বেগম রোকেয়ার পথ ধরে বাংলাদেশের নারীরা এগিয়ে গেছে সবখানে সারা বিশ্বে ও।
তারপরও কথা থাকে।
আমরা নিজ বাসভূমে কতটা নিরাপদ ও মর্যাদায় বাস করছি!
প্রতিদিন কাগজ পড়লেই বোঝা যায় দেশের চিত্র-বখাটে যুবক ও তরুনরা বসবাসের অযোগ্য
করে তুলছে জনপদ।বিশেষ করে স্কুল, কলেজে পড়া তরুনীদের।

গভীরভাবে তাকালে দেখা যাবে তারা আসছে মূলতঃ-অশিক্ষিত পরিবেশ থেকে।
অনেকটা বলতে গেলে অশিক্ষা পেয়ে ভালভাবে গড়ে ওঠেনি।
এতে মা দেরও অবদান খাট করে দেখার অবকাশ নেই।
মায়েদের হাতেই সন্তানরা বড় হয় শিক্ষা নেয়।

কথা হচ্ছে যে যেদেশে দারিদ্রপীড়িত জনগণের পেটের খাবার জোটেনা,
তারা কোথা থেকে সুশিক্ষা পাবে ও সন্তানদের শিক্ষা দেবে!
নিজের শিক্ষা থাকলেইতো সন্তানদের সুশিক্ষিত করা যায় নৈতিক শিক্ষা দেয়া যায়।
অবশ্য এর ব্যতিক্রমও আছে তা হাতে গোণা।
স্কুল,কলেজের শিক্ষকরা দায়সারা কোনরকম শিক্ষা দিয়ে খালাস!
ছাত্রছাত্রীদের নৈতিক ও সামাজিক শিক্ষা দেওয়ার সময় কোথায় তাদের!

একটা সমস্যার সাথে আরেকটা জড়িত।
দারিদ্র,শিক্ষা,‌নৈতিকশিক্ষা,পারিবারিক শিক্ষা।
আমাদের দেশে সাধারনতঃ পুরুষেরা জীবিকার জন্য ব্যস্ত থাকেন নারীরাও কেউ কেউ।
তবে বিপুল সংখ্যক নারী ঘরে থাকেন।।
আগামী প্রজন্মকে সুশিক্ষিত করার দায়িত্বকে তারা এড়িয়ে যেতে পারেননা।

প্রশ্ন হচ্ছে কিভাবে?
তারা নিজেরাই যদি তা না জানেন!আমাদের দেশে নারীশিক্ষার হার আশংকাজনকভাবে কম!
দেশকে অর্থনৈতিক,সামাজিক ও ‌নৈতিকভাবে সামনে এগিয়ে নিতে শিক্ষার বিকল্প কিছু নেই।

এবার দেশে গিয়ে যা দেখলাম, রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে রোকেয়ার জন্মউতসব উপলক্ষে
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হল।
প্রখ্যাত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ফাহমিদা খাতুন(বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,যখন বাংলাদেশের হাতে গোনা
কজন মহিলা ঐ পদে ছিলেন,তার বিনয়ী প্রশংসাসুলভ ব্যবহারে সবাই মুগ্ধ)।
গান গাওয়ার শুরুতেই পেছন থেকে ছাত্রদের গুঞ্জন শোনা গেল।
উনি দুইটা বেহেস্তে যাবেন!সংগত কারণেই ওনার প্রথম বিয়ে স্থায়ী হয়নি।
আমি নিশ্চিত ওনার জায়গায় একজন পুরুষ হলে ওরা এসব বলতনা!
এই হল আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছাত্রদের নৈতিক ও সামাজিক ব্যবহার!
ফাহমিদা খাতুনের অন্য গুনগুলো ওদের চোখে পরেনি হয়তবা তা ওদের কাছে অতটা প্রয়োজনীয় নয়!

দেশের এনজিও গুলো পাশ্চাত্য সমাজের মত কম্যুনিটি সেন্টার গড়ে এসব পরিবারের শিশুদের ও
তরুনদের সামাজিক,নৈতিক ও সাংস্কৃতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করতে পারলে হয়তবা কিছুটা সমস্যার
সমাধান কিছুটা সম্ভব।

তারপরও সবার আগে দরকার পারিবারিক শিক্ষা!

[23 বার পঠিত]