About কৌস্তুভ

মুক্তমনা সদস্য।

বেদে নিখুঁতভাবে বলা আছে আলোর গতিবেগ!

আমি কোনো কথা বলার আগে, আসুন হে পাঠক, এই হিসাবটায় চোখ বুলিয়ে একবার বেদের অপৌরুষেয়তায় চমৎকৃত হয়ে যান: আলোকের গতিবেগ সম্বন্ধে বৈদিক ঋষিরা বলেছিলেন :- "যোজনম্‌ সহস্ত্রে দোয়ে, দোয়ে শতে, দোয়ে চঃ যোজনে। একিনম্‌ নিমির্ষাদ্ধেন কর্মেনঃ নমস্তুতে।।" অর্থাৎ 2202 যোজন পথ নিমিষের অর্ধেক সময়ে (যিনি অতিক্রম) কর্ম্ম করেন তাঁকেনমষ্কার। এখানে দূরত্বের একক যোজন এবং সময়ের [...]

ভারতীয় জনমানসে বিগ্যান

ভারতের ইস্কুলে ইস্কুলে যেভাবে পাখিপড়া করে বাবরের বাবার নাম মুখস্থ করানো হয়, ঠিক একই ভাবে বিজ্ঞানকেও গিলিয়ে দেওয়া হয়। ছাত্ররা বিজ্ঞান শেখার নামে তা কেবল অস্থায়ী মুখস্থ করে, আত্মস্থ করে না। অঙ্ক-ফিজিক্স-বায়োলজির সঙ্গে তাই তাদের কোনোরকম ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠে না, এসব সাবজেক্টকে কেবল ভয়ই করে তারা। আর তাই এদের মধ্যে থেকে যারা বড় হয়ে বিজ্ঞানী [...]

জাতক নং ২৭৩ — কচ্ছপ-জাতক

জাতকের ৫৪৭টি কাহিনীর মধ্যে এই একটি কাহিনী বিশেষ ‘সম্মানের’ অধিকারী। অনুবাদকালে এই একটিমাত্র গল্প ঈশানচন্দ্র (১৯২৩) বাংলার বদলে অনুবাদ করেছেন সংস্কৃতে। E. B. Cowell (১৮৯৫) জাতকের ইংরাজি অনুবাদের সময় এই একটিমাত্র কাহিনী অনুবাদ করেছেন ল্যাটিনে । ঘটনা কী? সবাই এই কাহিনীটিকে এড়িয়ে যাচ্ছেন কেন? কারণ, আপনারা যা অনুমান করতে পারছেন তাই-ই – এই গল্পটি কিঞ্চিৎ [...]

জিনের ওপারে

জীবদেহে জিনের মধ্যে লুকিয়ে আছে সৃষ্টিরহস্যের মহাগ্রন্থ। আমাদের মানবদেহের সেই পুস্তক উন্মোচনের দশ বছর পূর্তি সম্প্রতি উদ্‌যাপিত হল মহাসমারোহে, সেই অনুষ্ঠান নিয়ে লিখেছিলাম আগে। এখন কাজ চলছে, যেহেতু প্রতিটি মানুষের দেহেই এই বইয়ের একটুখানি আলাদা ভার্শন পাওয়া যায়, সেই সব বৈচিত্র্যকে তালিকাভুক্ত করার। কিন্তু আমরা ক্রমে ক্রমে জানতে পারছি, জীবদেহে অনেকরকম লীলাখেলার ব্যাখ্যা জিন’বই দিতে [...]

জাতক ও কামিনী

ঈশানচন্দ্র ঘোষের অনুবাদে জাতক পড়ছি কয়েকদিন ধরে। ছয় খণ্ডে তাঁর এই বিশাল কর্মযজ্ঞ সুপাঠ্য বলে রবিবাবু থেকে আলীসাহেব সবারই প্রশংসা লাভ করেছিল, আমারও পড়তে লাগছে চমৎকার। সাথে সাথে তাঁর টীকাগুলিও দারুণ। পড়তে পড়তে এর সপ্তম অংশ, ‘স্ত্রীবর্গ’-তে এসে আমি বেশ অবাকই হলাম। সেই প্রসঙ্গেই দু-এক-কথা বলব বলে এই শিরোনাম। কিন্তু তার আগে কাঠামো হিসাবে জাতক [...]