গাঙপাড় কাশবন শাদাদের মাখামাখি; বিমূর্ত নাবোঝা অন্ধকার,
নিটোল পায়ের শ্যামা মেয়েকে, জ্যোৎস্নারা দেবেনাকো ধার;
শরতের শশী; হায় আবছা হয়েছে সেও, অভিমানে;
কারা যেন নুন ঢেলেছে ওই উজানে অবিরাম,
অরণ্যের কষ্ট শুনি জনান্তিকে, চিংড়ি ঘেরের হাওয়ায়।

বেশী খুব লাগেনা তো মোটে; বাউলের দেশে,
নদী পুকুরের মাছ, আচমকা মাঠেখোঁড়া আলু; কচু;
টেনে তোলা দুটো শাপলা শালুক; বিনে পয়সায়,
ওরা কারা; কারা ওরা, ওটুকুতেও কালোতেল ঢালে?
ছিনতায় মেঠোপথ পাশে, অবহেলা গজানো হেলেঞ্চা লতা?

ছোটক্ষেত, সেইযে ঢেউ বাতাস, প্রজাপতি ওড়া রঙিন,
সর্ষেহলুদ, লাল ভাত, কবিগান, লালন, যাত্রা, পালা,
মোটা ঠোঁট আর বুনো গন্ধঘাঁটা তৃপ্তি ঘুম,
ওরা নাকি সব কেড়ে নেবে, ভিনদেশী রাক্ষস,
তুলে নাও কাঁটাতার, বেড়া, ওমানুষ, বেশীতো চাইনি।

[18 বার পঠিত]