পাগলা চাচার দোয়া

By |2010-10-14T22:56:50+00:00অক্টোবর 13, 2010|Categories: ব্লগাড্ডা|7 Comments

পাগলা চাচার দোয়া

পাগলা “মেঘ উড়িয়ে দিলাম” বলল এক পাগল। আসলে সে সত্যিকারের পাগল কিনা জানা যায়নি। উত্তর আকাশে আলকাতরার মতো কালো মেঘ সমস্ত উত্তর পশ্চিম আকাশ জুড়ে ছেয়ে গেছে। দেখলেই মনের মধ্যে ভয় হয়। যে উত্তর আকাশে তাকাচ্ছে, সেই আঁতকে উঠছে। কেউ কেউ বলছে, এমন ঢল মারবে সমস্ত দেশ ডুবায়ে মারবে। কেউ কেউ বলছে, মেঘের ভাব দেখেছো, সারা আকাশ জুড়ে ঝড় হবে। মানে সাইক্লোন হতে পারে। দুপুরে রেডিওর খবরে বলল, কোন কোন জায়গায় বোলে ঘূর্ণিঝড় হয়ে বহু বাড়ি ঘর ধুলিস্যাৎ হয়ে গেছে। বড় বড় গাছ পালা সব উপড়ে গেছে। লোকজন মারা গেছে। এখন মেঘের ভাব দেখে মনে হচ্ছে, আজ বুঝি আর নিস্তার নাই। আরেকজন বলল, ভাইরে কি আর বলবো- তোরা বলাবলি করছিস, আমার তো মুখে বাক্য সরছে না। বাড়ি ঘরের যা দশা। আজ পাঁচ ছয় বৎসর ঘরে খুটি দেইনি। দেব কি দিয়ে, একটা বাঁশের দাম ৮০ টাকা। চাল কেনবো নাকি বাঁশ কেনবো। কুশুরের পাতা দিয়ে ঘর ছাইয়েছিলাম, সেও তো প্রায় ৪ বৎসর হোল। সব পচে গেছে। ঢল মারলে চালে পড়ার আগেই মেঝেতে পড়ে। পোলার মায়ে তো এ নিয়ে রোজ ঝগড়া করে। ছেলেপুলে নিয়ে বাস করা কি যে কঠিন হয়েছে বলব কি? সারা দিন রিক্সা ঠেলে যা পাই তার তো ১৭ টাকা জমা দিতে হয়। যা বাঁচে চাল কিনতে সব শেষ। তরকারীর মুখ তো কোনদিন দেখি না। ঐ কলমীর শাক কচুর শাক, তাও ছোট মাইয়াডা পই পই করে সারা মাঠ ঘুরে ঐ সব নিয়ে আসে। কি যে করবো চাচা। চাচা আমার জন্য দোয়া করেন। মেঘ যেন আর না আসে।

শুনে পাগলা চাচা আকাশের দিকে মুখ তুলে চীৎকার বলল, “ও মেঘ দোহাই দোহাই দোহাই তোর নবীর দোহাই, তোর নবীর দোহাই, যে নবীর দোহাই দিয়ে আদমের পাপমুক্তি হয়েছিল। সেই নবীর দোহাই। ও মেঘ দুনিয়ার বুকে পানি হয়ে নামিস না। ডান বা দিয়া চলে যা। দেখছিস না গরীব দুঃখী মানুষেরা তোর কালো চেহারা দেখে আতংকে কাঁপছে। ওদের মুখের দিকে ওদের দুঃখী মুখের দিকে তাকিয়ে আর নামিস না। নেমে কি হবে তোর। নামলে তোরই মান ইজ্জত চলে যাবে, কত গু গবর মুত পচা সব ধুইয়ে নিয়ে তোর পানি হবে অপবিত্র। তুই তো পবিত্র পানি হয়েই নামবি এই অপবিত্র দুনিয়ায়। তোর নামার কাম নাই। কয়েক দিন আগে নেমে যে সর্বনাশটা করেছিস, পাকা গম খেসারী মশুর ছোলা সব পচাইয়া দিছিস। তাও তোর সাধ মেটে নাই। আর নামিস না। নবীর দোহাই। যদি মান্য না করিস তোর….।

About the Author:

বাংলাদেশ নিবাসী মুক্তমনা সদস্য। নিজে মুক্তবুদ্ধির চর্চ্চা করা ও অন্যকে এ বিষয়ে জানানো।

মন্তব্যসমূহ

  1. ফরিদ আহমেদ অক্টোবর 14, 2010 at 8:57 পূর্বাহ্ন - Reply

    অত্যন্ত দুর্বল এবং অর্থহীন একটা লেখা। এই রকম সারবস্তুবিহীন গদ্য এবং পদ্য মুক্তমনার প্রথম পাতায় নিয়মিত আসলে, মুক্তমনার মান নিয়েই একসময় মানুষের মনে সন্দেহ জেগে যাবে বলে আশংকা করছি।

    • মাহফুজ অক্টোবর 14, 2010 at 11:28 অপরাহ্ন - Reply

      @ফরিদ আহমেদ,

      হবে না, কিচ্ছু হবে না আমার দ্বারা। ছড়া, কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ কোনকিছুই না। আজ থেকে লেখালেখির ইতি ঘটালাম। আর আপনার কথাকে দাম দিয়ে প্রথম পাতা থেকে সরিয়ে দিলাম। খুশি তো?

      মুক্তমনার মান সম্মান চলে যাক, সেটা আমিও চাই না। আশা করি এবার আশংকামুক্ত হবেন।

      • ফরিদ আহমেদ অক্টোবর 14, 2010 at 11:44 অপরাহ্ন - Reply

        @মাহফুজ,

        লেখালেখির ইতি করতে বলি নাই আপনাকে আমি। খামোখাই আবেগপ্রবন হচ্ছেন। শুধু একটু খেয়াল রাখবেন, যে লেখাটা মুক্তমনার প্রথম পাতায় দিচ্ছেন তা মুক্তমনা যে মান বজায় রেখে চলে সেটির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ কি না।

        নিজের লেখার সবচেয়ে বড় সমালোচক নিজেকেই হতে হয়।

        • মাহফুজ অক্টোবর 15, 2010 at 12:11 পূর্বাহ্ন - Reply

          @ফরিদ আহমেদ,
          সত্যি কথা বলতে কি, আমার আসল কাজ জমিতে আবাদ করা। পুকুরে মাছ চাষ করা। এতদিন এগুলোর পিছনেই সময় ব্যয় করেছি। মাঝে হঠাৎ মাথায় কোন পোকা ঢুকলো, যে লেখালেখির দিকে একটু হাত দিলাম। কিন্তু এ কম্মটি যে আমার নয় তা আস্তে আস্তে বুঝতে শিখেছি। এ পথে সফলতার আশা কখনই করি না, শুধু আনন্দ পাবার জন্যই একটু একটু লিখতে শুরু করেছিলাম। কিন্তু নিজে আনন্দ পেলে তো হবে না, অন্যরা যদি না পাই তাহলে তো পোষ্ট দিয়ে লাভ নেই। যাহোক, আগামীকাল গ্রামে চলে যাচ্ছি। অন্তত দু মাস নেট থেকে বিচ্ছিন্ন থাকবো। এই দুমাসে এমনিতেই ইতি ঘটে যাবে। তবে মাঝে মাঝে শহরে এসে মুক্তমনায় ঢুকে নতুন নতুন পোষ্ট করা লেখা পড়ে যাব।

          ভালো থাকবেন। গুড বাই।

  2. আফরোজা আলম অক্টোবর 13, 2010 at 4:27 অপরাহ্ন - Reply

    বাহ দারুণ তো!

  3. রিমন অক্টোবর 13, 2010 at 11:44 পূর্বাহ্ন - Reply

    কিছুই তো বুঝলাম না, শুরুর আগেই শেষ করে দিলেনে?
    বাউর টা আগে হোক তারপর তার সাথে আর কিছু মাল-মসলা মিসিয়ে যদি…………………………………………………………………………………………………………………………………………………… :rose2: :lotpot:

  4. রিমন অক্টোবর 13, 2010 at 11:38 পূর্বাহ্ন - Reply

    কিছুই তো বুঝলাম না, শুরুর আগেই শেষ করে দিলেনে?
    বাউর টা আগে হোক তারপর তার সাথে আর কিছু মাল-মসলা মিসিয়ে যদি……………………………………………………………………………………………………………………………………………………

মন্তব্য করুন