পৃতান আখ্যান

আদি হতে আজ অবধি পৃথিবীর সন্তান তুমি
জন্ম নিয়েছো প্রতিনিয়ত মানবশিশুরূপেই, অথচ
মানুষের পরিচয় কখনো জোটে নি তোমার।
পুরাণের নীলকণ্ঠেশ্বর যেমন শুষে নেয় বিষ
তুমি গায়ে মাখো সমাজের বিষাক্ত পুঁজ, আজন্ম বিষাদে।

যতনামেই ডাকি তোমায় সবখানেই অবজ্ঞা অস্তিত্বের।
এ সমাজ ততবার হয়ে ওঠে কুলাঙ্গার পিতার মত
আপন অন্যায় মুছে দেওয়ার চেষ্টায়
যে অস্বীকার করে যায় আপন সন্তান!
তবুও ধরনীমাতা এতটুকু দ্বিধাগ্রস্থ নয় তোমার প্রসবে।
চেতনার বীর্যধারীদের মুখে তুমি শোভা পাও কাকের ন্যায়
যার অস্তিত্ব অস্বীকার করা যায় না লোক দেখানো পাখিপ্রেমিক হিসেবে
অথচ উচ্ছিষ্ট ব্যতীত অন্য কিছুই তোমার জন্য সুপারিশযোগ্য নয়।

লিঙ্গ পরিচয়ে তুমি অন্যের দ্বারস্থ অস্তিত্বের অপরাধে
শব্দরাজিতে তোমার খোঁজ মেলে বঞ্চনা আর অচ্ছুৎ ভ্রুকুটিতে
হিজড়া অকুয়া জেনানা অথবা বৃহন্নলা
পরিচয় পর্ব শেষে অপমানিত শব্দরা স্তব্ধ হয়ে যায় সৃষ্টির বেদনায়।
তোমার জন্য রাষ্ট্র অথবা সংঘ
দর্শণ অর্থনীতি সমাজনীতি ও বিজ্ঞান
অথবা সাধের সংস্কৃতি আর স্বপ্নের সাম্যবাদ
কোথাও দেখিনা এতটুকু ভিন্ন ইতিহাসের আখ্যান!
সর্বত্রই একক ও অপরিবর্তনীয় তুমি মিথ্যা ঈশ্বরের মতন।

পুঁজির মালিকের চেয়ে যে বেশ্যার দালাল উত্তম
সে তো জেনেছি বহুকাল আগেই, অথচ
উদ্বৃত্ত শ্রমের মূল্য নিয়ে নিত্য হাহাকার যে ঘরে
সেখানেও কী ভীষণ নীরবতা তোমাকে নিয়ে।
অস্পৃশ্য তোমার কোথাও আছে কী শ্রমের অধিকার?

অথর্ব আমি এইসব দেখে চিনি সীমাবদ্ধতার সূত্র
বুঝি, দ্রোহে আর বিপ্লবের তুমিও অংশীদার।
একদিন তুমিও জেগে উঠবে ফুজিয়ামার মত, পাবে অংশীদারিত্ব
সম্মানের শিল্প-সাহিত্য-সমাজচেতনায়, নিশ্চিত একদিন; আপাতত
মুছে যাক গ্লানির পরিচয়, সীমারেখা টানা শত শব্দময় অভিধান
পৃথিবীর সন্তান তুমি, তাই নাম দিলাম ‘পৃতান’।

মুক্তমনা ব্লগার, আজীবন শিক্ষার্থী, সুনির্দিষ্ট রাজনৈতিক দর্শন অনুসারী ও প্রচারকারী, ছাত্র আন্দোলনের কর্মী, সংগঠক।

মন্তব্যসমূহ

  1. পঁচিশে বৈশাখ সেপ্টেম্বর 23, 2012 at 2:49 পূর্বাহ্ন - Reply

    চমৎকার কবিতা। বিষয়বস্তুও অভিনব।
    অভিনন্দন। 🙂

  2. অরণ্য সেপ্টেম্বর 21, 2012 at 12:27 পূর্বাহ্ন - Reply

    এ সমাজ ততবার হয়ে ওঠে কুলাঙ্গার পিতার মত
    আপন অন্যায় মুছে দেওয়ার চেষ্টায়
    যে অস্বীকার করে যায় আপন সন্তান!

    চমৎকার!

    পুঁজির মালিকের চেয়ে যে বেশ্যার দালাল উত্তম
    সে তো জেনেছি বহুকাল আগেই, অথচ
    উদ্বৃত্ত শ্রমের মূল্য নিয়ে নিত্য হাহাকার যে ঘরে
    সেখানেও কী ভীষণ নীরবতা তোমাকে নিয়ে।
    অস্পৃশ্য তোমার কোথাও আছে কী শ্রমের অধিকার?

    বাহ! বেশ বলেছেন!
    পৃতান আখ্যান পৃথিবীর বুকে একটি নতুন অধ্যায়ের সূচনা করুক। এ’ই কামনা।

    • নিঃসঙ্গ বায়স সেপ্টেম্বর 22, 2012 at 3:47 পূর্বাহ্ন - Reply

      @অরণ্য, অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে। আপনার জন্যও শুভ কামনা রইলো। 🙂

  3. আর্যভট্ট সেপ্টেম্বর 20, 2012 at 6:25 অপরাহ্ন - Reply

    নপুংসক সম্প্রদায় নিয়ে অনেকেই কথা বলেন। কিন্তু কাজের কাজ কিচ্ছু হচ্ছেনা। তাদের লিঙ্গকেই আজ পর্যন্ত বৈধতা দেয়া হয়নি। কাম ও প্রেমের পৃথিবীতে এদের অভিশাপ ভাবা হয়। অবশ্যই এরা মানুষ। সবার মতই এদেরও আছে সমাজ, ধর্ম, শিক্ষা, পরিবার ইত্যাদি অতি মৌলিক অধিকার।

      • আর্যভট্ট সেপ্টেম্বর 24, 2012 at 12:52 পূর্বাহ্ন - Reply

        @নিঃসঙ্গ বায়স, আপনাকে ধন্যবাদ। শিখণ্ডী কথা নামে একটি নাটক মঞ্চে আছে , হচ্ছে, ১০০র বেশি শো হয়েছে, জানেন কিনা জানিনা। জাহাঙ্গীর নগরের নাট্য তত্তের প্রভাষক আনন জামান এর লেখা ও নির্দেশনা। নাটক টি থেকে পরবর্তীতে সিনেমা হয়েছে, কিন্তু কোন অদৃশ্য কারণে সেন্সর বোর্ডে দেড় বছর হোল আটকে আছে। মজার বিষয়, নাটক ও সিনেমা ২ জায়গাতেই শিখণ্ডী কথার সাথে যুক্ত ছিলাম। আনন স্যার এই সম্প্রদায় নিয়ে যারা এদেশে গবেষণা করেছেন তাদের অন্যতম। আপনার তথ্য গুলো আমার অভিজ্ঞতায় বিরাট সংযোজন। ভালো থাকবেন।

        • নিঃসঙ্গ বায়স সেপ্টেম্বর 25, 2012 at 5:54 পূর্বাহ্ন - Reply

          @আর্যভট্ট, আমার মঞ্চ নাটক দেখার অভিজ্ঞতা কম, তাই হয়তো শিখণ্ডী কথা’র কথা শুনি নি, বা আলোচনা হলেও খেয়াল করি নি। কিন্তু এখন জেনে আগ্রহ জাগছে দেখার জন্য। পরবর্তী শো কবে হতে পারে, জানাতে পারেন? কোথায়? আমি আগামী ২/৩ তারিখ জাহাঙ্গীরনগর যাবো, থাকবো, সেসময় কি এটির কোনো শো হতে পারে? জানাতে পারলে খুবই উপকার হয়। আর সিনেমাটি কেন, কিভাবে আটকে গেলো, সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য কী, এ বিষয়গুলো কী এখানে শেয়ার করা সম্ভব, জানার খুবই কৌতুহল হচ্ছে। আর উপরোক্ত তথ্যগুলো আসলে যে কেউই একটু নেট সার্ফিং করলেই পেতে পারে, আমার কোনো কৃতিত্ব নেই, পুরোটাই ঈশ্বর গুগলের আশীর্বাদ 🙂

          • আর্যভট্ট সেপ্টেম্বর 25, 2012 at 11:11 পূর্বাহ্ন - Reply

            @নিঃসঙ্গ বায়স, আসলে আনন স্যার সিঙ্গাইরের লোক, আমিও। এটা মানিকগঞ্জের একটি উপজিলা। উনার নেতৃত্বে নিরাভরণ থিয়েটার খোলা হয়েছে বছর ৬-৭ আগে। থিয়েটার থেকে নাটক হয়, সেদিন শিল্পকলাতেও শো হয়েছে। এটি একদমই জাহাঙ্গীর নগর ভিত্তিক নয়। আমি অভিনেতা হিসেবে কাজ করিনি ইচ্ছা করেই। আর সিনেমাটিও আমাদের সিঙ্গাইরের থিয়েটারের সদস্যরাই অভিনয় করেছেন। লো বাজেট মুভি তো। এখানে অশ্লীলতার কথা বলে আটকে রাখা হয়েছে। অথচ এই গল্প শুনে একই থিমে ফারুকির ”ছাইয়া” নাটক দেখেছেন। ছাইয়া যদি বৈধ হয়, তাহলে শিখণ্ডী কথা ক্যান নয়? আর ছাইয়া নাটক টি একটি কনসেপ্ট চুরি করা নাটক। একে না বলুন। আমি ব্যক্তিগত ভাবে ডকুমেন্টারি, শর্ট ফিল্ম এগুলোর উপর কাজ করছি অল্প স্বল্প। আনন স্যার সাহায্য করছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের একটা গ্রুপ আছে ডকুমেন্টারির।

          • আর্যভট্ট সেপ্টেম্বর 25, 2012 at 11:14 পূর্বাহ্ন - Reply

            @নিঃসঙ্গ বায়স, শো কবে ও কোথায় হবে জানাবো। তবে নাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করে আমার পাশের বাসার সিয়াম ভাই। তিনি গুরুতর অসুস্থ, তার ঘাড় ভেঙ্গে গিয়েছিল। তাই শো বেশ কিছুদিন বন্ধ আছে।

মন্তব্য করুন