দেশের পত্রিকা খুললেই প্রায় চোখে পরে ভারত থেকে দলবলসহ সাংস্কৃতিক দল আসছে!
আমাদের কোন সাংস্কৃতিক দল ওদেশে যাচ্ছে কিনা সে খবর তেমন চোখে পরেনা।
আজকাল দেশে নাকি সিভিতে হিন্দি জানাটা একটা প্লাস পয়েন্ট!
পাঠক যারা পড়ালেখা করতে ভারতে যায় তাদের কথা বলছিনা!
উর্দূর জায়গাটা কি হিন্দি দখল করল শেষমেশ!
এমনিতেই আবার রুনা লায়লা বিশ্বকাপক্রিকেটে “দমাদম মাস কালান্দর”- শুরু করেছেন!
হিন্দি সিরিয়ালের ফ্যাশন অনুকরণ করে, ঈদে তরুনীরা “মাশাকালী”, আর মায়েরা আনারকলি খোঁজে!

তবে রবীন্দ্রনাথ যে বিশুদ্ধ বাঙ্গালিয়ানা প্রর্বতন করেছিলেন তার কি হবে!
“পরনে ঢাকাই শাড়ী কপালে টিপ” কি পুরোনো চলচিত্র আর গানেই বেঁচে থাকবে?
আমাদের সচেতন গোষ্ঠীদেরও এব্যাপারে কিছু বলতে শোনা যায়না।
ব্লগাররাই এ বিষয়ে মুখর!বলতে ইচ্ছে করে – “ওপারে নীরব কেন কুহু হায়”!

আন্তর্জাতিকতা অবশ্যই থাকবে, সেটা স্বকীয়তা বিসর্জন দিয়ে নয়।
জার্মান, ফরাসীরা ইংরেজী জানলেও টু্রিষ্টদের সাথে বলেনা।
নিজেদের সংস্কৃতি, ভাষা সবার ওপরে রাখে।

এবারে মুক্তমনার পাঠকদের জন্য একটা লেখা “সায়ন আনজির” এর
আমি খুব হেসেছি, আপনারা হাসলে সেটা সায়নের প্রাপ্য।

“খুব কষ্ট হয় ওদেরকে দেখে”-

আবারো লিখতে বসলাম আমাদের দেশের সংস্কৃতি নিয়ে।(ভাবটা এমন যে আমি ছাড়া আর কেউ নাই এটাকে বাঁচানোর জন্য!খিক খিক…)এবার অবশ্য একটা ব্যাতিক্রমি ব্যাপার নিয়ে বলতে চাই- আমাদের দেশের হয়ে যাওয়া ট্রাই নেশন মেগা শো নিয়ে…

কিছুদিন ধরেই দেখছিলাম যেখানে সেখানে ফালায়া মারতেসে- ভয়ের কিছু নাই, পোস্টারগুলো মাটিতে ফালায়া আঠা মারতেছিল,তারপরে দেওয়ালে লাগানো হয়েছে।তা তে দেখলাম বলিউডের সালমান, ক্যাট্রিনা কাইফ, অক্ষয়, প্রিতম আরো কে কে যেন পারফর্ম করবে সাথে আমাদের দেশের ও শ্রীলঙ্কান শিল্পীরা। পোস্টারে অনেক খুঁজেও পেলাম না আমাদের দেশের কারা সেখানে পারফর্ম করবে। ভাবলাম হয়ত চমক-টমক থাকবে আরকি…! টিকিটের রেট দেখে যথারীতি আমার দাঁতে দাঁত লেগে যাওয়ার উপক্রম ! ২৫০০০ টাকা পর্যন্ত লেখা আছে আর তার পরেরগুলোতে লেখা “কল ফর ডিটেইলস”…!

টিভি তে অনুষ্ঠানটি দেখার সৌভাগ্য(নাকি দূর্ভাগ্য!)হল। আমি মনে হয় প্রথমটুকু মিস করেছিলাম যে কারনে দেখলাম স্টেজ খালি মানে বাংলাদেশের আর শ্রীলঙ্কান পারফরমেন্স শেষ…বাংলাদেশের কিরণ চন্দ্র রায় (অদ্ভুত সুন্দর কন্ঠ)আর ফরিদা পারভিন (পল্লীগীতির রানী) নাকি পারফর্ম করেছেন। তাদের সাথে আরো ছিলেন “ইভা” রহমান! (পরে জানলাম এই অনুষ্ঠানের আয়োজক নাকি এটিএন-উনি থাকতে অন্য শিল্পি! ভাবাই যায়না !) বাংলাদেশের অন্যতম(!)সফল নায়ক “স্কিব” (আসল নাম মনে হয় সাকিব)খান ও নাকি পারফর্ম করেছে মিম, শখ আরো কার কার সাথে…।

এরপরে স্টেজ এ আসলো আনুশকা…ভালই নাচ দেখালো। কিন্তু ক্যামেরার যাচ্ছেতাই ওঠানামা আর নাচের মাঝখানে মাঝে মাঝেই আকাশ দেখানো কি কারনে বুঝলাম না! সাউন্ড এর বাহার আর কি বলবো বুঝতেসি না…একেকবার হুমহুম করে শোনা যাচ্ছে-আবার পরের মুহুর্তেই মিনমিন করছে! এরপরে স্টেয এ আসলেন প্রীতম। উনি পশ্চিমবঙ্গের লোক-খুব সুন্দর বাংলায় কথা বলেন কিন্তু আমার প্রশ্ন হল-ভাঙ্গা গলায় এতটা বেসুরো হয়ে কি করে বাংলাদেশে কনসার্ট করার আমন্ত্রন পেলেন? চমক আরো বাকি ছিল। উনি “আমি বাংলার গান গাই”-শুরু করতেই আমি মনে মনে বললাম আমাকে বাঁচাও…গান ছিলো নাকি ছড়া ছিলো তা উপস্থিত সবাই ভালো বলতে পারবেন। গানের তাল-লয়-কথা গুলিয়ে লেজে-গোবরে অবস্থা মনে হয় একেই বলে ! কিন্তু কি আশ্চর্য্য ! তার পরের গানেই দেখি উনার মাথার উপরের লাইট অফ করে দেওয়া হল-আর কি অদ্ভুত সুন্দর গান করলেন উনি…উনি যে ঠোঁট মিলিয়েছেন তা বুঝতে কষ্ট হয়নি একটু ও…(হায়রে ড. মাহফুজ, আন্নের বউরে ইস্টেজ়ে উডানির লাই ইতারে লই আসি কি কইচ্চেন…ইজ্জত লই টানাটানি লাগি গেসে গই !!!)

এর পরে একে একে আসলো- ক্যাট্রিনা কাইফ, অক্ষয় আর সালমান। ক্যাটরিনার নাচ দেখেই বোঝা গিয়েছে স্টেপিং হচ্ছেনা-হয় স্টেজ এর দোষ(নাচতে না জানলে স্টেজ বাঁকা!) নাহয় উনি রিহার্সেল করেন নাই ঠিকমত! তারপর ও-যারা ওই কোমর দুলানো “শিলা কি জাবানি” দেখে কাইত তাদের জন্য ওটাই যথেষ্ঠ । অক্ষয় আসার স্টাইল দেখে মনে হল বাঙ্গালীরে মদন পাইসে ! ক্রেন এ করে উপর থেকে বিশাল ভাব নিয়ে নামার পরে যাই নাচ দেখাল-পয়সা উসুল হইসে কিনা জানি না। আবার নামার সময় মাইক্রোফোন হাতে ধরে চিক্কুর করতে করতে নামলো-যেন সে ই গান গাইছে। নামার সাথে সাথে বিপত্তি-গান আর থামে না! বেচারা আমাদেরকে মাইকেল বানাইতে গিয়া নিজেই মাইকেল সেজে গেল। এক নাগাড়ে গান চলছেই-আর উনি ঠোঁট মিলাতে মিলাতে হাঁপায়ে গেছেন!

সালমান আসার পরে যথারীতি সামান্য হেলিয়ে-দুলিয়ে স্পিডি টেম্পোর গান বাজানো হল। খুব চেষ্টা করেছেন সবাইকে আনন্দ দিতে(আমি আনন্দ না পেয়ে হতাশ!)।
এরপরে আতশবাজি দিয়ে অনুষ্ঠান শেষ !
এখানে কয়েকটা কথা না বললেই না-

প্রথমতঃ এমন একটি বিশাল(!) আয়োজনে ইভা রহমান আমাদের দেশকে কতটুকু রিপ্রেজেন্ট করলেন? কিভাবে করলেন? উনি কি বাকিদের সাথে (প্রীতম ছাড়া !!!) এক কাতারে দাঁড়ানোর যোগ্য?

দ্বিতীয়তঃ খুব বেশি দরকার ছিল এটা ২১ ফেব্রুয়ারীর এত কাছাকাছি তে করার?

তৃতীয়তঃ এটা যদি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের অংশ হয়ে থাকে তাহলে দেখার এখনো বাকি আছে যে ইন্ডিয়া আর শ্রীলঙ্কাতে বাংলাদেশের কয়জন শিল্পি অংশ নেয়।

চতুর্থতঃ আউল-ফাউল শিল্পিদের কে দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা কে কামালো?

পঞ্চমতঃ যেই গান গুলোকে abuse করা হল, সেগুলোর কি হবে?(প্রীতম হালায় কুঁইত্তা কুঁইত্তা যেই গানটারে মারসে ! ), এটা কি কপিরাইট লঙ্ঘন করে না ? ভালো গাইলে বলতাম না কিন্তু যা গাইছে-না বলে উপায় নাই !

ষষ্ঠতঃ আমাদের দেশের মানুষের দাম কি এতই অল্প যে এটিএন আর ডেস্টিনি (দেশের সেরা ২ ধান্দাবাজ কোম্পানী !!!)এমন একটা কিছু করার সাহস পেলো এবং করে পার ও পেয়ে যাবে?

Scion Anjir
সূত্রঃ ফেসবুক
২৭/০২/২০১১

[247 বার পঠিত]