শুরু করিতে আমার নাম লইবা
নতুবা আমার রোষানলে পতিত হইবা।

তোমাদের তরে হারাম করা হয়েছে
শুকরের গোসত, রক্ত ও মৃত।
এবং যেসব পশু আমার নাম ছাড়া উৎসর্গীকৃত।
জীব হত্যার কালে আমার নাম নেবে।
তাতেই হত্যা হালাল হয়ে যাবে।
আমি হত্যা দেখে হই আনন্দিত।
হত্যাকালে আমার নাম না নিয়ে
করোনা আমায় সেই পরমানন্দ হতে বঞ্চিত।

যারা করবে আল্লা ও রাসুলের বিরোধীতা
তাদের শূলীতে চড়াবে, করবে হত্যা।
তাদের হাত পা করবে কর্তন
দেশ হতে দেবে নির্বাসন।

হে মোমিন নর,
তোমরা ইহুদী ও খ্রিস্টান নারী বিবাহ করতে পার।
হে মোমিন নারী,
তোমরা ত নারী। তাই তাহা নাহি পার।
ইসলামে প্রেম বৈধ নয়।
তাই চুপিচুপি প্রেম করা ছাড়।

আমার আইন মেনে নাও।
চোর ও চুরনীর হাত কেটে ফেলে দাও।
চুরি বন্ধের ইহাই উৎকৃষ্ট পন্থা।
নিশ্চয়ই আল্লা সবজান্তা।
আল্লা সব বস্তুর উপরে ক্ষমতাবান।
তার অবস্থানেই আছে সেই প্রমাণ।
সবকিছুর উপরে সপ্তম আসমানে
তার অদৃশ্য বাসস্থান।

হে ঈসা, পুত্র আমার!
তুমি মৃত্তিকা দিয়া পাখি বানাইয়া
তাতে দিতে ফুৎকার।
সাথে সাথে মাটির পাখি পাখা ঝাপটাইয়া
শূন্যে উড়িত চমৎকার।
তোমার কেরামতি ফুৎকারে
জন্মান্ধ দেখিত, মৃত হইত জীবিত।
কুষ্ঠরোগী নিরাময় হইত।
তোমার নূরানী চিকিৎসা পদ্ধতি
যদি মানুষকে শিখাইতে
তাহাদের কতোইনা উপকার হইত!

আমি অনেক জ্ঞানী।
আমি সব জানি।
গাছের পাতারও নেই ক্ষমতা
শুনবেনা আমার কথা।
জগতে এমন কোন বস্তু নাই
যাহা এই কিতাবে নাই।
কিন্তু ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, ডাইনোসর, কম্পিউটার
এই কিতাবে আছে কোথায়
দেখিয়াছে কি কেউ?

[277 বার পঠিত]