About প্রদীপ দেব

This author has not yet filled in any details.
So far has created 101 blog entries.

জগদীশচন্দ্র বসুর গবেষণায় নিবেদিতার চেষ্টা

ইওরোপ সফরের সাফল্য বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত করেছে জগদীশচন্দ্রকে। বিদ্যুৎ তরঙ্গ নিয়ে তিনি নতুন উদ্যমে গবেষণা শুরু করলেন। ১৮৯৭ সালে তাঁর তিনটি গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয় লন্ডনের রয়েল সোসাইটি থেকে। পেপারগুলো হলো: (১) On the selective conductivity exhibited by certain polarizing substabces, (২) Index refraction of glass for the electric ray, (৩) On the influence of thickness of […]

[455 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

রবীন্দ্রনাথ এবং নিবেদিতার সাথে জগদীশচন্দ্রের বন্ধুত্ব

১৮৯৭ সালের এপ্রিলে নয় মাস ব্যাপী ইওরোপের বৈজ্ঞানিক মিশন শেষ করে দেশে ফিরে এলেন জগদীশচন্দ্র। ইওরোপে তাঁর বৈজ্ঞানিক সাফল্যের কাহিনি কলকাতার সংবাদপত্রেও প্রকাশিত হয়েছে। ভারতীয় বিজ্ঞানীর ইওরোপ জয়ের কাহিনি বাঙালির জন্য তো বটেই, যে কোন ভারতীয়র জন্য গৌরবের। বাঙালির মুখ উজ্জ্বল করা এই বিজ্ঞানীর সাথে পরিচিত হয়ে অভিনন্দন জানানোর জন্য আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন যুবক […]

[256 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

জগদীশচন্দ্র বসুর প্রথম বৈজ্ঞানিক সফর

১৮৯৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর জগদীশচন্দ্র ব্রিটিশ অ্যাসোসিয়েশানের বৈজ্ঞানিক সম্মেলনে বিদ্যুত-তরঙ্গ সম্পর্কে বক্তৃতা দিলেন। “Complete apparatus for studying the properties of electric waves” শীর্ষক বৈজ্ঞানিক বক্তৃতাটি বিপুল সমাদৃত হয়। দর্শকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্যার জে জে থমসন, লর্ড কেলভিন, স্যার অলিভার লজ প্রমুখ পদার্থবিজ্ঞানী। প্রথম বক্তৃতাতেই জগদীশচন্দ্র পৃথিবীবিখ্যাত ব্রিটিশ বিজ্ঞানীদের মনযোগ আকর্ষণ করতে সমর্থ হলেন। […]

[240 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

জগদীশ বসুর বৈজ্ঞানিক গবেষণার সূচনা

পদার্থবিজ্ঞানের প্রতি জগদীশচন্দ্রের ভালোবাসা জন্মেছিল সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে পড়ার সময় ফাদার লাঁফোর সংস্পর্শে এসে। তারপর তা আরো গভীর হয়েছে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়। কেমব্রিজে প্রফেসর লর্ড র‍্যালে ছিলেন তাঁর প্রিয় অধ্যাপক। লর্ড র‍্যালের পড়ানো এবং বোঝানোর স্টাইল জগদীশচন্দ্রও প্রয়োগ করেছিলেন তাঁর অধ্যাপনা জীবনে। লর্ড র‍্যালের আগে কেমব্রিজে পদার্থবিজ্ঞানের প্রধান অধ্যাপক ছিলেন জেম্‌স ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েল।

ম্যাক্সওয়েলের […]

[385 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

জগদীশচন্দ্র বসুর ঘর-সংসার

১৮৮৭ সালের ২৭ জানুয়ারি জগদীশচন্দ্রের বিয়ে হয় তাঁর বাবার বন্ধু দুর্গামোহন দাসের দ্বিতীয় কন্যা অবলা দাসের সাথে। বিয়ের পর অবলা দাস স্বামীর পদবী ব্যবহার করে হয়ে যান অবলা বসু।

তৎকালীন অখন্ড বাংলার সমাজ-উন্নয়নে দুর্গামোহন দাসের অবদান ছিল ব্যাপক। বিক্রমপুরের সন্তান দুর্গামোহন বরিশালের ইংরেজি স্কুল থেকে পড়াশোনা করে বৃত্তি নিয়ে কলকাতার হিন্দু কলেজে পড়েন। সেখান থেকে আবার […]

[1056 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

যুক্তির জয়

বাংলাদেশের হিন্দুধর্মাবলম্বী অনেক তরুণ-তরুণীকে ইদানীং থলের ভেতর হাত ঢুকিয়ে মালা জপতে দেখা যাচ্ছে। হাতে ভাগ্য-ফেরানোর পাথর বসানো আংটির সংখ্যা আঙুলের চেয়ে বেশি হয়ে যাচ্ছে। লাল-কালো-গোলাপী সুতার পাহাড় জমে যাচ্ছে কব্জিতে। অনেকেই নাকি নিয়মিত ‘একাদশী’ পালন করে। উপবাস আর নিরামিষ খাবারের ব্যাপারে এরা এতটাই উগ্র যে কিছু কিছু পরিচিত পরিবারে দেখলাম এ নিয়ে একটা নতুন ধরনের […]

[822 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
লিখেছেন |November ২৬, ২০১৬|বিষয়: বিতর্ক, ব্লগাড্ডা, সমাজ|১১ টি মন্তব্য|

দিদিমার গল্প এবং অন্যান্য

০০

শিরোনামটা লেখার পর মনে হলো আমাদের বাংলাভাষায় কিছু কিছু শব্দ আছে যেগুলো ধর্ম-নিরপেক্ষ নয়। দিদিমা, ঠাকুরমা, ঠাকুরদিদি, ঠানদি, ঠাকুরদা, মাসি, পিসি, দাদা, দিদি, বৌদি ইত্যাদি সম্পর্কসূচক শব্দগুলো বাংলাভাষী মুসলমানরা দৈনন্দিন ব্যবহার করেন না। তেমনি নানা, নানি, দাদি, খালা, খালু, ফুফু, ফুফা, ভাবী ইত্যাদি শব্দগুলো বাংলাভাষী হিন্দু বা বৌদ্ধরা ব্যবহার করেন না। এরকম আরো কিছু ধর্ম-অনিরপেক্ষ […]

[411 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
লিখেছেন |November ২২, ২০১৬|বিষয়: বই, ব্লগাড্ডা, সাহিত্য আলোচনা|৭ টি মন্তব্য|

আলফ্রেড নোবেলের উইল এবং নোবেল পুরষ্কার

পৃথিবীর সবচেয়ে সম্মানজনক এবং শক্তিশালী পুরষ্কারের নাম জিজ্ঞেস করলে বেশিরভাগ মানুষ নোবেল পুরষ্কারের কথাই বলেন। ১৯০১ সাল থেকে শুরু হয়ে প্রতিবছর পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসাবিজ্ঞান, সাহিত্য ও শান্তিতে অবদানের জন্য নোবেল পুরষ্কার দেয়া হয়। চিকিৎসাবিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, ও রসায়নের গবেষণায় সাফল্যের সর্বোচ্চ স্বীকৃতি নোবেল পুরষ্কার। সাহিত্যে যিনি নোবেল পুরষ্কার পান – তাঁর পাঠকপ্রিয়তা এই সময় হঠাৎ করেই […]

[1295 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

পরানের গহীন ভিতর এক নাট্যকার

“যদি মানবিক অনুভূতিগুলোকে স্থানভেদে, পাত্রভেদে, কালভেদে ভিন্ন ভিন্নভাবে প্রকাশ করতে না পারো তবে কবিতা নির্মাণ তোমার কাজ নয়।”

আজ থেকে প্রায় ছাব্বিশ বছর আগে কথাগুলো বলেছিলেন সৈয়দ শামসুল হক। না, ঠিক আমাকে নয় – বলেছিলেন আমার এক বন্ধুর বোনকে। কবিযশোপ্রার্থী তরুণীটি সেই সময় দৈনিক একাধিক ‘কবিতা নির্মাণ’ করছিল অসীম ধৈর্যের সাথে। মানবিক অনুভূতিগুলো সে প্রকাশ […]

[408 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

সাকা চৌধুরীর ফাঁসি – বাংলাদেশের কলঙ্কমোচন

জাতি হিসেবে আমাদের সবচেয়ে গৌরবজনক অধ্যায় হলো আমাদের মুক্তিযুদ্ধ। ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্ত বৃথা যায়নি। আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা তাঁদের বীরত্ব ও আত্মত্যাগের বিনিময়ে বাঙালি জাতিকে উপহার দিয়েছেন একটি স্বাধীন দেশ। আমাদের স্বপ্নের বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় কলঙ্ক হলো রাজাকার-আলবদর আর কিছু ছদ্মবেশী সুবিধাবাদী রাজনীতির বিষাক্ত কীট। স্বাধীনতার আগে আমাদের বুদ্ধিজীবীদের খুন করে জাতিকে মেধাশূন্য করে […]

[433 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
লিখেছেন |February ১৩, ২০১৬|বিষয়: বই, বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধ|৫ টি মন্তব্য|

জগদীশচন্দ্র বসু: বিশ্বের প্রথম জীবপদার্থবিজ্ঞানী

“অন্ধ ভূমিগর্ভ হতে শুনেছিলে সূর্যের আহ্বান
প্রাণের প্রথম জাগরণে, তুমি বৃক্ষ, আদিপ্রাণ-
ঊর্ধ্বশীর্ষে উচ্চারিলে আলোকের […]

[1124 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

আলো হাতে অভিজিৎ রায়

অভিজিৎ রায়ের লেখা আমি প্রথম পড়ি সাপ্তাহিক যায় যায় দিনে। শফিক রেহমানের সাপ্তাহিক যায় যায় দিন বাংলাদেশে এক সময় বেশ জনপ্রিয় ছিল। অভিজিৎ রায়ের লেখাটির শিরোনাম মনে নেই, তবে বিষয়বস্তু মনে আছে। বাংলা সাহিত্যে যৌনতা প্রকাশের মনোবৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ বা এরকম কিছু। লেখাটি এতটাই আধুনিক এবং অন্যরকম ছিল যে অভিজিৎ রায় নামক লেখকের অন্য লেখার খোঁজ […]

[186 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
লিখেছেন |September ১১, ২০১৫|বিষয়: অভিজিৎ রায়|মন্তব্য নেই|

প্রেমের তালায় ভালোবাসা, নাকি কুসংস্কার?

মানুষের জীবনে যতগুলো গোলমেলে ব্যাপার আছে- তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোলমাল যেটা করে তার নাম প্রেম। গোলমালের প্রধান কারণ হলো এর দুর্বোধ্যতা। ঠিকমতো বুঝতে না পারলেই ভুল বোঝাবুঝি, তারপর গোলমাল। প্রেম অনেকটা কোয়ান্টাম মেকানিক্সের মতো। ফাইনম্যানকে নকল করে বলা যায়, কেউ যদি খুব বড়াই করে বলেন যে খুব বুঝতে পেরেছেন, তাহলে বুঝতে হবে তিনি আসলে […]

[487 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
লিখেছেন |June ২৭, ২০১৫|বিষয়: ব্লগাড্ডা, ভালবাসা কারে কয়?|৫ টি মন্তব্য|

পাকিস্তানে কেমন ছিলেন আবদুস সালাম

১৯৫১ সালের শেষের দিকে প্রিন্সটন থেকে কেমব্রিজ হয়ে পাকিস্তানে ফিরে এলেন আবদুস সালাম। তখনো তাঁর পিএইচডি ডিগ্রি পাওয়া হয়নি, কিন্তু পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ের এম-এ, কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের বি-এ এবং বিদেশে গবেষণা ও গবেষণাপত্রের যোগ্যতায় লাহোর সরকারি কলেজে পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক পদে যোগ দিলেন আবদুস সালাম।

সদ্য স্বাধীন পাকিস্তানে সেই সময় আবদুস সালামই একমাত্র তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী। তাছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাফরুল্লাহ […]

[423 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0

অনন্ত ভালোবাসা

আজ দু’সপ্তাহ হয়ে গেলো অনন্তকে তারা চারজনে মিলে কুপিয়ে মেরে ফেলেছে। চার জন মুখোশধারী জল্লাদ। এই চারজনের পেছনে আরো কতজন আছে, কারা এদের পাঠিয়েছে, কাদের অর্থ ও নিরাপত্তায় এরা পুষ্ট হচ্ছে আমরা জানি না। শুধু এটুকু জানি – এরা চায় না বাংলাদেশে মুক্তবুদ্ধির চর্চা হোক। অনন্তর আগে তারা একই কায়দায় মেরেছে আশিকুর রহমান বাবুকে, তার […]

[52 বার পঠিত]

এই লেখাটি শেয়ার করুন:
0
Load More Posts

মুক্তমনার সাথে থাকুন