অবিশ্বাসের দর্শনের তৃতীয় প্রকাশ হাতে পেয়ে

অবিশ্বাসের দর্শন‘ বইটা যখন প্রথম প্রকাশিত হয় ২০১১ সালে তখন আমার ছোটভাই আহমেদ রেদওয়ান জান্না ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ে। ইন্টারনেট, মোবাইল, কম্পিউটারবিহীন ওর জীবনের একমাত্র সঙ্গী ছিলো ‘আউট বই’। কিন্তু সে বয়সের জন্য অবিশ্বাসের দর্শন একটু বেশিই ‘আউট’ হয়ে যায় তাই আমি তখন পড়ে দেখতে বলি নি। তাছাড়া ধর্মান্ধদের মতো আগ বাড়িয়ে ওকে নির্ধর্ম নিয়ে কখনও মোটিভেশন দিতে ইচ্ছা করতো না, কাউকেই করে না। মনে হতো, উপযুক্ত বয়স হলে ও নিজেই সিদ্ধান্ত নিবে, কোনো প্রশ্ন আসলে উত্তর দিতে আমি তো আছি। পড়তে উৎসাহ না দিলেও ওকে বইটি দেখিয়েছিলাম তখনই, পরিবারের একমাত্র সদস্য যে কিনা আমার লেখালেখির আপডেট পেতো আমার কাছ থেকে। প্রথম বই প্রকাশের আনন্দটা পরিবারের এই একজনের সাথেই তখন ভাগাভাগি করতে পেরেছিলাম।

দেখতে দেখতে দিন চলে যেতে থাকলো। অবিশ্বাসের দর্শনের সাথে সাথে জান্নাও বড় হতে থাকলো। ইদানিং রাতে বাসায় ফিরে প্রায়ই একটু সময়ের জন্য শুয়ে থাকতাম জান্না’র বিছানায়। ও পাশের টেবিলে পড়তো। আমাদের ছেড়ে চিরতরে চলে যাবার সাত দিন আগে জানতে চেয়েছিলো বিগব্যাং থেকে যদি আমাদের মহাবিশ্বের সূচনা হয় তাহলে বিগব্যাং এর আগে কী ছিলো? বিছানা থেকে উঠে বসে ওকে নিজে যতোটুকু জানি ততোটুকু ব্যাখ্যা করলাম। তারপর বললাম অভিদা আর আমার ‘অবিশ্বাসের দর্শন’ বইটায় একটা অধ্যায় আছে এই বিষয়ে, ও পড়ে দেখলে মজা পাবে। এই প্রথম ওকে বইটা পড়ে দেখতে বললাম, ওর সতের বছর বয়সে।

অদ্ভুত হলেও সত্যি, আমার নিজের কাছে অবিশ্বাসের দর্শনের কোনো কপি নেই। প্রথম সংস্করণও না দ্বিতীয়টাও না। বইটা মাঝে দরকার ছিলো বলে বন্ধু জামানের কপিটা নিয়ে এসেছিলাম বাসায়। জান্নাকে পড়তে দেবো ভেবে বাসায় ঢুকে খুঁজে দেখলাম, পেলাম না। ওকে গিয়ে বললাম, পাচ্ছি না, পরে দিবো।

গতকাল শাহবাগে গিয়ে হাতে পেলাম নতুন ছাপা হওয়া অবিশ্বাসের দর্শন বইটি। জাগৃতির প্রকাশক ফোন করে আগের দিনই জানিয়েছিলেন যে, বইটি ছাপা হয়ে অফিসে চলে এসেছে। সত্যি বলতে কী, এই প্রথম আমি নতুন বই হাতে পেয়ে আবেগে আক্রান্ত হলাম, নানা কারণে। অবিশ্বাসের দর্শন যখন প্রথমবার প্রকাশিত হয়েছিলো বইটি হাতে পেয়ে কুঁকড়ে গিয়েছিলাম, অসংখ্য বানান ভুল, ফরম্যাটিং, তথ্যসূত্র, পৃষ্ঠা নাম্বারে উলটপালট মিলিয়ে নিন্মমানের প্রডাকশন দেখে। শুদ্ধস্বরের প্রকাশক বললেন, পরের সংস্করণেই সব ঠিক করে ফেলা হবে। প্রথমদিন বইয়ের অবস্থা দেখেই অতিপ্রিয় ‘শাহরিয়ার মামুন রনি’ ভাই অফিসের প্রচন্ড কাজের চাপ থাকার পরও পাঁচ দিনে বইয়ের আপাদমস্তক রিভিউ করে দিলেন। সেটা প্রকাশককে দেওয়া হলো। যাই হোক, মেলায় প্রথমদিন প্রকাশিত হলেও দশ দিনেই শেষ হয়ে গিয়েছিল ছাপা হওয়া কপি গুলো। যদিও পরের ধাপে আবার যখন ছাপা হবে তখন একটা ‘ঠিকঠাক’ সংস্করণ প্রকাশ করার ইচ্ছা ছিলো। সেটা সেবার (২০১১) সম্ভব হয় নি। তারপর একবছর ধরে আবার ঠিকঠাক করে শুদ্ধস্বর থেকেই ছাপানো হলো বইটি পেপারব্যাক এডিশন আকারে (২০১২)। পেপারব্যাক এডিশন শেষ হবার পরেও বইটির চাহিদা ছিলো। কিন্তু প্রকাশকের ব্যর্থতায় পরের দুই বছর ২০১৩, ১০১৪ সালে বইটি আর ছাপা হয় নি। মানুষিকতা বইটি বের হয়েছিলো শুদ্ধস্বর থেকেই ২০১৩ সালে। সে বইটি হাতে পেয়েও অসম্ভব বিরক্ত হয়েছিলাম। এবার বইয়ের বিভিন্ন শব্দ একত্রে জোড়া লেগে যাতা অবস্থা।

সে তুলনায় এবারের অবিশ্বাসের দর্শন একেবারেই আলাদা। চারবছরে এসে অনেকটা সম্পূর্ণ হলো যেনো প্রজেক্টটা। নতুন অনেককিছু সংযোজন করা হয়েছে, কিছু জিনিস বিয়োজন করা হয়েছে। নতুন করে ফরম্যাটিং ঠিক করে দিয়েছেন প্রকাশক নিজের হাতে। ছোট হরফে হলেও ছাপার গুণগতমানে বইটি পড়তে এবার অনেক ভালো লাগবে বলেই আমার কাছে মনে হয়েছে। দীপন ভাইয়ের কাছ থেকে তাই ‘অবিশ্বাসের দর্শন’ পাওয়া মাত্র পাতা উলটে পড়া শুরু করলাম। জান্নাকে যে অধ্যায়টা পড়তে বলেছিলাম সে অধ্যায়ে চলে গিয়ে যেনো জান্না হয়ে গেলাম। বই হাতে পেয়েই এভাবে মগ্ন হয়ে যাওয়া দেখে দীপন ভাই চিন্তিত হয়ে জিজ্ঞেস করলেন, সব ঠিকঠাক আছে তো? আমি অবশ্য কান্না ভেজা চোখে ওনার দিকে তাকাতে পারি নি তখনই।

আমার জীবনের কিছু আর ঠিকঠাক না থাকলেও বইটা এবার ঠিকঠাক হয়েছে, তাই জাগৃতির প্রকাশক ফয়সাল আরেফীন দীপন ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। অভিজিৎ দা এখনও বইটি দেখেন নি, তবে দেখার পর উনিও একই রায় দিবেন আমি নিশ্চিত। অবিশ্বাসের দর্শনের জন্য আপনারা যারা এতোদিন অপেক্ষা করে ছিলেন এবার তাদেরও অপেক্ষার প্রহর শেষ হলো। আমি অপেক্ষার কাছে হেরে গেলেও আশা করি অসংখ্য জান্না’র মনে বইটি আলো জ্বালিয়ে যাবে। সেটুকুই প্রাপ্তি হিসেবে জীবনের খাতায় লিখে রাখবো আমরা।

অবিশ্বাসের দর্শন তৃতীয় প্রকাশ

অবিশ্বাসের দর্শন তৃতীয় প্রকাশ

একনজরে তৃতীয় প্রকাশ

প্রচ্ছদ সামিয়া হোসেন
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ৩১৫
মুদ্রিত মূল্য: ৫৫০ টাকা
প্রকাশক: ফয়সাল আরেফিন দীপন, জাগৃতি প্রকাশনী, ৩৩ আজিজ সুপার মার্কেট, নিচতলা, শহবাগ, ঢাকা- ১০০০
ISBN: 9879849104360
জাগৃতি সংস্করণের ভূমিকা: ফেসবুকেগুডরিডসে

জন্মেছি ঢাকায়, ১৯৮৬ সালে। বিজ্ঞানমনস্ক যুক্তিবাদী সমাজের স্বপ্ন দেখি। সামান্য যা লেখালেখি, তার প্রেরণা আসে এই স্বপ্ন থেকেই। পছন্দের বিষয় বিবর্তন, পদার্থবিজ্ঞান, সংশয়বাদ। লেখালেখির সূচনা অনলাইন রাইটার্স কমিউনিটি সচলায়তন.কম এবং ক্যাডেট কলেজ ব্লগে। এরপর মুক্তমনা সম্পাদক অভিজিৎ রায়ের অনুপ্রেরণায় মুক্তমনা বাংলা ব্লগে বিজ্ঞান, সংশয়বাদ সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখা শুরু করি। অভিজিৎ রায়ের সাথে ২০১১ সালে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় শুদ্ধস্বর থেকে প্রকাশিত হয় প্রথম বই 'অবিশ্বাসের দর্শন' (দ্বিতীয় প্রকাশ: ২০১২), দ্বিতীয় বই 'মানুষিকতা' প্রকাশিত হয় একই প্রকাশনী থেকে ২০১৩ সালে। তৃতীয় বই "কাঠগড়ায় বিবর্তন" প্রকাশিতব্য। শৈশবের বিদ্যালয় আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং এসওএস হারমান মেইনার কলেজ। কৈশোর কেটেছে খাকিচত্বর বরিশাল ক্যাডেট কলেজে। তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশলে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করি ২০০৯ সালে, গাজীপুরের ইসলামিক প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (আইইউটি) থেকে। এরপর দেশের মানুষের জন্য নিজের সামান্য যতটুকু মেধা আছে, তা ব্যবহারের ব্রত নিয়ে যোগ দেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিক্যাল ফিজিক্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগে। প্রথিতযশা বিজ্ঞানী অধ্যাপক সিদ্দিক-ই-রব্বানীর নেতৃত্বে আরও একদল দেশসেরা বিজ্ঞানীর সাথে গবেষণা করে যাচ্ছি তৃতীয় বিশ্বের মানুষের জন্য উন্নত স্বাস্থ্যসেবা প্রযুক্তি উদ্ভাবনে।

মন্তব্যসমূহ

  1. মানবিক মানব জানুয়ারী 28, 2015 at 2:40 পূর্বাহ্ন - Reply

    অবিশ্বাসের দর্শন তৃতীয় প্রকাশ

    খুব ভালো হয়েছে । মুক্তমনায় বইটির সম্পূর্ণ অংশ পাইনি । এবার মনে হয় সম্পূর্নটা পড়া সম্ভব হবে ।

  2. সামিয়া জানুয়ারী 24, 2015 at 12:48 অপরাহ্ন - Reply

    অভিনন্দন , 🙂

  3. গীতা দাস জানুয়ারী 24, 2015 at 10:01 পূর্বাহ্ন - Reply

    দু:খ জনক হলে ও অসংখ্য বানান ভুল, ফরম্যাটিং, তথ্যসূত্র, পৃষ্ঠা নাম্বারে উলটপালট মিলিয়ে নিন্মমানের প্রডাকশনটিই আমার সংগ্রহে।একই বই দুইবার কেনার মত বিলাসিতা করতে পারছি না। আমার মত অনেকেই ঠকেছে।
    যাহোক, বইটির দর্শন ছড়িয়ে পড়ুক।

    • রায়হান আবীর জানুয়ারী 29, 2015 at 3:59 অপরাহ্ন - Reply

      @গীতা দাস, ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

  4. নাইয়রি জানুয়ারী 23, 2015 at 3:36 অপরাহ্ন - Reply

    অসংখ্য ধন্যবাদ বইটি শেয়ার করার জন্য।

  5. মাহফুজ জানুয়ারী 23, 2015 at 12:54 পূর্বাহ্ন - Reply

    প্রথম প্রকাশে ১ কপি, দ্বিতীয় প্রকাশে ২ কপি কিনেছিলাম। এই তৃতীয় প্রকাশে নিশ্চয়ই ৩ কপি কিনবো।
    যেহেতু ভয়ে রকমারী ডট কম এই বই বিক্রি করবে না, সেজন্য অনলাইনে (দেশের মধ্যে) কারা বিক্রি করবে; তাদের ঠিকানা দিলে খুব ভালো হয়।

    • রায়হান আবীর জানুয়ারী 29, 2015 at 3:59 অপরাহ্ন - Reply

      @মাহফুজ, ধন্যবাদ। বইমেলা শুরু হলে আপনাকে অবশ্যই জানিয়ে দেবো।

  6. অভিজিৎ জানুয়ারী 22, 2015 at 8:19 অপরাহ্ন - Reply

    রায়হান, বইটা আমি আসলেই দেখিনি, তুমি যখন বলছো কোয়ালিটি সত্যই ভাল হয়েছে নিশ্চয়।

    বইটার সাথে যে জান্নার এতো স্মৃতি জড়িত ছিল, তা একেবারেই জানা ছিলো না। জান্নার অংশ গুলো পড়তে পড়তে চোখ ভিজে এলো। জান্না নিশ্চয় আমাদের সাথে থাকবে। শুধু তাই নয়, তোমার কথা দিয়েই বলি, আশা করি বইটা ‘অসংখ্য জান্না’র মনে বইটি আলো জ্বালিয়ে যাবে’ !

    ধন্যবাদ আবারো। ধন্যবাদ জাগৃতির প্রকাশক দীপনকেও।

    • রায়হান আবীর জানুয়ারী 29, 2015 at 3:58 অপরাহ্ন - Reply

      @অভিজিৎ দা, ছোট ভাই তো, সবকিছুতেই ও জড়িয়ে ছিলো। ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য।

  7. তানভীরুল ইসলাম জানুয়ারী 22, 2015 at 6:43 অপরাহ্ন - Reply

    বইটা খুলে ভিতরেরও একটা ছবি দিতে! কবে আবার দেশে যাব তখন হয়তো সুযোগ হবে দেখার।
    মানুষিকতা বইটারও পরের সংস্করণ জাগৃতি থেকে করো না কেন?

    জান্না বইটা পড়েনি জানতাম না…

    • রায়হান আবীর জানুয়ারী 29, 2015 at 3:57 অপরাহ্ন - Reply

      @তানভীরুল ইসলাম, মানুষিকতা করার কথা। আমিই সময় দিতে পারি নি। অবিশ্বাসের দর্শনটা অভিদা দেখভাল করছিলেন বলে, ভালোয় ভালোয় বেরিয়ে গেলো এবার।

  8. কেশব কুমার অধিকারী জানুয়ারী 22, 2015 at 2:41 অপরাহ্ন - Reply

    সফলতার সাধুবাদ রইলো কিন্তু চোখটা কি একটু ভিজে এলো আমারও……! ভালো থাকুন রায়হান আবীর।

    • রায়হান আবীর জানুয়ারী 22, 2015 at 2:45 অপরাহ্ন - Reply

      ধন্যবাদ কেশব কুমার অধিকারী, হুমায়ুন আহমেদের অসম্ভব ভক্ত ছিলো ও।

      • আকাশ মালিক জানুয়ারী 22, 2015 at 7:55 অপরাহ্ন - Reply

        @রায়হান আবীর,

        আপনার ভাইয়ের সংবাদ শুনে মনটা খারাপ হয়ে গেল, এত অল্প বয়সে? কী হয়েছিল, যদি বলতে অসুবিধে না হয়।

        অবিশ্বাসের দর্শন বইটি অবশ্যই হাজারো জান্নার মনে জগত ও জীবন নিয়ে ভিন্নভাবে ভাবতে, দুনিয়াটাকে ভিন্নচোখে দেখতে জানতে সহায়ক হবে।

        • রায়হান আবীর জানুয়ারী 29, 2015 at 3:56 অপরাহ্ন - Reply

          @আকাশ মালিক, ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য। ও আত্মহনন করলো, কেনো সেটা ঐ ভালো জানবে। আমরা কেবল ধারণা করতে পারি। যেদিন রাতের ঘটনা সেদিন ওর টেস্ট পরীক্ষার ব্যবহারিক ছিলো। নিজামির ফাঁসির হরতালের কারণে স্কুলে না গিয়ে বাসায় ছিলো। পরে রাতের বেলা স্কুল থেকে টিচার ফোন করে বলেছে, পরীক্ষা দিতে না যাওয়ায় ওকে এসএসসি দিতে দিবে না।

          • তামান্না ঝুমু জানুয়ারী 30, 2015 at 7:18 পূর্বাহ্ন - Reply

            @রায়হান আবীর,
            খুব মন খারাপ হয়ে গেলো জান্নার খবরটা শুনে।

মন্তব্য করুন