গত কিছুদিন ধরে মুক্তমনা প্রতিষ্ঠাতা এবং লেখক অভিজিৎ রায়ের হত্যাকান্ডের তদন্ত বিষয়ক কয়েকটি সংবাদ আমাদের নজরে এসেছে। ‘বন্যা আহমেদ অভিজিৎ রায়ের খুনীদের সনাক্ত করেছেন’ বা ‘অভিজিতের খুনীদের তথ্য দিয়েছিলেন বন্যার এক বন্ধু’ এমন ধরনের চটুল শিরোনাম, ভুল-তথ্য প্রচার করে জনমনে সস্তা আলোড়ন সৃষ্টির চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মুক্তমনার পক্ষ থেকে আমরা প্রতিবাদ করছি। অনেকেই যেহেতু আমাদের সাথে এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করছেন তাই আমরা বন্যা আহমেদের পক্ষ থেকে সবাইকে সঠিক তথ্য জানানোর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করছি।

কাকতালীয় ভাবে বন্যা আহমেদ যখন ২রা জুলাই লন্ডনে ভলতেয়ার লেকচার ২০১৫ দিতে যান তার ঠিক আগে থেকে এ ধরণের সংবাদগুলোর প্রচার শুরু হয়। বিট্রিশ হিউম্যানিস্ট এসোসিয়েশনের এ পাতায় গেলে বন্যা আহমেদের ভলতেয়ার লেকচার নিয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

আক্রমণের পর চার দিন স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসা শেষে বন্যা আহমেদ যখন উন্নত চিকিৎসার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যান তখন থেকে আজ পর্যন্ত তাকে বাংলাদেশ পুলিশ বা এফবিআই কারও পক্ষ থেকেই কোনো ছবি পাঠানো হয় নি সনাক্ত করা জন্য। তিনি কখনই অভিজিৎ রায়ের কোনো খুনিকে সনাক্ত করেন নি।

বন্যা আহমেদের সাথে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই এর নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। আমরা সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করতে চাই, বাংলাদেশ সরকার, প্রশাসন, অথবা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশ দূতাবাস কেউই সরাসরি বা এফবিআই এর মাধ্যমে তার সাথে যোগাযোগ করে নি। বন্যা আহমেদ রয়টার্সকে সাক্ষাৎকার (বিডি নিউজ লিংক) প্রদানের পর সজীব ওয়াজেদ জয় তাড়াহুড়ো করে রয়টার্সের সাথে যোগাযোগ করলেও সরকারের পক্ষ থেকে কেউ বন্যা আহমেদের সাথে সরাসরি কথা বলার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন নি।

অভিজিৎ রায়ের খুনিদের তথ্য দিয়েছেন বন্যা আহমেদের বন্ধু, এমন একটি মনগড়া খবরও প্রকাশিত হয়েছে “গোয়েন্দা পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তা”র বরাত দিয়ে, যদিও বন্যা আহমেদের কোনো বন্ধুর ব্যাপারে এফবিআই বা বাংলাদেশ পুলিশ কখনও জানতে চায় নি। যাচাই না করে, উপযুক্ত প্রমাণ না দেখিয়ে, কাউকে গ্রেফতার না করে বন্যা আহমেদের “বন্ধু” নামক অশরীরিকে সংবাদপত্রে অভিযুক্ত করা তীব্র পেশাদারিত্বের অভাব ছাড়া আর কিছু নয়।

আমরা অভিজিৎ রায় হত্যাকারীদের গ্রেফতার এবং বিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি চাই, আমরা অনন্ত বিজয় দাশের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচার চাই। আমরা রাজীব হায়দার, ওয়াশিকুর বাবু সহ সকল মুক্তচিন্তক হত্যাকারীদের বিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। মিথ্যা কথায় ভরপুর সংবাদ সম্মেলন/সংবাদ চাই না।

By | 2015-07-15T09:06:21+00:00 July 9, 2015|Categories: রাজনীতি|11 Comments

11 Comments

  1. কাজী রহমান July 9, 2015 at 10:25 am - Reply

    মিডিয়ার ভূয়া খবরের প্রতিবাদ শেয়ার করে ছড়িয়ে দিতে শুভাকাঙ্খীদের প্রতি অনুরোধ রইলো।

  2. Manzurul Islam Noshad July 9, 2015 at 11:48 am - Reply

    মিডিয়া সত্য উন্মোচনের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। কিন্তু যখন এদের মধ্যে থেকে ভূঁয়া তথ্য বের হয়ে আসে তখন ব্যাপারটি বরাবরই দু:খজনক। বন্যা আহমেদকে নিয়ে ভূঁয়া তথ্য দেওয়ার জন্য প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

  3. এই লেখার একটা ইংরেজি ভার্সন দরকার।

  4. নশ্বর July 9, 2015 at 8:19 pm - Reply

    কিছু কিছু সংবাদ মাধ্যম এই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে ভুয়া তথ্য প্রচার করছে । আমাদের এর প্রতিবাদ করা উচিৎ । সংবাদ মাধ্যমগুলোকে যে কোন তথ্য প্রচারের পূর্বে তা সঠিক কিনা যাচাই করা দরকার ।

  5. অভি দা’র হত্যা এখনো রাজনৈতিক পন্য! আর বিকৃত সংবাদ সম্ভবত সেই সূত্রে।

    মুক্তমনার সঙ্গে সংহতি।

    • এই বিবৃতি নিয়ে আমার করা অনলাইন সংবাদ:

      “বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকা: মুক্তমনা লেখক অভিজিৎ রায় হত্যার সাড়ে চার মাসেও বাংলাদেশ সরকার হত্যার প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতর স্ত্রী রাফিয়া আহমেদ বন্যার সঙ্গে কোনো যোগাযোগই করেনি। মামলার তদন্তকারী সংস্থাগুলো কোনো প্রয়োজনই মনে করেনি বন্যা আহমেদের সাক্ষ্য নেওয়ার।

      মুক্তচিন্তার ব্লগ সাইট মুক্তমনা ডটকম এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। নিহত অভিজিৎ রায় মুক্তমনা ডটকম’র নির্মাতা। বন্যা আহমেদ নিজেও একজন মুক্তমনার লেখক।”

      – See more at: http://bangla.newsnextbd.com/article177115.nnbd/#sthash.8XWIDWPb.dpuf

  6. Mehedi Hasan Mac July 10, 2015 at 5:31 pm - Reply

    অভিদার বিচার দেখে যেতে পারবনা। সরকার যে ভোটের দিকেই চেয়ে আছে।

  7. অবরোধবাসিনী July 10, 2015 at 10:05 pm - Reply

    সীমাহীন হঠকারিতা !!

  8. আকাশ মালিক July 11, 2015 at 7:04 am - Reply

    বন্যার একটা স্টেইটমেন্টই নেয়ার প্রয়োজন মনে করেনি পুলিশ। বুঝাই যায় আমাদের দেশের মাথাওয়ালাদের মাথা কত্তো বড়।

  9. রায়হান আবীর July 15, 2015 at 2:58 am - Reply

    খুনীদের সনাক্ত করা হয়েছে এমন খবরে দেশের সব পত্রিকার প্রথম পাতা সয়লাব হলেও আমরা যে তথ্যগত ত্রুটির প্রতিবাদ জানালাম সেটা মূলধারার কেউ উল্লেখ করলো না। কেনো?

  10. অ/ ট : ব্লগার লুক্স’র জীবন এখন জার্মানীতেও মৌলবাদীর হুমকির মুখে!

    সাধু সাবধান!

Leave A Comment