বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও ইন্দিরা গান্ধীর একটি ইন্টারভিউ

By |2009-10-05T09:10:00+00:00অক্টোবর 5, 2009|Categories: ব্লগাড্ডা|4 Comments

এই নিয়ে অনেক কিছুই লেখা যায় -কিন্ত আমি এই লেখা লিখছি ইন্দিরা গান্ধীর একটি ইন্টারভিউ এর পরিপেক্ষিতে। ইন্দিরা গান্ধী তখন বিদেশ সফরে-সবাই প্রশ্ন তুলেছে পাকিস্থানের আভ্যন্তরীন ব্যাপারে ভারত কেন নাক গলাচ্ছে? কেন বাংলাদেশ গেরিলাদের ভারত সাহায্য দিচ্ছে?

তার উত্তরে ইন্দিরা যে উত্তর দিয়েছিলেন, তাতে আমেরিকার মুখ সম্পুর্ণ ভোঁতা করে দিয়েছিলেন। বিশ্বের দরবারে প্রমান করেছিলেন বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ নিয়ে আমেরিকা ও বৃটেনের দ্বিচারিতা।

আমার কাছে এই ইন্টারভিউটি একটি অনবদ্য মানব দলিল, যা জাতি দেশ ধর্মের উর্ধে উঠে মানবতাকে প্রতিষ্ঠা করে এবং মানবতা নিয়ে পাশ্চাত্যের মানুষের দ্বিচারিতাকে করে বেয়াব্রু বিচ্ছিন্ন।

সকল বাংলাদেশী ভাইদের অনুরোধ করছি এই ইন্টারভিউটি দেখার জন্যে-বোঝার জন্যে, বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের সমর্থনে ইন্দিরা গান্ধী কিভাবে সমর্থন যোগাড় করেছিলেন।

httpv://www.youtube.com/watch?v=fKiQboyDMUo&feature=player_embedded

About the Author:

আমেরিকা প্রবাসী আলোক প্রযুক্তিবিদ ও লেখক।

মন্তব্যসমূহ

  1. আতিক রাঢ়ী অক্টোবর 6, 2009 at 2:33 অপরাহ্ন - Reply

    সত্যিই অসাধারন। বিপ্লব পালকে অনেক ধন্যাবাদ। আমাদের সবারই জানা দরকার
    কারা আমাদের বন্ধু আর কারা আমাদের শ্ত্রু ছিলো।

  2. ফরিদ অক্টোবর 6, 2009 at 7:31 পূর্বাহ্ন - Reply

    এই অসাধারণ ভিডিওটা এখানে শেয়ার করার জন্য বিপ্লবের বিশেষ ধন্যবাদ প্রাপ্য।

    ইন্দিরা গান্ধী যে সুরে, যে শারীরিক ভঙ্গিমায় এবং যে লৌহ কঠিন দৃঢ়তা নিয়ে পালটা আক্রমণে ব্রিটিশ সাংবাদিককে মোকাবেলা করলেন তাতে পরিষ্কার বোঝা গেল যে তিনি কীভাবে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে নিজের করে নিয়েছিলেন। কতখানি উদারতা, মানবিকতা এবং সাহসিকতা থাকলে একজন রাষ্ট্রনায়ক কূটনৈতিক রীতিনীতির তোয়াক্কা না করে ভীনদেশের স্বাধীনতার সংগ্রামকে ডিফেণ্ড করতে পারেন, সহযোগিতা দিয়ে যেতে পারেন প্রকাশ্যে ঘোষনা দিয়ে।

    একজন ইন্দিরা গান্ধী এবং ভারতের মত একটা বিশাল দেশ ও তার জনগণ সর্বাত্মক সাহায্যে এগিয়ে না আসলে বাংলাদেশে আরো কত প্রাণহানি হতো, আরো কত ক্ষয়ক্ষতি হতো তার হয়তো ইয়ত্তা নেই। যারা এই বিষয়টা অস্বীকার করেন, তারা হয় বোঝেন না বিষয়টা, নতুবা এখনকার ভারত বাংলাদেশ সম্পর্ক দিয়ে সেই সময়কে বিবেচনা করার চেষ্টা করেন।

    জহরলাল নেহেরু, ইন্দিরা গান্ধী, শেখ মুজিব, তাজউদ্দীন আহমেদদের দেখলে বোঝা যায় এক সময় ভারত, বাংলাদেশে গালিভারের মত বিশালাকৃতির সব নেতারা নেতৃত্ব দিতেন। দুর্ভাগ্য, এখন আমাদের সামনে নেতা হিসাবে পালাক্রমে আসছে লিলিপুটেরা।

  3. Truthseeker অক্টোবর 6, 2009 at 7:04 পূর্বাহ্ন - Reply

    Its cool! Thanks for posting.

    • মুক্তমনা এডমিন অক্টোবর 6, 2009 at 8:50 অপরাহ্ন - Reply

      @Truthseeker,

      আপনি অনেক মন্তব্য করেছেন বাংলা ব্লগে কিন্তু সবই ইংরেজীতে। আপনাকে বাংলা ব্লগে বাংলায় মন্তব্য করতে অনুরোধ করা হচ্ছে।

      আপনি কমেন্ট টেক্সট এরিয়ার নীচে অভ্র বাটনটিতে চাপ দিয়েই কিন্তু বাংলায় লিখতে পারবেন। এটা অনেকটা ইংরেজীতে টাইপ করার মতই সোজা। চেষ্টা করে দেখুন।

মন্তব্য করুন