আমার দুর্ভাগ্য যে গত দুদিন ধরে আমার লেখা নিবন্ধ মোহাম্মদের চরিত্র ফুলের মত পবিত্র, পর্ব-৩ এ করা আমার মন্তব্যের বিপক্ষে বেশ কিছু উত্তপ্ত প্রতি মন্তব্য প্রকাশিত হলেও তার উত্তর দিতে পারিনি। এর জন্য দায়ী আমি নই, দায়ী আমার ল্যাপটপ। কোন এক অজানা কারনে নিবন্ধটি পুরো একসাথে ডাউনলোড হয় না, যার ফলে উত্তর দিতে পারিনি। যাহোক, বিশেষ করে মুক্তমনা সাইটের বিজ্ঞ মডারেটরদের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে আমার এ লেখা পোষ্ট আকারে প্রকাশ করার প্রয়াস।কারন তারা অতিশয় দয়াপরবশ হয়ে আমাকে সতর্ক করে দিয়েছেন আর তারই প্রেক্ষিতে অনেকটা আত্মপক্ষ সমর্থনের উদ্দেশ্যে আমাকে এ লেখাটি লিখতে হচ্ছে।যেহেতু আমার নিবন্ধে প্রকাশিত মন্তব্যের কোন উত্তর দিতে পারছিও না তাই পোষ্ট আকারে প্রকাশ না করে আমার কোন উপায়ও নেই।যাহোক, আসলে আমি কাউকে কোন গালিগালাজ করিনি বা তা করতেও পারি না। একটা মন্তব্যে বলেছিলাম কোরানে আল্লাহ তথা মোহাম্মদ অমুসলিমদের উদ্দেশ্যে গালাগালি করেছে, যেমন বলেছে- কাফের মুশরিক, ইহুদি এরা হলো – কুকুরের মত, নীচ প্রানী , বানর ইত্যাদি।এ প্রসঙ্গে কোরান থেকে কয়েকটা আয়াতও উল্লেখ করেছিলাম। তখন Aminul Haque নামের একজন সম্মানিত মুমিন বান্দা বলেছিলেন কোরানের সেই কথা গুলো হলো রূপক। আর এ ধরনের রূপক বোঝার বুদ্ধি নাকি আমার নেই।অর্থাৎ আল্লাহ প্রকৃতপক্ষে কাউকে কুকুর, নীচ প্রানী বা বানর বলে নি। আর তাই তা গালাগালির পর্যায়ে পড়ে না। তিনি পরে আরও অনেক মন্তব্যে প্রকাশ করেন আমি নাকি কোরান হাদিস পড়ে কিছুই বুঝি নি ও নিজের মনগড়া বর্ননা দিয়ে মোহাম্মদের চরিত্র হনন করেছি। অর্থাৎ আমার সত্য ভাষণ তার কাছে ভাল লাগেনি, ও অন্যান্য মুমিন বান্দার মত তিনিও আমাকে নানা প্রকারে বুঝাতে চেষ্টা করেন আমি বাস্তবে একটা নির্বোধ ছাড়া আর কিছুই নই। যাহোক এতে আমি মা্ইন্ড করিনি।

এর পরেই আমার মাথায় একটু দুষ্ট বুদ্ধি এল এবং ভাবলাম ঠিক এ শব্দগুলিই Aminul Haque এর উদ্দেশ্যে লিখব এবং দেখব উনি কি প্রতিক্রিয়া করেন। এরই ফলশ্রুতিতে আমি লিখি- Aminul Haque সাহেব অনেকটা কুকুরের মত ঘেউ ঘেউ করেন, বা বাদরের মত আচরন করেন। অনেকটা আমি ফাদ পাতার একটা কাজ করলাম।ছোটবেলা গ্রামে থাকতে ইঁদুর ধরার ফাঁদ পাততাম। সেটা ছিল একটা ছোট বাক্সের মত, ভিতরে একটি হুকে খাবার ঝুলিয়ে রাখা হতো, ইঁদুর ভিতরে ঢুকে খাবার খেতে গেলেই বাক্সে আটকা পড়ত। Aminul Haque সাহেবকে হাতে নাতে ধরার জন্য অনেকটা একায়দাতেই ফাঁদ পাতার পরিকল্পনা থেকেই আগের সেই উক্তি গুলি ইচ্ছাকৃত ভাবে করা। কিন্তু বেরসিক মডারেটর মহোদয় ব্যপারটা , আমার ধারনা, বুঝেও অনেকটা না বোঝার ভান করে তা মুছে দেন, হয়তবা মুক্তমনা সাইটের পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে। কারন পরিবেশ দুষণের হাত থেকে সাইটটিকে বাচানোর দায় দায়িত্ব তো পরিশেষে তাদেরই ওপর বর্তায়। তাই এতে আমি মনে কিছু না করে বরং দারুন পুলক বোধ করেছি। যাহোক, এরই মধ্যে আমার যে উদ্দেশ্য ছিল তা ঠিকই পূরন হয়ে গেছে। Aminul Haque সাহেব তার সম্পর্কে উক্ত মন্তব্য দেখে যে সব বক্তব্য তিনি দিয়েছেন তা সকল পাঠকই এতক্ষনে দেখে ফেলেছেন।আর সবাই এটাও এতক্ষনে টের পেয়ে গেছেন যে তিনি আমার করা মন্তব্যে প্রচন্ড রকম ভাবে অপমানিত বোধ করেছেন ও উত্তেজিত হয়ে আছেন।অর্থাৎ তিনি ইঁদুরের মত ফাদেঁ আটকা পড়ে গেছেন। দু:খিত, আবারও ইঁদুরের মত একটা ইতর প্রানীর নাম উল্লেথ করতে হলো। উল্লেখ্য- আমি Aminul Haque সাহেবকে সরাসরি কুকুর বা বাদর বলিনি, বলেছি- কুকুর বা বানরের মত।যা কোরানের ভাষার অনুকরনে ও Aminul Haque সাহেবের ভাষ্যমতে রূপক। এখন আমার প্রশ্ন হলো- যে বক্তব্য কোরানে থাকলে তা হয় রূপক , হুবহু একই রকম ভাবে সেই একই কথা Aminul Haque সাহেবকে আমি বললে তা গালাগালি হয় কেমনে ? আমি বিষয়টি বিচারের ভার সাধারন পাঠকদের ওপরই ছেড়ে দিলাম।

পরিশেষে, বিজ্ঞ মডারেটর বৃন্দ, আমি ভীষণভাবে দু:খিত ওরকম একটা মন্তব্য করার জন্য কিন্তু Aminul Haque সাহেবকে হাতে নাতে ধরার লোভ সামলাতে না পেরেই আমি অমনটি করেছি। আশা করি আমার এ অপরাধ আপনারা নিজ গুণে ক্ষমা করে দেবেন।

যে বাহাস নিয়ে এ নতুন নিবন্ধের অবতারনা তা দেখতে চাইলে ক্লিক করুন-
মোহাম্মদের চরিত্র ফুলের মত পরিত্র,পর্ব-৩

[150 বার পঠিত]