প্রথম পর্ব
দ্বিতীয় পর্ব
তৃতীয় পর্ব

২৪ শে ফেব্রুয়ারী। আজকের কাগজ পড়ে অনেক জবরদস্ত খবর পাওয়া গেল। মাওলানা আবদুর রশিদ তর্কবাগিশ, মিঃ মনোরঞ্জন ধর, মিঃ গোবিন্দ লাল প্রমূখ পাঁচজন এমএলএ কে গ্রেফতার করা হয়েছে। সবচাইতে বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে – পরিষদের অধিবেশন অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। জালেম অযোগ্য সরকারের অবিমৃষয়কারিতার জন্য পরিস্থিতি যে কতদুর পর্যন্ত গড়িয়েছে; এতেই তা বোঝা যায়। গদি হারানোর ভয়ে অধিবেশন বন্ধ করে দেওয়া পাকিস্তানের ইতিহাসে এ প্রথম। পৃথিবীর ইতিহাসেও এর নজির বোধ হয় খুব বেশী নেই।

অত্যাচারী সরকারের স্বৈরাচারী কার্যকলাপ দেখে আজ খুব আঘাত পেলুম। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর মিঃ মোয়াজ্জেম উদ্দিন ডিষ্ট্রিক ম্যাজিষ্ট্রেট মিঃ কোরেশীর কাছে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রাংগনে পুলিশ প্রবেশের প্রতিবাদ করেন। দম্ভভরে কোরেশী জবাব দেন – “I have the authority to declare the university compound as a public ground”. ভাইস চ্যান্সেলর নুরুল আমিনের নিকট গিয়েও ১৪৪ ধারার বৈধতা সম্বন্ধে প্রশ্ন করেন। তেজ দেখিয়ে দেশের গৌরব সন্তান নুরুল আমিন বলেন – ওসব আজে বাজে প্রশ্নে তিনি কান দিতে নারাজ। “I know better than you”. তা নইলে কি আর একটা দেশের ভাগ্য বিধাতা। একটা স্বাধীন দেশের সর্ববৃহৎ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর; আর তার সম্মান রাষ্ট্রের বড় কর্তাদের কাছে অতটুকু! ধণ্য এ দেশ! ধণ্য স্বাধীনতা! সত্যি, বিচিত্র এ দেশ, সেলুকাস!

মিঃ এ,কে ফজলুল হকও আজ গিয়েছিলেন নুরুল আমিনের দরবারে ছাত্রদের পক্ষ থেকে। কিন্তু গদি নসীন আমিন সাহেব “ছাত্রদের রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপ” মোটেই বরদাশ্ত করবেন না বলে জানিয়েছেন। “How to deal with the students” তিনি নাকি ভাল করেই জানেন। …. যারা একদিন জানমাল কোরবানী করে দিয়েছিল পাকিস্তান অর্জনের জন্য, তারাই আজ রাষ্ট্রবিরোধী কম্যুনিষ্ট! ধণ্য নুরুলের মহিমা।……

আজকের বৃহত্তম ঘটনা হল, মেডিকেল কলেজ হোষ্টেলে পুলিশ ও মিলিটারী কর্তৃক আর এক দফা অনধিকার প্রবেশ। আনুমানিক বিকেল পাঁচ ঘটিকার সময় ঝাঁকে ঝাঁকে মিলিটারী ঢুকে পড়ল মেডিকেল হোষ্টেলের ভিতর। বীর বেশে রাইফেল আর সংগীন উচিয়ে পাকিস্তানের বীর সেনানী দল হোষ্টেল ঘিরে ফেলে মাইক লাউড স্পীকার সব কেড়ে নিয়ে যায়। যে রুমের ভেতর মাইক ছিল, সে রুম হতে একটা রেডিও সেট, কলম, ও ঘড়িও পুলিশ অপহরন করে নিয়ে যায়। ধণ্য পাকিস্তানের রক্ষীবাহিনী! এমনি করে সরকারের হাতে ক্রীড়নক হয়ে তোমরা জগতে নাম রেখে গেলে।

[10 বার পঠিত]