নির্লজ্জ্ব

যে কোন কারনেই হোক
শূন্যতা যখন আমায় অধিকার করে;
কৌতূহল রোমাঞ্চে ঝিম মেরে রই।

প্রত্যাশাপ্রিয় চেনামুখ দেখি সবদিকে
ঘুরেফিরে হেঁটে বেড়ায় বলিষ্ঠ প্রত্যয়ে,
চেয়ে দেখি তাদের অবিরাম কর্মযজ্ঞ।

প্রিয় বন্ধুর মত শূন্যতা
কৃষ্ণগহ্বরীয় আকর্ষণের টান ধরে আমাতে;
অদেখার মাতলামি; ভালো লাগে আমার।

ব্যাস্তবিকট শব্দে, একান্ত অনিচ্ছায়;
ছিটকে পড়ি আমার শূন্যতা থেকে,
নির্লজ্জ্ব আমি, মিশে যাই জীবনপ্রবাহে।

সংশপ্তকের আবৃত্তি এখানে

(এই লেখাটা অনেকদিন ধরে আলসেমি করে পোস্টে দিইনি। সংশপ্তককে দেখতে দিয়েছিলাম। কণ্ঠোত্তরটা পাওয়ামাত্র পোস্টে)

About the Author:

মুক্তমনা ব্লগার। আদ্দি ঢাকায় বেড়ে ওঠা। পরবাস স্বার্থপরতায় অপরাধী তাই শেকড়ের কাছাকাছি থাকার প্রাণান্ত চেষ্টা।

মন্তব্যসমূহ

  1. অরণ্য মে 26, 2012 at 11:02 অপরাহ্ন - Reply

    সংশপ্তকের আবৃত্তি শুনে চমকে উঠলাম বেশ।

    চমকাবার মতোই। আবৃত্তিতে কেমন নির্লজ্জ একটা Tone আছে। সফল আবৃত্তি বলা যায়।

    • আকাশ মালিক মে 27, 2012 at 7:01 পূর্বাহ্ন - Reply

      @অরণ্য,

      চমকাবার মতোই। আবৃত্তিতে কেমন নির্লজ্জ একটা Tone আছে। সফল আবৃত্তি বলা যায়।

      একদিন টেলিভিশনে একজন খ্যাতিমান কবির মুখ থেকে শুনেছিলাম শব্দটা হবে আবৃতি। আচ্ছা কেউ কি বলবেন কোনটা শুদ্ধ? না কি দুটোই শুদ্ধ?

      আবৃত্তি > আবৃতি

      • কেয়া রোজারিও মে 27, 2012 at 8:17 পূর্বাহ্ন - Reply

        @আকাশ মালিক,

        আবৃত্তি সঠিক।
        উচ্চারণের সময় যেটি অনেকেই খেয়াল করেন না তা’হোল ব একবার উচ্চারিত হবে এবং ত দু’বার। আবৃত-তি উচ্চারন হবে, আব-বৃতি নয়।

        • অরণ্য মে 27, 2012 at 10:32 অপরাহ্ন - Reply

          @কেয়া রোজারিও,

          আবৃত-তি উচ্চারন হবে, আব-বৃতি নয়।

          ধৃষ্টতা হবেকিনা জানিনা, কেননা অনেকেই আজকাল ভুল বুঝছে। 🙁 তবুও বলি, আসলে আবৃত-তি এবং
          আব-বৃতি দুটাই ভুল। প্রমিত উচ্চারণ হবে, আ-বৃত্‌তি।

      • কাজী রহমান মে 27, 2012 at 10:24 পূর্বাহ্ন - Reply

        @আকাশ মালিক,

        হাইলাইট করবার জন্য এমন একটা লাইন বেছে নিলেন ভায়া; আপনাকে নতুন চোখে দেখছি।

      • অরণ্য মে 27, 2012 at 10:38 অপরাহ্ন - Reply

        @আকাশ মালিক,

        একদিন টেলিভিশনে একজন খ্যাতিমান কবির মুখ থেকে শুনেছিলাম শব্দটা হবে আবৃতি। আচ্ছা কেউ কি বলবেন কোনটা শুদ্ধ?

        প্রথমত একজন কবি হচ্ছেন কবি, আবৃত্তিকার না। কবিতা এবং আবৃত্তি দুইটা আলাদা শিল্প মাধ্যম।
        প্রমিত উচ্চারণ হবে, আ-বৃত্‌তি।

    • কাজী রহমান মে 27, 2012 at 10:23 পূর্বাহ্ন - Reply

      @অরণ্য,

      আপনার মন্তব্যে ব্যাক্তিবিদ্বেষী ‘টোন’ দেখে বড্ড আহত হলাম; এমনটা আশা করিনি মোটেও

      • অরণ্য মে 27, 2012 at 10:26 অপরাহ্ন - Reply

        আপনার মন্তব্যে ব্যাক্তিবিদ্বেষী ‘টোন’ দেখে বড্ড আহত হলাম;

        (U) ভাই আপনি তো আহত, আপনার কথা শুনে আমি তো প্রায় নিহত হবার যোগার। আপনি ভুল বুঝবেন এটা আশা করি নাই। 🙁
        আমি জানিনা আপনি আবৃত্তি করেন কিনা বা কোন আবৃত্তি দলের ছিলেন কিনা। এই Tone আনতে গিয়ে কত বকা ঝকা খেতে হয় তার ধারণা মেলা ভার। আমার ধারণা সংশপ্তক (ভাই না আপা জানি না) আমাকে ঠিক বুঝবেন। ইংরেজিতে একটা প্রবাদ আছে, “when in Rome, do as the Romans do”. আবৃত্তির ক্ষেত্রেও তাই। পাণ্ডুলিপির মূল ভাব ও আবেগ ফুটিয়ে তুলাতেই আবৃত্তিকারকের সফলতা। এবং এখানে এই আবৃত্তিটাতে তা সুন্দর ভাবে প্রয়োগ করা হয়ছে বলেই আমি এমনটা মন্তব্য করেছি।
        আমি কিন্তু ভাল অর্থেই কথাটা বলেছিলাম। ভুল হলে ক্ষমা করবেন।

        • কাজী রহমান মে 28, 2012 at 12:11 পূর্বাহ্ন - Reply

          @অরণ্য,

          আপনার কথা শুনে আমি তো প্রায় নিহত হবার যোগার

          আরে আরে নিহত হবেন না তার’চে বরং কবিতা ছাড়ুন। ব্যাখ্যা দেখে সূখী হলাম। ভালো থাকুন।

  2. শামিম মিঠু মে 26, 2012 at 6:24 অপরাহ্ন - Reply

    যাক বাবা, অনেক দিন পর মুক্তমনায় একটা কবিতা পেলাম! তা আবার আবৃত্তি সহকারে প্রিয় কবির কবির কবিতা……যেন মেঘ নাই চাইতে জল! কবিদের লজ্জা বুঝি ভাঙলো। আর কবিতা প্রত্যাশায় চাতক পাখির মত চেয়ে আছি আরো কবিতার আশায়……

    হে কবি, মোর হৃদয়ের কথা বলে দাও।
    বলে দাও যুগল প্রেমের কাব্য কথা!
    বলে দাও গণ-মানুষের হাহাকার,
    কৃষক-শ্রমিক- দিনমজুরের ন্যায্য দাবী-দাওয়া
    বলে দাও মেহনতি মানুষের বাঁচার মৌলিক অধিকার!

    কবি ও আবৃত্তিকার দু’জনকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানায়।

    • কাজী রহমান মে 27, 2012 at 1:19 অপরাহ্ন - Reply

      @শামিম মিঠু,

      প্রানখোলা মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ (D)

  3. ছিন্ন পাতা মে 26, 2012 at 10:46 পূর্বাহ্ন - Reply

    এমন প্রয়াশ বেশ লাগে!

    আবৃত্তিকারের কন্ঠ অবশ্যই আবৃত্তির (অর্থ্যাৎ সুন্দর)

    তবে… আমায় পুলিশে দেবেন না (প্লিজ), গালি গালাজ আড়ালে করবেন তাই খুশি… শুনতে শুনতে কেমন অনুভূতির অভাব বোধ করছিলাম। মানে, যিনি পড়ছেন, তিনি যেন কবিতাটির ভেতরে না ঢুকেই শুধু শব্দগুলো এবং পুরো কবিতাটি (প্রায়) একই সুরে পাঠ করে গেছেন। আসলে কোন কিছু যখন ভেতর হতে feel করে, মেহসুস করে (ভালো করে বোঝানোর তাগিদে অন্যান্য ভাষার ব্যবহার) খুব করে অনুভব করে করা হয়, সেটা তখন অন্যদের ছুঁয়ে যেতে বাধ্য।

    আশা রাখছি, কাজী রহমানের হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া সব কবিতার মতন, সংশপ্তকের আবৃত্তিও ভেতর হতে নির্যাসিত হবে।

    • সংশপ্তক মে 26, 2012 at 12:00 অপরাহ্ন - Reply

      @ছিন্ন পাতা,

      শুনতে শুনতে কেমন অনুভূতির অভাব বোধ করছিলাম।

      সমস্যা যেহেতু ধরেছেন , এর পর্যবেক্ষন যোগ্য সমাধানও আপনাকে দিতে হবে এবং সেটা শুধুমাত্র তাত্ত্বিকভাবে দিলে চলবে না। এই কবিতাটা ‘ভেতর হতে নির্যাতিত অনুভূতিসহ’ আপনি নিজে আবৃত্তি করে এখানে সংযুক্ত করে দিন। যা পর্যবেক্ষন করে আমি এবং অন্যরা উপকৃত হব।

      • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 12:07 অপরাহ্ন - Reply

        @সংশপ্তক,

        হা হা হা, সময়টা মনে হয় মন্তব্যকালকে অতিক্রম করে ক্রম পাল্টে দিয়েছে

      • ছিন্ন পাতা মে 27, 2012 at 6:42 পূর্বাহ্ন - Reply

        @সংশপ্তক,

        হয়ত আমার কবিতা আবৃত্তির অনেক cd বেরিয়েছে, আমি ভুরি ভুরি পুরস্কার পেয়েছি কবিতা আবৃত্তি করে।
        অথবা চেষ্টা করেও কবিতা আবৃত্তি আমার দ্বারা কখনো হয়নি, আদৌ এ গুনটি কখনো আয়ত্তে আনতে পারব বলে মনে হয় না।

        এবার বলুন- ওই দু জায়গার বাসিন্দা না হয়েও কি আমি শুধুই শ্রোতা হিসেবে মন্তব্য করতে পারিনা? মানে, শিক্ষক না হওয়া অব্দি শিক্ষকের কোন ভুল ধরা যাবেনা, নিজে গাইতে না জানলে অন্য শিল্পীর গানের মান নিয়ে কথা বলা নিষেধ, চলচিত্র তৈরী না করে কোন চলচিত্রের সমালোচনা করা যাবেনা, কোন লেখকের বই নিয়ে আলোচনা করতে হলে আগে নিজের বই প্রকাশ করতে হবে…এবং আমি নিজে আবৃত্তি করে এখানে সংযুক্ত করে না দিলে আমার অপারগতায় বহিস্কৃত হতে বাধ্য?

        দাদা, প্রয়াশ তো বেশ। আমার না লাগুক, অনেকেরই তো ভাল লেগেছে। 🙂

        • ছিন্ন পাতা মে 27, 2012 at 6:52 পূর্বাহ্ন - Reply

          (প্রয়াশ বানান ভুল হয়েছে। দুঃখিত, – প্রয়াস)

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 12:04 অপরাহ্ন - Reply

      @ছিন্ন পাতা,

      সংশপ্তক কিন্তু বিজ্ঞানী মানুষ; অনুভূতির কথা বললেন তো; এক্ষুনি প্রমান চেয়ে বসবে কিন্তু :)) ওটা মাপলেন কি দিয়ে?

  4. কাজি মামুন মে 26, 2012 at 10:10 পূর্বাহ্ন - Reply

    মহাজাগতিক ভাষা ক্ষুধাকে বুঝতে শেখো
    নইলে আজন্ম ভাষাহীন থেকে যাবে।

    অসাধারণ লাগল! সবচেয়ে ভাল লাগল এই জায়গায়! আপনার কবিতা নিয়মিত পড়তে চাই।

  5. অভিজিৎ মে 26, 2012 at 7:55 পূর্বাহ্ন - Reply

    যুগল প্রয়াসের জন্য অভিনন্দন।

    আবৃত্তিটাকে বাটন সহযোগে এমবেডেড করে দিলাম।

    [wpaudio url=”http://blog.mukto-mona.com/wp-content/uploads/2012/05/nirlojjo-final-mp.mp3″ text=”আবৃত্তি” dl=”0″]

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 12:00 অপরাহ্ন - Reply

      @অভিজিৎ,

      একঘেয়েমি কাটাতে একটু অন্যরকম নিরীক্ষা।

      ফাইল আর শুভেচ্ছার জন্য অনেক ধন্যবাদ অভিজিৎ; এখন শুনতে দারুন লাগছে।

  6. স্বপন মাঝি মে 26, 2012 at 2:14 পূর্বাহ্ন - Reply

    পাশ-এ কেউ নেই/ আশ-হীন হয়ে/ শূন্যতা ক্ষণিক/ জীবন দানবীয়। নির্লজ্জও বটে। আশ-পাশের দোলাচলে ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় কবি-কে আমাদের জীবন(?)প্রবাহে পেয়ে, আনন্দিত। আমি একা কেন, বাপু? তুমিও একটুখানি…
    সংশপ্তকের কন্ঠে আবৃত্তি শুনে, থ’ । আবহ আর কন্ঠের {আত্মা (আমি) থেকে আগত, বলে} কাজ শ্রোতাকে ভাবের জলে, একটুখানি হলেও ভাসাবে।

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:47 পূর্বাহ্ন - Reply

      @স্বপন মাঝি,

      ব্র্যাকেটে আপনার বৈয়াকরনের আঁচে তো ভাই ঝলসায়া গেলাম; হাল্কা কইরা এট্টূ কন, (D) তর হইয়া এট্টু কন :))

  7. রাজেশ তালুকদার মে 25, 2012 at 7:46 অপরাহ্ন - Reply

    যাক বাঁচালেন, আলসেমিরও দেখি মারাত্মক উপকার আছে 😛 ।
    আপনার আলসেমি কবিতার সূত্র ধরেই সংশপ্তকের আরেকটি গুণ অন্তত প্রকাশ পেল। এতদিন জানতাম উনি প্রাজ্ঞ লেখক এখন আবিষ্কৃত হল উনি একজন আবৃতিকারো বটে।

    লেখা এবং সুরারোপের জন্য দু’জনকেই (F) (F)

    • সাইফুল ইসলাম মে 26, 2012 at 2:12 পূর্বাহ্ন - Reply

      @রাজেশ তালুকদার,

      আপনার আলসেমি কবিতার সূত্র ধরেই সংশপ্তকের আরেকটি গুণ অন্তত প্রকাশ পেল। এতদিন জানতাম উনি প্রাজ্ঞ লেখক এখন আবিষ্কৃত হল উনি একজন আবৃতিকারো বটে।

      এখানে আরেকটা পাবেন। 🙂

      • রাজেশ তালুকদার মে 26, 2012 at 5:47 পূর্বাহ্ন - Reply

        @সাইফুল ইসলাম,

        লিংকতো কাজ করছেনা। তবে অনুমান করলাম উনি সম্ভবত গান গেয়েছেন।

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:38 পূর্বাহ্ন - Reply

      @রাজেশ তালুকদার,

      কার যে কত গুন আর কে যে বেগুন ক্যাম্বে কইবেন……আপ্নি যে গানও শুনতে পাচ্ছেন……… কোথায় ডুব মারেন রে ভাই; লেখা দেন

  8. কেয়া রোজারিও মে 25, 2012 at 7:33 অপরাহ্ন - Reply

    সোনার হাতে সোনার কাঁকন -কে কার অলংকার?

    কবিতা আর আবৃত্তি দুটোই ভালো লাগলো।

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:32 পূর্বাহ্ন - Reply

      @কেয়া রোজারিও,

      ঝলমলে মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ (C)

  9. আফরোজা আলম মে 25, 2012 at 2:27 অপরাহ্ন - Reply

    ভালোলাগা জানিয়ে গেলাম।

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:25 পূর্বাহ্ন - Reply

      @আফরোজা আলম,

      আম্নি উঁকি দিয়েছেন দেখে ভালো লাগলো (F)

  10. কাজি মামুন মে 25, 2012 at 12:07 অপরাহ্ন - Reply

    প্রিয় বন্ধুর মত শূন্যতা
    কৃষ্ণগহ্বরীয় আকর্ষণের টান ধরে আমাতে;
    অদেখার মাতলামি; ভালো লাগে আমার।

    ভাল লেগেছে! প্রিয় বন্ধুর কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অবশেষে আমাদের সবাইকেই আত্মসমর্পন করতে হয় কঠিন জীবনপ্রবাহের কাছে, মিশে যেতে হয় নির্লজ্জভাবে, আঁকড়ে ধরতে হয় নগ্ননাতাকে!

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:24 পূর্বাহ্ন - Reply

      @কাজি মামুন,

      দারুণ মন্তব্যের জন্য (C)

  11. মাসুদ মে 25, 2012 at 11:59 পূর্বাহ্ন - Reply

    কবির সাহস দেখে পুলকিত হলাম কারন কবি শূন্যতায় রোমাঞ্চিত, কৌতূহলি । আমার শূন্যতাঘিরে কখনই কৌতূহল রোমাঞ্চ আর ভাল লাগা থাকে না থাকে কষ্ট আর হতাশা ।ধন্যবাদ কবি।

    • কাজী রহমান মে 26, 2012 at 11:23 পূর্বাহ্ন - Reply

      @মাসুদ,

      জানেন তো; দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো। শূন্যতেই বরং থাকি, ঋণাত্মক ভাবনা ধনাত্মক না হোক অন্তত শূন্য মন্দ নয়।

      যে কারনেই হোক
      পুলকিত যে হয়েছেন
      তাতেই ধন্য আমি
      শূন্যযাত্রা শুভ হোক (O)

  12. সাইফুল ইসলাম মে 25, 2012 at 10:50 পূর্বাহ্ন - Reply

    জোশ লাগল কবিতাটা। বিশেষ করেঃ

    যে কোন কারনেই হোক
    শূন্যতা যখন আমায় অধিকার করে;
    কৌতূহল রোমাঞ্চে ঝিম মেরে রই।

    • কাজী রহমান মে 25, 2012 at 11:23 পূর্বাহ্ন - Reply

      @সাইফুল ইসলাম,

      :)) মন্তব্য আর কিঞ্চিৎ আরো ঝিম মারার জন্য (D)

মন্তব্য করুন