আমি সাগর তীরের মেয়ে।
অনন্ত আকাশের নিচে আর-
সাগরের বিস্তীর্ণ জলরাশির সান্নিদ্ধে –
বেড়ে উঠেছি আমি।

নিঃসীম সাগরের ঢেউ-
আছড়ে পড়েছে আমার গায়ে।
প্রতিদিন সাগরের হাওয়ায় বেড়েছি আমি-
সাগরের জলে নেয়ে।

সুতোবিহীন ঘুড়ির মতো-
উড়েছি দিক থেকে দিগন্তে।
মুক্তমেঘের মতো ছুটেছি –
আকাশ থেকে আকাশে।

কোকিলের কুহুতানে তাল মিলিয়েছি।
দোয়েলের শিসে দিয়েছি শিস।
পালতোলা তরণীতে চড়ে-
ঘুরেছি সাগর থেকে সাগরে।

রৌদ্রোজ্জ্বল দিনে রৌদ্র মেখেছি গায়ে,
ঘনবরষার দিনে ভিজেছি বৃষ্টিতে।
জ্যোৎস্না-স্নাত রূপালী রাতে-
জ্যোৎস্না মেখেছি অঙ্গে।

আমার চারিধারে দেখেছি উন্মুক্ত প্রকৃতি।
বারেবারে আমি সেথায় হারিয়েছি,
যেথায় সমুদ্র আর আকাশের নীলিমা-
আলিঙ্গনে মিশে আছে একাকার হয়ে।

[15 বার পঠিত]