ভোর হল, যেন মহাকাল শুরু করেছে তার নব পরিক্রমা-
অন্তহীন চক্রে, প্রতিদিন…

দোয়েল আপন মনে শিষ দিয়ে যায়, কাকেরা
জানান দেয় তাদের আনাগোনা।
বায়ুরা আপন মনে ঢেউ দিয়ে চলে
যেন আপনার নিরন্তন দায়িত্বশীলতার পরিচয় বলে;
সূর্যিমামা কখনো থাকে না অনুপস্থিত
মেঘের সাধ্য নেই গ্রাস করবে তাঁর আলো অমিত।

স্বার্থহীন তাঁদের এই পথচলা-
এঁকের মাহাত্ব্য পূর্ণ করে অপরে ষোলকলা;
প্রত্যেকেই ছুটে চলে তাগিদে আপন
অথচ স্বার্থহীনতা পূর্ণকরে অপরের মন।

অথচ এই আমার আমি চোখ বুজে চলি
ভোগে মত্ত হয়ে ভাবি নিজের কেবলই……
‘…কখন কাকেরা ডাকে, আলো কড়া নাড়ে
জানালায়, স্নিগ্ধ বায়ু সজীব করতে চায়……’
তা জানা নেই-
“-একবার ঘুম এলে এসব ভাববার সময় কৈ?…”
টেবিলে খাবার এলে পেট পুরে খাই-
ভাব্বার ইচ্ছা নেই ‘কোথা থেকে পাই’।

নদীর স্রোতের ভেতর ক্ষুদ্র বিন্দু হয়ে
স্বাচ্ছন্দ্যের সাথে আত্মীয়তা গড়ি…
বিন্দুগূলো ছুটে চলে- মনে রাখে না কেউ
মহাকালের সংযোগহীনতায় কেবলই মরি।

[108 বার পঠিত]