এবার গাছে এত বোঁল কেন?
ভাবিছি, এ বৃক্ষেরই কোন খেল্‌ যেন।
এবারই দানিবে সে সব-
জীবনের তরে রসাল মোদের বঞ্চিবে তাঁর বিত্ত-বৈভব।

আরে না… এ আমার অথর্ব কল্পনা,
ওঁরা কি মানুষ যে হইবে কৃপণমনা?
ছিঃ ছিঃ করিতেছি কি আমি হায়!
মহান বৃক্ষরে তুলনা করিছি তুচ্ছ মানব সাঁয়?

এ কল্পন্ না করিয়া উপায় কি কিছু ছিল?
যে হারে মানব(?) বাড় বাড়িছে…
এই হল উপযুক্ত কর্মফল।

কারণ…

রসাল তাঁর প্রাণভরে দান করে রতন যত
তাঁর তরে সমান সকলে;বলেঃ
‘করিওনা ভুলেও কারেও বঞ্চিত।’

বৃক্ষ-লাভী থোরাই শোনে সেই মহা ফরমান,
বলেঃ
‘আগে মোর পেট পুঁজো হবে, কিসের করিব রে দান?’

…ভাবিলাম অবিচার এ না সহে কাঁদিয়া বৃক্ষ মশাই
স্থির করিছে আর কখনো দানিবে না রসাল তাই।
কিন্তু চিত্ত তাঁর এত বিরাট মহান-যেন আসমান হার মানে,
শেষবারের মত দিতেছে অসীম ভরাইয়া রসাল ধনে।

তাই মার্জনা আমি প্রার্থিব তব সকলের কাছে,
অথর্ব কল্পন্ সত্য হলে মন হাসিবে তৃপ্ত লাজে।

[5 বার পঠিত]