A Genetic Odyssey

‘‘The Journey of Man: A Genetic Odyssey’’ এর লেখক, মানব প্রজাতির ক্রম-অগ্রগতির ইতিহাস নিয়ে গবেষণাকারী সংস্থা জেনোগ্রাফিক প্রজেক্টের পরিচালক স্পেন্সার ওয়েলস তার ডকুমেন্টারিতে মানুষের আফ্রিকা থেকে সারা পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে মাইগ্রেশনের ইতিহাস বণর্ণা করেছেন। স্পেন্সার তার Journey of Man: A Genetic Odyssey
ডকুমেন্টারিতে পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানের মানুষের ডিএনএর ওয়াই ক্রোমজন টেষ্টের মাধ্যমে দেখিয়েছেন সমগ্র পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা মানুষ ৬০,০০০ বছর আগে আফ্রিকায় বসবাসকারী একদল মানুষেরই বংশধর। স্পেন্সার তার ডকুমেন্টারিতে আফ্রিকা থেকে বের হয়ে আমাদের অভিবাসী পূব পুরুষেদের বিভিন্ন দল পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে কিভাবে মাইগ্রেন্ট হয়েছে তার কাল ক্রমিক বর্ণণা তুলে ধরেন।

ডকুমেন্টারিটির লিংকঃ

[47 বার পঠিত]