ইউক্লিড ভালোবাসা

অনুভব প্রস্রবণ আবিরাম;
অর্থহীন ঢেউভাসা সঙ্গীত;
বানজলের মূখ থোবড়নো;
হিসেব মেলাতেই পারিনা।

বোল কিংবা স্বরলিপি;
বেতাল গানের অন্তরা;
সঙ্গীত, অসম্পূর্ণ সঞ্চারী;
আমি লিখতেও পারিনা।

চোখ মেললে অন্ধকার,
ঘোলাটে আলো বুজলেও,
দেখলেও ইচ্ছা অস্বীকার,
আমি বুঝতেও পারিনা।

স্থবির অনন্ত সময়,
চেনামূখ হারায়ে রয়,
সমান্তরাল কিভাবে মেলে,
ইউক্লিড, ভালবাসতেও পারিনা।

About the Author:

মুক্তমনা ব্লগার। আদ্দি ঢাকায় বেড়ে ওঠা। পরবাস স্বার্থপরতায় অপরাধী তাই শেকড়ের কাছাকাছি থাকার প্রাণান্ত চেষ্টা।

মন্তব্যসমূহ

  1. অরণ্য নভেম্বর 11, 2011 at 10:28 অপরাহ্ন - Reply

    হিসেব মেলানা
    পাড়ি না কিছুতেই,
    যোগ-বিয়োগ গুন-ভাগ
    ভুল হয় সহসাই,
    নিম্ন মধ্য উচ্চতরেও
    ভুল পিছু ছাড়েনাই!

    গণিত, কেন আজো তুমি অচেনা?

    পাটিগণিতের জটিল সরল
    মিলেছিল তবু কিছু,
    বীজগণিত আর জামিতিতেও
    মার্কস ছিলনা নিচু,
    তবুও জীবন খাতায়
    ভুল ছাড়লোনা পিছু!

    হিসেব, তুমি আজো কি মিলবেনা?

    • কাজী রহমান নভেম্বর 12, 2011 at 7:26 পূর্বাহ্ন - Reply

      @অরণ্য,
      বে-হিসাব প্রয়োজন আছে কিন্তু। ওটাকে বাদ দিলে, হিসেবের তূলনার জন্য কেউ থাকলো না তো। তাই হিসাব অস্তিত্বহীন, বেহিসাব যদি না থাকে। তূলনার অস্তিত্বেই বাঁচে ঘৃণা এবং ভালোবাসা।
      ……

      ভালবাসা লভ্য জানা,
      তুলনার অস্তিত্বেই বাঁচে ঘৃণা;
      সত্যের সন্নিহিত বিজ্ঞান।
      ……………

      পুরোটা দেখতে চাইলেঃ শান্তি

      • অরণ্য নভেম্বর 12, 2011 at 2:59 অপরাহ্ন - Reply

        @কাজী রহমান,

        নূতন আপেক্ষিক তত্ত্ব করিয়া শ্রবণ।
        জুরাইল আজি নিজ দেহ মন।।
        অন্ধকার আছে তাই আলো দৃশ্যমান।
        ঘৃণার অস্তিত্বেই ভালোবাসা হয় প্রমাণ।।

        • কাজী রহমান নভেম্বর 13, 2011 at 11:33 পূর্বাহ্ন - Reply

          @অরণ্য,

          অন্ধকার আছে তাই আলো দৃশ্যমান
          ঘৃণার অস্তিত্বেই ভালোবাসা হয় প্রমাণ।

          আপনি লেখা পোস্ট করা শুরু করে দেন। গদ্য পদ্য যা খুশী, ঠিক আছে?

          • অরণ্য নভেম্বর 13, 2011 at 8:20 অপরাহ্ন - Reply

            @কাজী রহমান,

            আপনি লেখা পোস্ট করা শুরু করে দেন। গদ্য পদ্য যা খুশী, ঠিক আছে?

            :-$
            মন্তব্য করা সহজ হতে পারে। কিন্তু পোস্ট? এ’যে সাক্ষাৎ গোস্ট!
            পোস্ট করা মানে তো “আমি বুঝি এবং আপনাদেরও তা বুঝাতে চাই” টাইপ। আমি তো নিজেই অধম!

            • কাজী রহমান নভেম্বর 14, 2011 at 10:57 পূর্বাহ্ন - Reply

              @অরণ্য,

              এখানে উত্তম অধমের কিছুই নেই। আমরা সবাই একসাথে আলোর মিছিলে হাঁটতে চাই। কেউ হয়ত থাকবে সামনের দিকে, কেউ পেছনে, কেউ বা মধ্যিখানে; কিন্তু সবাই থাকবো আলোর পথে, একসাথে।

              যখনই লেখা দিতে চান দিয়ে দেবেন। ওটা যেন আলোতেই থাকে আমরা সবাই মিলে তা নিশ্চিত করব, ঠিক আছে?

              ভালো থাকুন।

  2. ভবঘুরে নভেম্বর 6, 2011 at 1:04 অপরাহ্ন - Reply

    অনুভব প্রস্রবণ আবিরাম

    এটার মানে কি ভাই? অনেক চিন্তা করেও বুঝতে পারলাম না। আমি আবার বুঝি কম। আর কবিতা তো একেবারেই বুঝতে পারি না।

    • কাজী রহমান নভেম্বর 6, 2011 at 2:25 অপরাহ্ন - Reply

      @ভবঘুরে,

      জীবনভর এই যে এত অনুভব অনুভূতি, অনেকটাই যে ফেলে দেবার নয়। অনেকগুলোই যে মনে দাগ কেটে রয়ে থেকে যায়। নানা ভাবনা অনুভব স্রোত হয়ে বয়ে যায় অবিরাম। অনেক সমান্তরাল অনুভব অনুভূতির না ছোঁয়ার তত্ত্বকথা এড়িয়ে যা ছোঁয়া যায় তারই ওকালতি এখানে।

      আপনাদেরকে আর কষ্ট দিতে ইচ্ছে হচ্ছে না। ভাবছি কবি মোড উল্টে আবার নবী মোডে ডিগবাজী খাব কি না। ভন্ডামীই তো নবীর বিশেষত্ব। :-X

  3. ছিন্ন পাতা নভেম্বর 6, 2011 at 10:15 পূর্বাহ্ন - Reply

    হাই কোয়ালিটি কবিতা। তাই নো মন্তব্য।

    • কাজী রহমান নভেম্বর 6, 2011 at 2:01 অপরাহ্ন - Reply

      @ছিন্ন পাতা,
      এইটা কোন কথা হোল…………………………… :-Y

  4. আবুল কাশেম নভেম্বর 6, 2011 at 9:22 পূর্বাহ্ন - Reply

    দুঃখিত–

    ওটা হবে সূরা আল-মুখতাসার।

    হে নবী, আল্লাহর অহী কি শেষ হয়ে গেল?

    • স্বপন মাঝি নভেম্বর 6, 2011 at 11:03 পূর্বাহ্ন - Reply

      @আবুল কাশেম,
      হে নবী, আল্লাহর অহী কি শেষ হয়ে গেল?

      তাই হোক। আমরা কবিকে চাই, নবীকে নয়। হাতুড়ি চালিয়েও যখন বিশ্বাসে ধ্বস নামানো যাচ্ছে না, তখন কাব্য করে কি এগুনো যাবে?
      ওসব কিছু করার জন্য শুধু প্রবন্ধ নয়, পথে নেমে আসার মত মানুষও দরকার। পাড়ায় মহল্লায় পাঠাগার-সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলা দরকার।
      দরকার আরো অনেককিছু। তার মানে এ-ও নয় যে, অন্য অনেককিছু হচ্ছে না বলে, লেখালেখি থামিয়ে দিতে হবে।

      • আবুল কাশেম নভেম্বর 7, 2011 at 5:13 পূর্বাহ্ন - Reply

        @স্বপন মাঝি,

        আমরা কবিকে চাই, নবীকে নয়।

        ভাল কথা।

        নবী থেকে কবি–মারহাবা, মারহাব

    • কাজী রহমান নভেম্বর 6, 2011 at 2:00 অপরাহ্ন - Reply

      @আবুল কাশেম,

      হে নবী, আল্লাহর অহী কি শেষ হয়ে গেল?

      তাই কি হয় নাকি, নবী তো জীবনভর অহী পেতে থাকবে। ধান্ধাবাজ নবী এ মুহূর্তে কবি মোডে, জ্যামিতি কষে ভালোবাসার ভূমিদস্যু। অহী অচিরেই নাযিল হবে। হ্যামদুলিল্লাহ।

      • আবুল কাশেম নভেম্বর 7, 2011 at 5:16 পূর্বাহ্ন - Reply

        @কাজী রহমান,

        নবী তো জীবনভর অহী পেতে থাকবে। ধান্ধাবাজ নবী এ মুহূর্তে কবি মোডে

        হাঁ, ঠিক আছে। নবীজিও মূডে থাকতেন। ‘

        কখনও নবী
        কখনও কবি
        কখন জিহাদি
        কখন যৌন উন্মাদনায়
        কখনও হত্যাকারি
        কখনও ডাকাতি
        কখন নারী অপহরণকারী
        কখন শিশু যৌনতা
        …এই আর কি।

        • কাজী রহমান নভেম্বর 7, 2011 at 6:29 পূর্বাহ্ন - Reply

          @আবুল কাশেম,

          :lotpot:

          সেই তো, ভোগ্লামী ছাড়া কে কবে নবী হতে পেরেছে। ধর্ম ব্যাবসায়ীরা যদি বিশিষ্ট চালবাজ ঠগ চালু বিভ্রান্তকারী জোচ্চোর না হোত তাহলে কি আর পাব্লিক এগুলো খেতো নাকি? ধরে ফেলতো না?

          আপনি তো দেখছি নবীকে মুহূর্তের জন্যও ভূলে থাকতে পারছেন না। যেখানেই পান ওই বদ জিনিয়াসরে ল্যাং মাইরাই চলছেন। পারেনও বটে :))

          • আবুল কাশেম নভেম্বর 7, 2011 at 12:57 অপরাহ্ন - Reply

            @কাজী রহমান,

            আপনি তো দেখছি নবীকে মুহূর্তের জন্যও ভূলে থাকতে পারছেন না।

            কেমন করে ভুলি স্রষ্টার স্রেষ্ঠ সৃষ্টিকে।

  5. আবুল কাশেম নভেম্বর 6, 2011 at 8:47 পূর্বাহ্ন - Reply

    হে বাঙলার নবী;

    আজকাল কি আপনি ইউক্লিড থেকে অহী পাচ্ছেন? নাকি ইউক্লিডের ‘কোরান’ পড়ছেন? মানে ইউক্লিডের ‘জ্যামিতি’ পড়ছেন?

    আপনাকে কি মৃগী রোগে ধরেছে? নবীজির মত হাবুল বাবুল বলছেন আর হাসছেন?

    কোথায় গেল আপনার কিতাব—মানে সূরা মুখ…

    নিয়ে আসুন সেই সব নতুন নতুন অহী

  6. স্বপন মাঝি নভেম্বর 5, 2011 at 11:08 পূর্বাহ্ন - Reply

    আমি খুব বৈতালিক বলে, এটি আমার ভাল লেগেছে। তবে
    ইউক্লিড, ভালবাসতেও পারিনা।
    বুঝিনি।

    • কাজী রহমান নভেম্বর 6, 2011 at 7:32 পূর্বাহ্ন - Reply

      @স্বপন মাঝি,

      ইউক্লিড সমান্তরাল জ্যামিতিক ভালবাসার দাগ কেটে রেখেছে বহুকাল ধরে, অনেকেই বলে এটাই তো খাঁটি। এটাই তো অনন্ত। এই সমতল ভালোবাসার বাইরের কথা কিছু না বলে সবাইকে পাগল করেছে সে।

      অথচ এখানে এখন ভালোবাসার সমান্তরালও মিশে যায় অন্য তলে।

      আমি খুব বৈতালিক বলে

      তালের মাত্রায় বেতাল হলেই তো ভালো, ইউক্লিডকে অতিক্রম করে, অন্য মাত্রায়, সমতল ছেড়েছুড়ে অন্য কোথাও সমান্তরালের মিশে যাওয়া দেখবেন। ভালোবাসা যেখনে ছোঁয়া যায় (D)

  7. গীতা দাস নভেম্বর 4, 2011 at 2:29 অপরাহ্ন - Reply

    ভাল লেগেছে কবিতাটি। কবিতা লেখা অব্যাহত থাকুক।

  8. এ.প্রামানিক নভেম্বর 4, 2011 at 1:52 অপরাহ্ন - Reply

    খুব সুন্দর। কিন্তু জ্যামিতিক ভালোবাসা যেহেতু আছে তাই ইউক্লিড কিন্তু আপনার সাথে বির্তকে জড়াতে পারে!!!

    • কাজী রহমান নভেম্বর 6, 2011 at 7:19 পূর্বাহ্ন - Reply

      @এ.প্রামানিক,
      ইউক্লিডের এলিমেন্ট হাজার হাজার বছরের বিতর্কের আর একটি বেস্টসেলার, ওর ভূত আর যেই হোক কবিদের সাথে জড়াবে না বলে বুঝি। কবিদের তো আর নতুন করে পাগল হবার দরকার নেই, তাই না? :))

মন্তব্য করুন