তিরিশ লক্ষ শহীদ, বাহুল্য নাকি বাস্তবতাঃ নির্যাতিত নারীর সংখ্যা হতে পারে দশ লক্ষ কিংবা তার চেয়েও বেশী

প্রথম পর্ব আন্তর্জাতিক গনমাধ্যমে একাত্তর জুড়েই পাক বাহিনী কর্তৃক ধর্ষণের ঘটনা প্রচারিত হয়েছে, এর মধ্যে নির্বাচিত কয়েকটি উল্লেখ করছি। “রাজাকাররা তাদের কর্মকাণ্ড এখন হত্যা ও চাঁদাবাজিতেই আটকে রাখেনি, এখন তারা বেশ্যালয়ও খুলেছে। চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে তারা একটি শিবির খুলেছে যেখানে অল্পবয়সী সুন্দরী মেয়েদের আটকে রাখা হয়েছে, রাতে পাকবাহিনীর অফিসারদের সরবরাহ করা হয় তাদের। এছাড়াও প্রতিদিনই অনেক [...]

তিরিশ লক্ষ শহীদ, বাহুল্য নাকি বাস্তবতাঃ যুদ্ধকালীন নারী নির্যাতন; সূচনা পর্ব

প্রারম্ভিকাঃ প্রথমেই একটা বিষয়ে আলোকপাত করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি, আর সেটা হচ্ছে ‘মুক্তিযুদ্ধে বড় পরিসরে ধর্ষণ হয়েছে’ এই উক্তিটি কি সর্বমহলে সমান গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে কি না, না পেয়ে থাকলে কেন পায়নি। এর বিপরীতে কি কি বক্তব্য এসেছে, কেন এসেছে এবং সেইসব বক্তব্যের গ্রহণযোগ্যতাই বা কতটুকু। যুদ্ধ মাত্রই ধর্ষণ, সম্ভবত পৃথিবীতে বড় পরিসরে ঘটে যাওয়া এমন [...]

খুব তো সম-অধিকারের কথা বলে, তাহলে আবার সংরক্ষিত আসন চান কেন…

প্রতিদিনের মতই ভিড় ঠেলে এগিয়ে যেতেই মেয়েটাকে বাসে উঠতে দেওয়া হলো না। কন্ডাক্টরের হাঁক, ‘মহিলা তুলিস না। বাসে মহিলা সিট নাই।’ এটা ঢাকা শহরে থাকা কর্মজীবী নারী কিংবা শিক্ষার্থীদের জীবনে প্রতিদিনের ঘটনা, যাঁরা নিয়মিত বাসে যাতায়াত করেন। সারা দিন ক্লাস-অফিস শেষে ক্লান্ত শরীরে দাঁড়িয়ে থাকতে হয় অসহায়ের মতো। একটা বাসের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা তাদের; [...]

“এক হাতে তালি বাজে না, ধর্ষণের জন্য মেয়েটাও সমান ভাবে দায়ী…”

এক হাতে তালি বাজে না, নিশ্চয়ই ধর্ষিতা মেয়েটার চরিত্রেও সমস্যা ছিলো। এমনি এমনি কি ধর্ষণ হয় নাকি। মেয়েরা ছোট ছোট কাপড় পরে ঘুরে বেড়াবে, আর ছেলেরা কিছু করলেই দোষ। এই মেয়েরাই সব নষ্টের গোড়া, একজন পুরুষের শারীরিক প্রবিত্তিই হচ্ছে নারীদেহের প্রতি আকৃষ্ট হওয়া এবং এটাই স্বাভাবিক। পুরুষদের কিছু দোষ থাকলেও মূল দোষটা আসলে মেয়েদের, মেয়েরা [...]

কন্যা সমীপে একজন কর্মজীবি মায়ের চিঠি

পুরুষকে আমরা সাধারণত বাবা-ভাই-পুত্র হিসেবে দেখি না। পুরুষ নেতা হয়, বিজ্ঞানী হয়, খেলোয়াড় হয়, দার্শনিক হয়, কিষাণ হয়। অন্যদিকে নারী মাত্রই মা-বোন-কন্যা। কেউ পুরুষকে অপমান করলে আমরা বাবা-ভাই-পুত্রকে অপমান করেছে বলে ক্ষেপি না, কিন্তু নারীকে অপমান করলে মা-বোন-কন্যাকে অপমান করেছে বলে ক্ষেপে যাই - পুরুষ হল একজন ধীমান-শক্তিমান মানুষ যে নিজেই নিজেকে হেফাজত করতে পারে, [...]

|মনু’র বৈদিক চোখ: নারীরা মানুষ নয় আদৌ|শেষপর্ব/১০|

( নবম পর্বের পর...) ... করুণার ধন স্ত্রীধন পিতৃসম্পদে নারীর কোন উত্তরাধিকার নেই। কিন্তু যে ধনটুকুতে নারীর অধিকার স্বীকৃত তা হচ্ছে স্ত্রীধন। তবে এটা এমনই ধন যা নারীর প্রতি করুণার ধনই বলা যায়। মনুশাস্ত্রে ছয় ধরনের স্ত্রীধনের উল্লেখ রয়েছে, যা বণ্টনেও জটিলতা রয়েছে- ‘অধ্যগ্ন্যধ্যাবাহনিকং দত্তঞ্চ প্রীতিকর্মণি। ভ্রাতৃমাতৃপিতৃপ্রাপ্তং ষড়বিধং স্ত্রীধনং স্মৃতম্।।’ স্ত্রীধন ছয় প্রকার- অধ্যাগ্নি, অধ্যাবাহনিক, [...]

|মনু’র বৈদিক চোখ: নারীরা মানুষ নয় আদৌ|পর্ব-০৯/..|

[ স্বীকারোক্তি : সুপ্রিয় পাঠকদের কাছে প্রথমেই মার্জনা চেয়ে নিচ্ছি, গত পর্বে উল্লেখ করেছিলাম যে এটা হবে শেষ পর্ব। কিন্তু সে মোতাবেক কাজ করতে গিয়ে দেখা গেলো, পর্বটা পাঠকের বিরক্তি উৎপাদনের চাইতেও দীর্ঘ হয়ে যায়। তাই সবার কাছে আরেকটি পর্ব ধার চেয়ে নিচ্ছি। আগামী পর্বে নিশ্চয়ই সিরিজটা শেষ করতে পারবো। ] ... (অষ্টম পর্বের পর…) [...]

|মনু’র বৈদিক চোখ: নারীরা মানুষ নয় আদৌ|পর্ব-০৮/..|

(সপ্তম পর্বের পর…) ... মনুশাস্ত্রে নারীর গুরুত্ব ও ব্যবহার পুরুষের দৃষ্টিতে যা কিছু নেতি বা নিকৃষ্ট তারই উৎস হিসেবে নারীকে মনুশাস্ত্রে যথেচ্ছভাবে হীন খলচরিত্রে উপস্থাপন ও চিহ্নিত করা হলেও সমাজজীবনে নারীর উপস্থিতির অবশ্যম্ভাবীতার কারণে তাকে গুরুত্ব না-দিয়েও উপায় নেই পুরুষের। কিন্তু তাও হয়েছে পুরুষের অনুকুলে, উদ্দেশ্যমূলক- ‘পতির্ভার্যাং সম্প্রবিশ্য গর্ভো ভূত্বেহ জায়তে। জায়ায়াস্তদ্ধি জায়াত্বং যদস্যাং জায়তে [...]

আকাশী

আমি জালিয়ে মারবো তোদের তন্দ্রাবিধুর আলসে বেড়াল; বৈশাখী ঝড় হয়ে, আমি জালিয়ে মারবো তোদের। মোল্লা হলিরে বাংলার ছেলে; মেয়েগুলো হায় তোরাও? স্বর্গ দূতীয় ছদ্মনিনাদে আসমানী হলি বোশখেরে ছেড়ে? ওরে আলপনা আঁকা উৎসবে সবুজ পাখী হয়ে; উড়ে চলে আয়, মুড়ি মুড়কীর এই উৎসবে। শাসকেরা কত এলো গেল চাকু মেরে বাংলায়, তারপরও মেলা বসে এইখানে, এই সুন্দর [...]

|মনু’র বৈদিক চোখ: নারীরা মানুষ নয় আদৌ|পর্ব-০৭/..|

(ষষ্ঠ পর্বের পর…) ... মনুশাস্ত্রে স্ত্রীর কর্তব্য বিবাহ নামক নারী-সংগ্রহ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রাপ্ত যে নারীটিকে শাস্ত্রবিধি অনুযায়ী পুরুষের ব্যক্তি-মালিকানায় রক্ষিতা বানানো হয়েছে, সেই নারীকে বহুমাত্রিক ভোগ-ব্যবহারের মাধ্যমে পূর্ণতৃপ্তি বা সন্তোষ না পেলে পুরুষতন্ত্রের সার্থকতা থাকে না। বর্ণ-নির্বিশেষে নারী সামাজিকভাবে শূদ্রধর্মীতার কারণেই শ্রম বা উৎপাদন-যন্ত্রবিশেষ, পুরুষের উপভোগ্য দেহধারণের কারণে নারী ভোগ্যসামগ্রি এবং গর্ভধারণকারী প্রজননযন্ত্রের কারণে নারী [...]