আজ একটা ছোট্ট লোহার বাক্সে পুরে
ইচ্ছেগুলো অচিনপুরের ঠিকানায়
নদীর জলে বেহুলার ভাসানের সঙ্গী করে
স্রোতের মাঝে ভাসিয়ে দিলাম।

সাপে কাটা লক্ষীন্দরের সনে
অভিশপ্ত বাসনাগুলো কোন সুদূরে ভেসে যায়
কে জানে?
বেহুলাই কি শেষ অবদি থাকে চাঁদ সওদাগরের পুত্রের সনে?

মনসার অভিশাপে চাঁদ সওদাগর
যে পাপ নিয়ে সাত পুত্র হারায়
বেহুলার কি দায় মরা স্বামীর প্রাণ ফিরিয়ে আনার?
নাকি নারী-জন্মই তার একমাত্র পাপ?

পিতা-পুত্রের পাপ মুছতে মুছতে
নিজের অস্তিত্বের কথা ভুলে বেহুলা ভুলে যায়,
তার মনের কোন এক কোণে ছিল সুপ্ত বাসনা
কেন আজ তা ভেসে যায় ভেলার সনে?

দেবতার সন্তুষ্টি ঘুঙ্গুরের মূর্ছনায়
যুগে যুগে নারী শুধু বেহুলায় রয়ে যায়
কখনো জননী, কখনো জায়া কখনো বা লক্ষীর রুপে
জন্মদায়ের পাপ ঘোচায়।।

ফারজানা কবীর খান স্নিগ্ধা

[63 বার পঠিত]