ঘাসফুলের জীবনটা

By |2011-05-22T02:28:38+00:00মে 22, 2011|Categories: কবিতা|27 Comments

আমি এখন অনুভূতিহীন;
আনন্দ,
বেদনা,
অস্থিরতা,
কিংবা, নাম না জানা হাজারটা অনুভূতি;
কোনটাই আমার মধ্যে বিদ্যমান নেই।
দু’দিনের এই জীবন নিয়ে ,
খেলে যাচ্ছি একের পর এক খেলা।
এ নেহায়েৎ মন্দ না।
ঘড়িতে যার টিকটিক করে বাজে মৃত্যুঘন্টা,
তার আবার হৃদয়ে অনুভূতির যন্ত্রণা!

সেই কবে ভুলেছি আমি ভালোবাসতে ভালোবাসা;
সেই কবে ভুলেছি হারাবার ভীত ডানা।
চাই না একাকী, তোমার চোখে শুষ্ক কান্না,
অমানবিক সম্পর্কের সুরে গল্পে বাঁধা,
নিদারুণ অপরাধী পলায়নপর ভালোবাসা।

তোমার মাঝে ভুলে থাকার নেশা;
সেই নদীতে নৌকাডুবির ঘনঘটা।
অমরত্বের অমৃতে মৌমাছি গুঞ্জনে,
থেকো তুমি সৃষ্টিতে সযতনে।
বড় বেশী বেখেয়ালে,
ডুবে থাকা অনুভবে,
সৃত্মিটুকু সাথে নিয়ে,
চলে যাবে খেয়ালী পাগলা হাওয়া।

I am a Biomedical Engineer and a doctoral student of Neuroscience. I like to promote Science and Humanist movement through my writing. I stand with science, secularism and freedom of speech. I believe, someday Bangladesh will choose the path of logical thinking as a social norm along with the rest of the world.

মন্তব্যসমূহ

  1. aunik মে 24, 2011 at 12:01 অপরাহ্ন - Reply

    এতক্ষন ধর্ম নিয়া আউলা প্যাচাল পড়ার পর আপনার কবিতা বড়ই শান্তির যোগান দিলো। ধন্যবাদ আপনাকে।

  2. বাদল চৌধুরী মে 23, 2011 at 10:23 অপরাহ্ন - Reply

    ঘড়িতে যার টিকটিক করে বাজে মৃত্যুঘন্টা,
    তার আবার হৃদয়ে অনুভূতির যন্ত্রণা!

    আসলে তাই। এইটুকু মেনে নিতে পারলে তো জীবনটাকে সুখে আর শান্তিতে এক নিমিষে পার করে দেয়া যায় দেখছি। কী জানি ভুল ভাবলাম কিনা।

    • নীল রোদ্দুর মে 24, 2011 at 12:00 অপরাহ্ন - Reply

      @বাদল চৌধুরী, যা করার শেষ ঘন্টাটা বাজার আগেই করতে হবে যে। প্রাণ ভরে বাঁচা যাকে বলে। 🙂

  3. বুনো বিড়াল মে 23, 2011 at 1:25 অপরাহ্ন - Reply

    চলে যাবে খেয়ালী পাগলা হাওয়া।
    হাওয়া আসেই তো চলে যাবার জন্য।হয়ত কিছু দিয়ে যায় কিছু নিয়ে যায়।হয়ত চাওয়া পাওয়ার হিসেব ছাড়াই চলে আসা যাওয়া।
    কবিতাটি ভালো লাগল।বিশেষ করে প্রথম ও শেষ প্যারাটি।

  4. বুনো বিড়াল মে 23, 2011 at 4:02 পূর্বাহ্ন - Reply

    খুব বেশি ভালো লাগল।

    • নীল রোদ্দুর মে 23, 2011 at 12:44 অপরাহ্ন - Reply

      @বুনো বিড়াল, বাব্বাহ! এইখানে দেখি ওয়াইল্ড ক্যাটও আছে! ধন্যবাদ ওয়াইল্ড ক্যাট। 🙂

  5. লাইজু নাহার মে 23, 2011 at 2:22 পূর্বাহ্ন - Reply

    ভেসে ভেসে উড়ে বেড়ানোর মজাই আলাদা। খেয়ালী পাগলা হাওয়ার মত বাঁধনহারা।

    চমৎকার!
    কবিতা খুব ভাল লেগেছে!

    • নীল রোদ্দুর মে 23, 2011 at 11:36 পূর্বাহ্ন - Reply

      @লাইজু নাহার, এই ছোট ছোট আনন্দগুলো আমি ধরতে পারি বলেই আমার কাছে জীবনটা সুন্দর লাগে। এইটাই খুব সম্ভবত আমার একান্ত সুন্দর বৈশিষ্ট্য, যেখানে আমি শিশুর মত করে ভাবতে পারি, আচরণ করতে পারি। চার পাঁচ বছরের বাচ্চার মত প্রজাপতির পিছনে ছুঁটে বেড়ানো। এই নির্মল আনন্দটা আমার কাছ থেকে কেউ কেড়ে নেবে, কার সাধ্য তা! :rotfl:

  6. মোজাফফর হোসেন মে 23, 2011 at 1:57 পূর্বাহ্ন - Reply

    প্রথম অংশটা আমার খুব ভালো লাগলো।

    • নীল রোদ্দুর মে 23, 2011 at 11:30 পূর্বাহ্ন - Reply

      @মোজাফফর হোসেন, ধন্যবাদ আপনাকে। 🙂

      প্রথম অংশটাই আসলে আমার মূল বক্তব্য।

  7. নীল মে 23, 2011 at 12:28 পূর্বাহ্ন - Reply

    এইটা কি হইল?

    • নীল রোদ্দুর মে 23, 2011 at 11:07 পূর্বাহ্ন - Reply

      @নীল, ইয়ে মানে, আমিও না ঠিক বুঝলাম না, আসলে এইটা কি হইল! 😕

      একটু গদ্যে পদ্যে খেলা আরকি। (*)

  8. কাজী রহমান মে 22, 2011 at 9:58 অপরাহ্ন - Reply

    জীবনটা বড় বেশ। অনেক নাকি রঙ। দেখে শেষ করা নাকি যায় না। ভেসে থাকা গেলে উড়ে বেড়ানো মন্দ কি?

    ভালো লেগেছে কবিতাটা।

    • নীল রোদ্দুর মে 22, 2011 at 10:54 অপরাহ্ন - Reply

      @কাজী রহমানঃ ভেসে ভেসে উড়ে বেড়ানোর মজাই আলাদা। খেয়ালী পাগলা হাওয়ার মত বাঁধনহারা। 🙂

  9. বিপ্লব পাল মে 22, 2011 at 8:34 পূর্বাহ্ন - Reply

    এই মেরেছে
    তুমিও ঘাসফুল?
    গোটা পশ্চিম বঙ্গে এখন চারিদিকে ঘাসফুল
    ঘাসফুলের বাজারদর দেখছি বেড়েই চলেছে

    • নীল রোদ্দুর মে 22, 2011 at 10:52 অপরাহ্ন - Reply

      @বিপ্লব পাল, ঘাসফুলের বাজার দর আমার কাছে চিরকালই বেশী। ছেলেবেলা থেকে এই জিনিসটাকেই আমার সবচেয়ে বেশী আপন আপন লাগে। ঘাসফুল ভালোবাসি, তবে ইহা পশ্চিমবঙ্গের ঘাসফুল নয় দাদা, নিতান্তই পায়ের কাছে পড়ে থাকা সুন্দরের নাম। 🙂

      • কাজী রহমান মে 23, 2011 at 12:50 পূর্বাহ্ন - Reply

        @নীল রোদ্দুর,

        নিতান্তই পায়ের কাছে পড়ে থাকা সুন্দরের নাম।

        😀 😀 😀 উত্তরটা ভারী কাব্যভারী হয়েছে

      • স্বপন মাঝি মে 23, 2011 at 12:17 অপরাহ্ন - Reply

        @নীল রোদ্দুর,
        কবিতাটা পাঠ করে বলতে চেয়েও বলিনি। আর পারলাম না।

        ঘাসের ভেতর থেকে,
        ওঠে এসেছিলাম আমি।
        তুমি আতঁকে ওঠে দৌড়ে পালালে,
        পতঙ্গ নয়, আমিই ছিলাম সেই ঘাসফুল।
        ০১-০৮-০৮

        • নীল রোদ্দুর মে 23, 2011 at 12:47 অপরাহ্ন - Reply

          @স্বপন মাঝি,

          পতঙ্গ নয়, আমিই ছিলাম সেই ঘাসফুল।

          ভাষা নেই আমার! (F)

          এইটুকুই কি পুরো কবিতাটা? যদি এইটুকু ছোট্টও হয় পুরোটা, তবু আমাকে বলতেই হবে, স্বয়ংসম্পূর্ণ!

          • স্বপন মাঝি মে 24, 2011 at 10:43 পূর্বাহ্ন - Reply

            @নীল রোদ্দুর,
            অল্পকথন নামে চার লাইনের অনেকগুলো ভাবনা আছে, সেগুলো নিয়ে আমার নিজের দ্বিধা কাটেনি।
            আপনাদের বিনয় হয়তো আমাকে কিছুটা উস্কে দেবে।
            আসলে প্রশংসা শুনে খুব একটা অভ্যস্ত নই।
            খুব খুব করে ধন্যবাদ দিচ্ছি, মনে হয় মানুষকে অনুপ্রাণিত করার মহত্বটুকু আপনার আছে।

            • নীল রোদ্দুর মে 24, 2011 at 11:59 পূর্বাহ্ন - Reply

              @স্বপন মাঝি, আমি আপনার অল্পকথন গুলো পড়তে চাই। এটা একটা শিল্প বটে, অল্পকথায় নিজেকে বা নিজের ভাবনা গুলো প্রকাশ করা। সাম্প্রতিক সময়ে অনুগল্পের প্রতি আমার আকর্ষণও বেড়েছে সেজন্যই। 🙂

              • স্বপন মাঝি মে 26, 2011 at 8:23 অপরাহ্ন - Reply

                @নীল রোদ্দুর,
                ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অল্পকথনগুলো সংগ্রহ করে মুক্তমনায় পোস্ট করে দেব ভাবছি।
                একজনের আগ্রহ, আরেজনকে উদ্দীপ্ত করে, খুব ভাল লাগলো।

  10. শ্রাবণ আকাশ মে 22, 2011 at 7:27 পূর্বাহ্ন - Reply

    “খেলা খেলা দিয়ে শুরু
    খেলতে খেলতে শেষ…”

    গানটা মনে পড়ে গেল!

    • নীল রোদ্দুর মে 22, 2011 at 10:48 অপরাহ্ন - Reply

      @শ্রাবণ আকাশঃ এহহে, আমি তো মনে হয় গানটা শুনিনি। 🙁

  11. স্বপন মাঝি মে 22, 2011 at 6:41 পূর্বাহ্ন - Reply

    খুব ভাল লেগেছে।

মন্তব্য করুন