বর্ষণমুখর দিনে বর্ষ-সেরা বর এসেছিল,
ভাষাকে বরণ করে, বরেণ্য হবে বলে।
বর্ণ-চোরার মত লুকিয়েছিল, একাকী,
ব্যঞ্জন বর্ণের ঘরে, কেউ দেখেনি তাকে;
স্বর বর্ণের এই যে খেলা, সক্রিয় হয়ে,
বঙ্গবর্ষে ঝরেছিল অঝোরে, মুগ্ধকর;
অবর্ণনীয় সেই বর্ষণধারায়, স্নাত;
বর্ষভোগ্য হবার আগেই, বর্ণনাতীত,
বরণডালা, সম্মুখে ধরি বরেন্দ্র তুমি,
বরাসনে উপবিষ্ট, দিলে হে বরাভয়।
নির্ভয়ে বর্ষণস্নাত, বর্ণে দেখি তোমাকে,
হে, ‘অ’, কি অপরূপ রূপে, দিলে বরদান।
বর্ণহীন ক্রিয়া, বর-কনের বর্ণময়,
আবর্ত্তনে হে বার্ণিক, বরণমালা লয়ে,
বর্ণময়তায় সতত সক্রিয় ব্যঞ্জনে।
১৫.০৭.২০১৪

[176 বার পঠিত]