.
.
.
.
.
.
.
.

এপাশে অবোধ মন, ওদিকে পেশীভয়; তোমাদের।
ঠুলি পরা চোখে অন্ধকারেই দেখো তৃপ্তির আলো ! ধিক্।
আঁধারেই দেখো সবদিক। নির্লিপ্ত নিষ্পেষণে আজো, অবিরাম।
তবু ভালবাসা ঠিকই আছে বেঁচে, দেখো। হে সমাজ, সীমান্ত, ধিক্।

গল্পের জন্য, অসীমের জন্য, অবুঝের জন্য হে; মানুষ,
তোমাদের দেখাবার জন্য, আজো বাঁচে সেই। মিটি মিটি মিট।
হে নিরন্তর। ধিক্। ধিক্ তোমাদের হিসেবের খাতা। সমাজ বর্বর; ধিক্।

স্পর্ধার যে আকাশ, সেখানেও আছে সীমা। হয়তো’বা নীল।
অথচ কি জানো, ভালোবাসা ফেরে অনন্ত বিমূর্ত কোন সময় বিবরে।
চোখ মেলে দেখো। চেনা ভালবাসা দেখো, নতুন বিস্ময়ে, অন্য অনুভবে।

তোমাদের চেনা আলো তুলনায় বাঁচে, অন্ধকারের তরে।

জেনে রাখো, ভালোবাসা বাঁচে শুধু ভালোবেসে,
চেনা আলো কিংবা অন্ধকার, কিচ্ছু নেই যেখানে,
অনাবিল উষ্ণতা এবং কাঙ্ক্ষিত অনায়াস আবাসে।

হে মানুষ, শুন্য কিংবা এক।
কি’বা প্রয়োজন হিসেব কষে হিসেব মেলাবার?

বরং ভালোবাসো।

জেনো;

অবশেষে মানুষই খুঁজবে মানুষেরে।

ভালোবেসে,

মানুষেরই লাগি।

আমি সসীম প্রতীক্ষায়।

[468 বার পঠিত]