আমি দয়াময়।
আমার নামে শুরু করবেনা; তা কি হয়?

বিবাহ কর দুই-তিন-চার।
বিবিগণে আশঙ্কা দেখলে অবাধ্যতার ,
উপদেশ দাও, ত্যাগ কর শয্যা।
তবেই ওরা বুঝবে মজা।
তারপরে আল্লাহর নামে কর প্রহার।
ইহা আল্লাহর সুবিচার।
আল্লাহর কাছে পুরুষ, নারী অপেক্ষা শ্রেষ্ঠতর।
পুরুষগণ, তোমরা গৃহবন্দী নারীর তরে ব্যয় কর।
তাই উপার্জন ও ব্যায়ক্ষম বীর পুরুষদের
আছে পবিত্র-অধিকার
দুর্বল নারীদের প্রহার করার।
আল্লাহর বিচার মানবেনা সাধ্য আছে কার?

কন্যাসন্তান পুত্রসন্তানের সমতুল্য নয় কভু।
তাদের সমদৃষ্টিতে দেখবে তবুও!
দিয়ে দাও কন্যাদেরকে
পুত্রের আধেক পতিত-সম্পদ।
চুকে যাক আপদ।

নারী যদি করে ব্যভিচার।
তার তরে চারজন ঈমানদার পুরুষসাক্ষী কর যোগাড়।
ব্যভিচারিণীকে অবরুদ্ধ করে রাখ ততদিন
তার দেহে প্রাণ থাকে যতদিন।
মৃত্যুদণ্ড দিয়ে করবে প্রেমের বিচার।

করায়ত্ব দাসীরা তোমাদের অধিকারভুক্ত।
হাতের কাছে দাসী থাকিতে
কোন দুঃখে থাকিবে যৌন-অভুক্ত?
নির্দ্বিধায় অগণিত দাসী করিবে সম্ভোগ।
আল্লাহ মোমিনদের সহায়।
তাঁর কুদরতে তোমাদের হইবেনা কোন যৌনরোগ।

অবিশ্বাসীদের চামড়া
দোযখের আগুনে পুড়ে
ভস্মীভূত করবোই আমরা।
আবার লাগাবো নতুন চামড়া।
এভাবে অনন্তকাল চলতে থাকবে
পুনঃ পুনঃ প্লাস্টিকসার্জারির পরম্পরা।
বড় বড় নাস্তিক সার্জনে দোযখ করিবো ভরা।
সার্জারির কাজ করবে ওরা।
আমার শাস্তি ও চিকিৎসার নমুনা দেখে নাও তোমরা।

আল্লাহর জন্য জেহাদ কর।
হত্যা কর, লুণ্ঠন কর, ধর্ষণ কর।
যারা জেহাদ-বিমুখ,
আল্লাহপাক তাদের দিক হতে
ঘৃণায় ফিরিয়ে নেন তাঁর নিরাকার মুখ।

তিনি যাকে ইচ্ছা পথ দেখান।
যার ইচ্ছা ক’রে দেন দিকভ্রম।
পান্থ পথিকেরা যদি
আল্লাহর ইচ্ছায় পথ ভুলে যায়,
ওরা যেন আল্লাহর উদ্দেশ্যে কাকলী দিয়ে যায়।

[29 বার পঠিত]