আজকে মুক্তমনার নিজস্ব ই-বার্তার মাধ্যমে একটা ই-বার্তা পেয়েছি মুক্তমনার একজন সদস্যের কাছ থেকে। ব্যক্তিগত ই-বার্তা জনসম্মুখে প্রকাশ করতে নেই। তবে, এই নিয়মটা মনে হয় দ্বিপাক্ষিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। অযাচিতভাবে একতরফা হুমকি প্রদায়ক কোনো ই-বার্তা প্রকাশে বাধা আছে বলে মনে হয় না। আর তাছাড়া আমার কাছে মনে হয়েছে যে, মুক্তমনার সদস্যদের সকলের স্বার্থেই এই ইবার্তাটি দেখা প্রয়োজন।

মুক্তমনায় আমরা বহু বিষয় নিয়েই তর্ক-বিতর্ক করি। সেই সব বিতর্ক যে সব সময় হাস্যমুখে সমাপ্ত হয় তা নয়। কখনো কখনো তা তিক্ততায়ও রূপ নেয়। কিন্তু এর পরেও আমরা যেটা থেকে বিচ্যুত হই না, সেটা হচ্ছে সুশোভন আচরণ করা এবং পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধটা ধরে রাখা। আজকে একটা লেখায় আমি যেভাবে বিপ্লবের পক্ষ নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছি সেটা দেখলে যে কেউ ভাবতে পারে যে, বিপ্লব আমার জানের দোস্ত। যে কোনো কিছুতেই বিপ্লবকে আমি ডিফেন্ড করি। কিন্তু মুক্তমনায় যারা দীর্ঘদিন ধরে আছেন, তাঁরা খুব ভাল করেই জানেন যে, মুক্তমনায় সবচেয়ে বেশি বিতর্ক করেছি আমি বিপ্লবের সাথে। আজকে বিপ্লবের বদলে মুক্তমনার অন্য যে কোনো সদস্যের উপরে যদি আক্রমণ হত, আমি একই তীব্রতা নিয়ে সেই আক্রমণ প্রতিরোধে ঝাঁপিয়ে পড়তাম। নিজেরা ঝগড়াঝাটি করি, তর্কাতর্কি করি, সেটা নিজেদেরকে একটা পরিবারের সদস্য বলে মনে করি বলেই করি। সেই ঝগড়াঝাটির মধ্যে অন্যকে অপমান করার বা অন্যের সম্মান হানি করার, বা ধুলোয় মিশিয়ে দেবার মত মনোভাব থাকে না। এর গভীরে ঠিকই পরস্পরের প্রতি ভালবাসার টানটা রয়ে যায়। কিন্তু, অন্য কেউ যখন মুক্তমনাকে এ’পাড়া বলে সম্বোধন করে এর কোনো সদস্যের উপরে ঘৃণ্য আক্রমণ চালাবে পরিবারের সদস্য হিসাবে তখন তাঁকে সম্পূর্ণ সহযোগিতা দেওয়া, আক্রমণ থেকে প্রতিহত করা আমাদের সকলেরই কর্তব্য। আজকে মুক্তমনার সদস্যরা সেই দায়িত্ব এবং কর্তব্যটা অত্যন্ত সুচারুভাবেই পালন করেছেন।

মুক্তমনা পরিবারের একজন সদস্য হিসাবেই আমি গর্বিত। আরো গর্বিত এই ভেবে যে, এই পরিবারের দ্বার-রক্ষকের দায়িত্ব আমাকে পালন করতে হয়। সেই দ্বার রক্ষা করতে গিয়ে যদি কারো হুমকি ধামকি এবং অসভ্য আচরণের শিকার হই, তবে সেটা সকলকে জানানোও আমি কর্তব্য বলে মনে করি। কারণ, সবাইকে নিয়েই আমাদের এই ছোট্ট কিন্তু শক্তিশালী একটা পরিবার।

এই ই-বার্তাটি আমি পেয়েছি আমাদের মুক্তমনার নতুন সদস্য জনাব মাসুদ রানার কাছে থেকে। এর আগে আমি কখনোই তাঁর নাম শুনিনি। ফলে, স্বাভাবিকভাবেই তাঁর সাথে কোনো ই-বার্তা যোগাযোগের সম্পর্ক আমার ছিল না কখনোই। ই-বার্তাটি আপনারা পড়বেন এবং আপনাদের সুচিন্তিত মতামত দেবেন বলেই আশা করছি আমি।

@ফরিদ আহমেদ,আপনার সাহস দেখে
তারিফ করতে ইচ্ছা করছে। একটি
ব্লগের মালিক পক্ষ হয়ে আপনি
ভিন্নমতের মানুষকে সুস্থ
মস্তিষ্কে লিখুন বলে পরামর্শ
দেবার স্পর্ধা পান। আপনি কে?

ছোট্ট একটি অথোরিটী পেয়ে ধরাকে
সরা জ্ঞান করছেন, ফরিদ? কী
ক্ষমতা আছে আপনার? লেখা বন্ধ
করে দিবেন? বাদশাহ হলে তো মেরেই
ফেলতেন, তাই না?

মুক্তমনাতে যে আপনার মতো বাজে
কথা বলার লোক আছে তা জানা ছিলো
না।

‘পাড়া’র সর্দার হয়েছেন? অন্য
পাড়ায় যেতে বলেছেন? ক্ষমতা
দেখাতে গেলে কোনো জ্ঞান
বুদ্ধির প্রয়োজন হয় না।

যদি বুদ্ধিবৃত্তিক লড়াই করতে
চান, বুদ্ধিতে খেলুন, ব্লগের
পেশী দেখাবে না।

আপনাকে নিশ্চিত করছি, আমি
সুস্থ মস্তিষ্ক সম্পন্নতো
বটেই, সুস্থতার বাইরে যারা
অবস্থান করে, তাদের জন্য কিছু
করার যোগ্যতাও ধারণ করি। মাতাল
কি না? না। মদ পান করি না। তবে
আগে করতাম। মদ পান করলে
মুক্তমনায় আসা যাবে না? এটি কি
মসজিদ নাকি?

কপাট বন্ধ না করে উন্মুক্ত
রাখুন! মুক্তমনা হোন!

[181 বার পঠিত]