মুক্তমনায় বিজ্ঞান বক্তা আসিফের দেয়া আগের একটি পোষ্টে মহাবৃত্তের প্রকাশনা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছিল, অনেকেই গ্রাহক হওয়ার জন্য উৎসাহ দেখিয়েছেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে এখানে মহাবৃত্তের গ্রাহক হওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হচ্ছে।

আমরা দীর্ঘদিনের পথপরিক্রমায় অনুধাবন করেছি যে, দেশে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ বিজ্ঞান পত্রিকার অভাব রয়েছে, যার মধ্য দিয়ে নিশ্চিত হতে পারে দেশের বিজ্ঞান চর্চার অগ্রগতি। মহাবৃত্তের প্রকাশনা সেই অভাব পূরণে অগ্রসর হয়েছে। শুধু পত্রিকা প্রকাশ করাটাই উদ্দেশ্য নয়, সেই সাথে এ ধরনের পত্রিকাকে প্রথমে নিয়মিত করা প্রয়োজন। একাজে ইতোমধ্যে এগিয়ে এসেছে মুক্তমনার সদস্যরা। তাই আমরা ডিসকাশন প্রজেক্টের প্রকাশনা মহাবৃত্তের জন্য গ্রাহক তৈরি করার উদ্যোগ নিচ্ছি। আমরা এখানে জোর দিচ্ছি সেইসব প্রিমিয়াম গ্রাহকদের যারা কেবল পত্রিকাটাই কিনবেন না, এটা নিয়মিত চালিয়ে নেবার জন্যই তাদের হাতকে প্রসারিত করবেন। যদি এই আহ্বানে যথার্থ সাড়া পাওয়া যায়, তাহলে ধীরে ধীরে মাসিক বিজ্ঞান পত্রিকার দিকে অগ্রসর হওয়ার মতো জায়গায় পৌঁছুনোর চিন্তা করা যাবে। এই পত্রিকা এবং ডিসকাশন প্রজেক্ট এর বিভিন্ন বিজ্ঞান বক্তৃতাকে কেন্দ্র করে যেসব মাল্টিমিডিয়া তৈরি হয়েছে সেগুলোকে শিক্ষার হাতিয়ার হিসেবে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল এবং দেশের বাইরে থাকা বাঙালিদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালানো হবে। পাশাপাশি বিজ্ঞানের বিষয়ের উপর উচ্চমানের প্রামাণ্য চলচিত্র (ডকুমেন্ট্রি ফিল্ম) তৈরি করার চেষ্টা করা হবে। এর মাধ্যমেই সম্ভব হবে আগামীতে সবাইকে বিজ্ঞান আন্দোলনে যুক্ত করা। আসুন শুধু বাংলাদেশ নয়, আমরা পৃথিবীর দূরদুরান্তের অবস্থান করা বাঙালিদের মধ্যে বাংলায় বিজ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দেই। বিজ্ঞান জানার মধ্যে দিয়ে নিজেদের অস্তিত্বকে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলি। বিজ্ঞান অন্ধকারের প্রদীপ। এ প্রদীপ আরও প্রজ্জ্বলিত হোক, ছড়িয়ে পড়ুক আলো থেকে আলো, অন্তরে অন্তরে।

নীচে পে -প্যালের লিঙ্ক দেওয়া হচ্ছে। এই লিঙ্কটি শুধুমাত্র প্রিমিয়াম গ্রাহক হওয়ার জন্য। সবাইকে মনে রাখতে অনুরোধ করা হচ্ছে যে, এটি কোন সংখ্যাভিত্তিক পত্রিকা বিক্রির আহ্বান নয়। চারটি সংখ্যার প্রিমিয়াম গ্রাহকদের জন্য বাৎসরিকভাবে আপাততঃ ইউ.এস ১০০ ডলার অনুদান ধার্য করা হয়েছে (তবে কেউ যদি এর চেয়ে বেশি অনুদান দিতে আগ্রহী হন, তা আনন্দের সাথেই গ্রহণ করা হবে)।

:line:



মহাবৃত্তের প্রিমিয়াম গ্রাহক হোন

.

:line:

গ্রাহক হবার পর ডিসকাশন প্রজেক্টের পক্ষ থেকে প্রত্যেক গ্রাহককে মহাবৃত্তের ছাপানো কপিটি অতি সত্ত্বর ডাকযোগে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে পাওয়া ঠিকানার (পে প্যালের মাধ্যমে যেটা গ্রাহকদের কাছ থেকে পাওয়া যাবে) বদলে অন্য কোন ঠিকানায় যদি পত্রিকাটি পাঠাতে হয়, তবে গ্রাহকদের অবশ্যই [email protected] -এ ইমেইল করে জানাতে হবে।

ডিসকাশন প্রজেক্টের সাথে যোগাযোগের ঠিকানা
[email protected], discussionprojectbd.org
ফোন: ০১৯১২৯১৭৫৫৪।

এ পর্যন্ত যারা প্রিমিয়াম গ্রাহক হয়েছেন 

[66 বার পঠিত]