ব্রেকিং নিউজ : : অবশেষে মুক্তি পেলেন সু চি…

suu-kyi

সামরিক জান্তা শাসিত মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চি অবশেষে মুক্তি পেলেন। শনিবার বিকেলে মুক্তিপ্রাপ্তির খবর জেনে হাজার হাজার মানুষ ইয়াংগুনে তার বাসভবনের সামনে জড়ো হয়।

সু চি যে বাড়িতে গত ১৫ বছর ধরে গৃহবন্দি রয়েছেন, তার বাইরে বিপুল সংখ্যক পুলিশের তৎপরতা দেখা গেছে। পাশাপাশি মুক্তি পাওয়ার পর সু চি’কে বরণ করে নেওয়ার জন্য তার রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি’র (এনএলডি) কেন্দ্রীয় কার্যালয়েও প্রচুর নেতা-কর্মী জমায়েত হয়েছেন।

[লিংক]

এর আগে গত শুক্রবার এএফপি’র খবরে বলা হয়, নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন, কর্তৃপ সু চি’কে মুক্তি দেবে, তা নিশ্চিত। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অপর এক কর্মকর্তা বলেন, ‘পরিকল্পনা অনুযায়ী সু চি অবশ্যই মুক্তি পাবেন। আমরা শুধু তার মুক্তির সময়টির জন্য অপো করছি।’

১৯৯০ সালে এনএলডি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়। কিন্তু সামরিক জান্তার সরকার এনডিএল প্রধান সু চি’র হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর না করে তাকে গৃহবন্দি করে। শান্তিতে নোবেলজয়ী ৬৫ বছর বয়সী মিয়ানমারের এই নেত্রী গত ২১ বছরের মধ্যে ১৫ বছরই গৃহবন্দি রয়েছেন। গত বছর মিয়ানমারের এই নেত্রীর আটকাদেশের মেয়াদ শেষ হয়। কিন্তু এক মার্কিন নাগরিক সু চি’র বাস ভবন সংলগ্ন লেক সাঁতরে পার হয়ে তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে নিরাপত্তা ভঙ্গজনিত অজুহাতে গত বছর অগাস্টে তাকে আবারো ১৮ মাসের জন্য গৃহবন্দি করে রাখার আদেশ দেয় সে দেশের আদালত।

গত বৃহস্পতিবার সু চি’র আটকাদেশের বিরুদ্ধে একটি আপিল খারিজ করে দেয় দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। তবে ওই আটকাদেশের মেয়াদ এরই মধ্যে প্রায় শেষ হয়ে গেছে। শনিবার (১৩ নভেম্বর) এই আটকাদেশের মেয়াদ পূর্ণ হচ্ছে।

সু চির আপিল খারিজ হয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে তার আইনজীবী নায়ান উইন বলেছেন, এই (আদালতের) সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ ভুল। এই রায়ে আমাদের দেশের বিচারব্যবস্থার প্রকৃত চিত্র প্রতিফলিত হয়েছে। তিনি বলেন, তারা এখনও সু চি’র মুক্তির নিশ্চয়তা পাননি। কিন্তু আইন অনুযায়ী সরকার তার শাস্তির মেয়াদ আর বাড়াতে পারে না।…

পাহাড়, ঘাস, ফুল, নদী খুব পছন্দ। লিখতে ও পড়তে ভালবাসি। পেশায় সাংবাদিক। * কপিরাইট (C) : লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত।

মন্তব্যসমূহ

  1. সংশপ্তক নভেম্বর 20, 2010 at 3:14 অপরাহ্ন - Reply

    @বিপ্লব রহমান ,

    আজকের খবর সত্যি হলে , অং সান সু চি শেষ পর্যন্ত শেখ হাসিনার ১/১১ পরবর্তি রাজনৈতিক দর্শনই গ্রহন করলেন। আমি এমন আশংকাই এতদিন করছিলাম। নীচে দেখুন:

    সু চি বলেন, “সামরিক বাহিনীর সঙ্গে সহযোগিতা করার বিষয়টি আমরা নাকচ করে দেইনি।”

    মিয়ানমারের জান্তা সরকারের সঙ্গে কাজ করার ইচ্ছের কথা জানিয়েছেন দেশটির গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেত্রী অং সান সু চি।

    সেইসঙ্গে জান্তাদের নতুন রাজনৈতিক পদ্ধতি জনগণকে যদি সহায়তা করে তবে তাতে সমর্থন জানানোর কথাও জানিয়েছেন তিনি। বিস্তারিত

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 15, 2010 at 8:51 অপরাহ্ন - Reply

      জয় মানবতার নেত্রীর জয়!

      [img]httpv://www.youtube.com/watch?v=z2005loNRYY[/img]

  2. জয়েন্টু নভেম্বর 14, 2010 at 7:42 পূর্বাহ্ন - Reply

    মানুষ স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে -আর স্বপ্নের মধ্যে দিয়ে বেচেঁ থাকে। স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে গিয়ে অনেককে আত্মজীবনের মৃত্যু অবধারিত দেখে ও থেমে থাকেন নি, বরং বিশ্বের মানচিত্রে নতুনত্ত্বর ইতিহাস রচনা করে গেছেন। হয়ত দেখে যেতে পারেন নি উনাদের স্বপ্নের বাস্তবায়ন, কিন্তু বৈপ্লবিক মানবতাবাদী জনগোষ্ঠীর সম্প্রদায় আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে বাস্তবায়ন করে গেছেন, ইতিহাস তাই বলে। সু চির জন্য আমার মন সবসময় উদাস থাকে -উনাকে চিন্তা করতে গিয়ে মাকে মনে পড়ে যায়। এক মাকে খুজিঁ -কতো না কষ্ট হচ্ছে সু চির (?) শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি -উনার মুক্তির জন্য নীরব পদযাত্রায় ও অংশ নিয়েছিলাম। আমি কি খুশি না হয়ে পারি -যখন উনার মুক্তির খবর শুনি। বিপ্লব দাদাকে ধন্যবাদ সকাল-সকাল ভালো এক খবর দেয়ার জন্য। :rose2: :rose2: :rose2: সু চির জয় হোক মানবতার জন্য। বাংলাদেশের মতো যেনো না ঘটে। অবশ্যই মিলিটারি জান্তাদের বিশ্বাস করা যায় না, কখন আবার কি করে বসে…?

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 14, 2010 at 7:51 অপরাহ্ন - Reply

      @জয়েন্টু,

      সু চির জয় হোক মানবতার জন্য। বাংলাদেশের মতো যেনো না ঘটে। অবশ্যই মিলিটারি জান্তাদের বিশ্বাস করা যায় না, কখন আবার কি করে বসে…?

      খুব ভালো বলেছেন।

      পাহাড়ের ওপর নতুন আপনার নতুন লেখা পড়ার প্রত্যাশা করছি। :rose:

  3. স্বাধীন নভেম্বর 14, 2010 at 7:06 পূর্বাহ্ন - Reply

    দারুণ একটি খবর। গণতন্ত্রের জয় হোক। :yes:

  4. বন্যা আহমেদ নভেম্বর 14, 2010 at 12:18 পূর্বাহ্ন - Reply

    @বিপ্লব, সু চির মুক্তি সারা পৃথিবীর মানুষের জন্যই একটা বড়ই সুখবর। এটা একটা প্রয়োজনীয় স্টেপ তা তে সন্দেহ নেই তবে তার মুক্তি হলেই যে মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পথ সুগম হবে সেটা নিয়ে কোন রকম আশা করতেও কেন যেন ভয় লাগে। আমাদের দেশেও তো সামরিক শাসন থেকে বের হয়ে আসার জন্য কত সংগ্রাম আন্দোলন হল, কত মানুষ প্রাণ দিল। তারপর সেই সামরিক শাসনবিরোধী নেতা-নেত্রীরা ক্ষমতায় আসার পর কি হল? তথাকথিত ‘গণতন্ত্র’ও প্রতিষ্ঠিত হল, তর্কের খাতিরে তর্ক করাই যায় যে, সামরিক শাসনেরর চেয়ে হাসিনা খালেদার গণতন্ত্রও ভালো। আসলে গুণগত পরিবর্তন কি হল সেভাবে কোন?

    আমি কোনভাবেই এখানে সামরিক শাসনকে জাস্টিফাই করার চেষ্টা করছি না। বরং চরম হতাশা থেকেই বলছি যে, আমরা বারবারই দেখেছি, কোন নেতার মুক্তি মানেই আসলে সিস্টেমের পরিবর্তন নয়, বরং এরা বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই নতুন নামে নতুন মোড়কে সেই পুরোনো সিস্টেমেরই প্রতিনিধিত্ব করে। সু চির মুক্তিতে খুব বেশী আনন্দিত হতে না পারার জন্য দুঃখিত, আমার অবস্থা মনে হয় ঘর পোড়া গরুর মতই……

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 14, 2010 at 5:17 অপরাহ্ন - Reply

      @বন্যা আহমেদ,

      সু চি’র মুক্তি সারা পৃথিবীর মানুষের জন্যই একটা বড়ই সুখবর। এটা একটা প্রয়োজনীয় স্টেপ তা তে সন্দেহ নেই তবে তার মুক্তি হলেই যে মিয়ানমারে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পথ সুগম হবে সেটা নিয়ে কোন রকম আশা করতেও কেন যেন ভয় লাগে। আমাদের দেশেও তো সামরিক শাসন থেকে বের হয়ে আসার জন্য কত সংগ্রাম আন্দোলন হল, কত মানুষ প্রাণ দিল। তারপর সেই সামরিক শাসনবিরোধী নেতা-নেত্রীরা ক্ষমতায় আসার পর কি হল? তথাকথিত ‘গণতন্ত্র’ও প্রতিষ্ঠিত হল, তর্কের খাতিরে তর্ক করাই যায় যে, সামরিক শাসনেরর চেয়ে হাসিনা খালেদার গণতন্ত্রও ভালো। আসলে গুণগত পরিবর্তন কি হল সেভাবে কোন?

      এ ক ম ত।

      মিয়ানমারের রাজনীতি নিয়ে সহ ব্লগারদের কাছে বিশ্লেষণমূলক লেখা আশা করছি। বিপ্লব পাল হয়তো এ বিষয়ে এগিয়ে আসতে পারেন। 🙂

  5. বিপ্লব রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 9:39 অপরাহ্ন - Reply

    আপডেট:

    রাশ ভিডিও ক্লিপিংসহ বার্তা সংস্থা এপি’র সংবাদ:

    [img]httpv://www.youtube.com/watch?v=QtgiV2rgFOA[/img]

  6. লীনা রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 9:21 অপরাহ্ন - Reply

    খুব খুশি লাগছিল পত্রিকায় সু চির মুক্তি নিয়ে খবর পড়তে যদিও আশংকায় ছিলাম আদৌ মুক্তি পাবেন নাকি নির্বিঘ্নে। ধন্যবাদ লেখককে খবরটি জানানোর জন্য। এখন সু চি সবসময়ের জন্য বাইরে থাকতে পারবে নাকি আবার খাঁচায় ভরবে এটা চিন্তার বিষয়। আর গণতন্ত্রকে আনতে মায়ানমারকে আর কতদিন অপেক্ষা করতে হবে কে জানে? ভালোর জন্য আশা করে বসে থাকা ছাড়া আর কিইবা করার আছে?

  7. আল্লাচালাইনা নভেম্বর 13, 2010 at 9:12 অপরাহ্ন - Reply

    খবরটা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। গতপরশু বিবিসিতে বার্মা নিয়ে একটা প্রামান্যচিত্র দেখিয়েছিলো ওটা দেখেছিলাম, আজকেই এলো সুচির মুক্তির সংবাদ, বেশ ভালোভাবে কানেক্ট করতে পারছি ফলে খবরটির সাথে। তবে কতোটা আশাবাদী হওয়া যায় নিশ্চিত নই এখনও। যেই জান্তা ক্ষমতা দখল করে জেকে বসে সেটাকে আদৌ খসানো যাবে কিনা, বা কতোটি মানুষ পড়তে হবে সেটিকে খসাতে হলে এটা ভেবে এখনও শঙ্কিত। বার্মার জান্তাটি তার মিত্র নর্থ কোরিয়ার জান্তার মতোই হিংস্র। আরেক মিত্র আছে সাথে চীন, এদের প্রভাব বলয়ে যেই কটি দেশই আছে যারা কিনা ভালো হয়ে যেতে চায়, তাদের সবাইকে পায়ে শেকল পড়িয়ে রেখেছে এই দেশের টোটালেটিরিয়ান ও অগনতান্ত্রিক কর্তৃপক্ষটি। তারপরও আশা করি বার্মার মানুষ প্রাণপনে লড়ে যাওয়ার প্রেরণা পাক গনতন্ত্রের মুক্তির জন্য :yes: ।

  8. বিপ্লব রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 9:12 অপরাহ্ন - Reply

    আপডেট:

    সু চি’র মুক্তির পর বিবিসি’র সদ্য প্রকাশিত ভিডিও ক্লিপিং।

    জয় গণতন্ত্রের! জয় বিশ্ব মানবতার! :rose:

  9. গীতা দাস নভেম্বর 13, 2010 at 8:39 অপরাহ্ন - Reply

    বিপ্লব,
    মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী অং সান সু চি র জীবনযাপন ( স্বামী পুত্র সহ) সম্বন্ধে আপনার কাছ থেকে জানার আগ্রহ প্রকাশ করছি। বিশেষ করে গৃহবন্দী হবার পর তার স্বামীর ভূমিকা নিয়ে। সু চির মুক্তির খবর নিয়ে তাৎক্ষণিক লেখাটির জন্য ধন্যবাদ।

    • ইরতিশাদ নভেম্বর 13, 2010 at 8:49 অপরাহ্ন - Reply

      @গীতা দাস,
      অমর্ত্য সেনের এই সাম্প্রতিক লেখাটা পড়ে দেখতে পারেন। শেষের দিকে সু চির স্বামী মাইকেল এরিস-এর উল্লেখ রয়েছে।

      http://www.outlookindia.com/article.aspx?267765

      বিপ্লব রহমান, মুক্তমনার পাতায় সুখবরটা দেয়ার জন্য ধন্যবাদ।

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 9:01 অপরাহ্ন - Reply

      @গীতা দি,

      আপনার আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ। ইউকির এই লেখাটি বেশ ভালো। আর ইরতিশাদ-এর দেওয়া মূল্যবান লেখাটির লিংক তো আছেই।

      @ ইরতিশাদ,

      লিংকটির জন্য আপনাকে বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা জানাই।

  10. আফরোজা আলম নভেম্বর 13, 2010 at 8:20 অপরাহ্ন - Reply

    অবশেষে জান্তার কবল থেকে রক্ষা পেলেন সু চি।অবিশাস্য ব্যাপার।টিভি তে যখন দেখছিলাম বিশ্বাস হচ্ছিলনা সত্যি বলতে কি। এমন বর্বরদের হাত থেকে রক্ষা পেলেন ঠিক কিন্তু তার জীবনের অনেকটা বছর কেটে গেল এই কারাগারের প্রকষ্ঠে। ভালো লাগল ব্রেকিং খবর পড়ে।

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 8:44 অপরাহ্ন - Reply

      @আফরোজা আলম,

      আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

      সু চি’র মুক্তির বিষয়ে আল জাজিরার বিশ্লেষণী প্রতিবেদন দেখুন:

      [img]httpv://www.youtube.com/watch?v=PuN4u_DtAvo&feature=player_embedded[/img]

  11. রৌরব নভেম্বর 13, 2010 at 8:17 অপরাহ্ন - Reply

    :yes: :yes: :yes:

  12. আদিল মাহমুদ নভেম্বর 13, 2010 at 7:49 অপরাহ্ন - Reply

    ভাল খবর!

    এই খবরের জোরেই কিনা জানি না, আপনি তো মনে হয় রাতারাতি জোয়ান হয়ে গেছেন। এক রাতেই মনে হয় ১০ বছর কমে গেছে।

  13. মাহবুব সাঈদ মামুন নভেম্বর 13, 2010 at 7:39 অপরাহ্ন - Reply

    গনতন্ত্র মুক্তি পাক
    স্বৈরাচার নিপাত যাক ,,,,,,,,,,,,,,,,,

    অং সং সুখি পৃথিবীর আরেক শোষিত,নিপীড়িত মানুষের আইকন যেমন ছিলেন নেলসন ম্যান্ডেলা।

    অং সং সুখির মুক্তির দিনে আজ তাকে কোটি কোটি লাল ফুলেল শুভেচ্ছা। :rose2: :rose2: :rose2: :rose2: :rose2:

    বিপ্লব রহমানকে খবরটি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

  14. মিথুন নভেম্বর 13, 2010 at 6:47 অপরাহ্ন - Reply

    আশাবাদী হওয়া যাচ্ছেনা। দুইদিন পরেই আবার বন্দী করবে

    • বিপ্লব রহমান নভেম্বর 13, 2010 at 8:38 অপরাহ্ন - Reply

      @মিথুন,

      অস্বাভাবিক কিছু নয়। এটি শর্ত সাপেক্ষ মুক্তি কি না — তা এখনো পরিস্কার নয়।

      রয়টার্স একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে:

      ২০ বছর পর গত ৭ নভেম্বর মিয়ানমারে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সেনাবাহিনী সমর্থিত একটি দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছ।

      অস্বচ্ছ ও পক্ষপাতমূলক বলে সে নির্বাচন প্রত্যাখান করেছে পশ্চিমা বিশ্ব।

      বিশ্লেষকরা মনে করছেন, আন্তর্জাতিক স�প্রদায়ের কাছে নির্বাচনের ফলাফলকে বৈধ করতে এখন সু চিকে মুক্তি দিচ্ছে জান্তা সরকার।

      [লিংক]

    • ফরিদ আহমেদ নভেম্বর 13, 2010 at 10:01 অপরাহ্ন - Reply

      @মিথুন,

      আপনার আশংকাটা অমূলক নয়। এই নিয়ে তিনবার ‘মুক্ত’ হলেন তিনি। যে ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ করে তাঁকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে, তাতে আসলে তিনি মুক্ত কি না সে বিষয়ে সন্দেহ আছে। ইকোনোমিস্ট তাঁর এই মুক্তিকে ছোট কারাগার থেকে বৃহৎ কারাগারে বন্দিত্ব হিসাবে বর্ণনা করেছে।

      http://www.economist.com/blogs/banyan/2010/11/aung_san_suu_kyis_release

মন্তব্য করুন