জীবনানন্দের ব্যথিত মানচিত্র

লেখক: মাসুদ সজীব

কলমীর গন্ধভরা রূপসী বাংলায় আপনি ফিরতে চেয়েছেন বারে বারে,
কখনো ফিরতে চেয়েছেন শঙ্খচিল শালিখের বেশে,
কখনো বা সোনালী ডানার চিল হয়ে।
দেখতে চেয়েছিলেন কাঁঠালপাতা ঝরিয়া পড়িবে ভোরের বাতাসে;
হয়তো দেখতে চেয়েছেন সুদর্শনা উড়িতেছে সন্ধ্যার বাতাসে।

প্রিয় জীবনানন্দ, আপনাকে জানিয়ে রাখি
দালান আর প্রাসাদের চাপায় কলমীর গন্ধ আজ হারিয়ে গেছে বাংলা থেকে,
গন্ধহীন বাংলায় এখন শুধু নীরব কান্নার ধ্বনি উড়ে আকাশে আকাশে।
শালিখ কিংবা সোনালী ডানার চিল নয় বাংলার আকাশ আজ ভরে গেছে হিংস্র শকুনে,
যারা আপনার সুরাঞ্জনা আর বনলতাদের ঘর বাড়িতে আগুন দিয়ে
এ জনপদকে অমানুষের অভয়ারণ্য করে তুলছে দিনে দিনে।

প্রিয়তম কবি, আপনি জেনে হয়তো স্তব্ধ হবেন,
কর্ণফুলী ধলেশ্বরী পদ্মা, তিস্তা, পাড়ের মানুষ
এখন শুধু সোনালী ফসল ফলায় না, ঘৃণা ফসলও চাষাবাদ করে।

আপনার প্রিয় অশ্বত্থ, বটের সাথে কাঠাল জারুলের সম্পর্ক চুকে গেছে বহুকাল আগে।
এখন এদের কেউ হিন্দু আর কেউবা মুসলমান হয়ে গেছে!
অবাক হচ্ছেন, গাছেদের ধর্ম হয় কি করে?
হ্যাঁ, হয় প্রিয় নৈসর্গিক কবি, মাটির ধর্ম হয়েছে, দেশের ধর্ম হয়েছে, আর গাছেদের হবে না?
গাছেদেরও ধর্ম হয়েছে,
ধর্মই এখন সবচেয়ে বড় পরিচয় হয়ে দাঁড়িয়েছে এই ছাপান্নো হাজার বর্গমাইলে।

শাদা শাঁখা আর লাল সিঁধুর এখন রক্তের দামে বিক্রি হচ্ছে যেখানে-সেখানে।
সীতারাম রাজারাম রামনাথ রায়দের নাম আমরা ভুলে গেছি,
কঙ্কাবতী শঙ্খশালা-রা আজ আর আসে না কারো কবিতার পাতা ভরে।
মরে গিয়ে বেঁচে গিয়েছেন প্রিয় বোধের কবি,
না হলে আপনার ঘর-বাড়িতে ও কেউ আগুন দিতো,
আপনাকেও হয়তো এই বাংলা ছাড়তে হতো!

এতো ঘৃণা, এতো রক্ত, এতো আগুন, চারিদিকে এতো বৈষ্যমের দেয়াল তুলে দেওয়া
এতো শকুনের ভিড়ে তারপরও কি আপনি ফিরতে চান ব্যথিত বাংলার মানচিত্রে?

About the Author:

মুক্তমনার অতিথি লেখকদের লেখা এই একাউন্ট থেকে পোস্ট করা হবে।

মন্তব্যসমূহ

  1. আরজাহান আরজু সেপ্টেম্বর 23, 2018 at 4:51 পূর্বাহ্ন - Reply

    একদিন এই বাংলা কওমীমনারা দখলে নিয়ে ঘোমটা আর আরবীয় ৩২ ভাজের স্কার্ফ পড়তে বাধ্য করলেও অবাক হব না।

  2. রাসেল নভেম্বর 19, 2017 at 1:12 পূর্বাহ্ন - Reply

    ভালোবাসা কবির প্রতি
    https://rassel23.blogspot.com/

  3. গীতা দাস মার্চ 17, 2017 at 9:40 পূর্বাহ্ন - Reply

    জীবনানন্দের বাংলায় আজ কি কি নেই তা কবিতায় মূর্ত। জীবনানন্দের ব্যথিত মানচিত্র আজও যে সজীবদের ব্যথিত করে এটাই বড় প্রাপ্তি। ভালো লেগেছে। কবিতা অব্যাহ থাকুক।

  4. আমি কোন অভ্যাগত নই মার্চ 7, 2017 at 7:41 পূর্বাহ্ন - Reply

    কবি, বেঁচে থাকলে আজ আপনাকে হেফাজতের মন রেখে কবিতা লিখতে হত! মরে গিয়ে বেঁচে গেছেন আপনি!

  5. যুক্তি পথিক মার্চ 6, 2017 at 12:15 পূর্বাহ্ন - Reply

    মরে গিয়ে বেঁচে গিয়েছেন প্রিয় বোধের কবি,
    না হলে আপনার ঘর-বাড়িতে ও কেউ আগুন দিতো,
    আপনাকেও হয়তো এই বাংলা ছাড়তে হতো!

    তাই তো, সত্যি কবি আপনি বেচে গিয়েছেন। কবিতাটির উপস্থাপন দারুণ।

মন্তব্য করুন