বাবার জন্য

বাবার জন্য

মৌলি আজাদ

 

২০০৪ সালের ১২ ই আগষ্ট।  আমাদের বাবা লেখক হুমায়ুন আজাদ আমাদের তিন ভাইবোনের প্রতি তার হৃদয় নিংড়ানো ভালবাসার কথা তিনটি পৃথক চিঠিতে লিখে সুদূর জার্মানীর এক নির্জন কক্ষে ঘুমাতে গিয়েছিলো। জানিনা ঘুমাতে যাবার আগে কি ভাবছিলেন তিনি। হয়তো আমাদের কথা বা পরবর্তীতে লেখা হবে এমন কোন বইয়ের কথা। না তাকে আর কোন কিছুই ভাবতে হয়নি। ভাবতে হবেও না আর কোন দিন। কারণ সেই ঘুমানোই ছিলো তা শেষ ঘুম। বাবা যে চিরঘুমের দেশে চলে গিয়েছেন তা জানতে পারলাম আমরা ১৩ই আগস্টে … (এরপর পড়ুন এখান)

About the Author:

বাংলাদেশ নিবাসী লেখক। হুমায়ুন আজাদের কন্যা।

মন্তব্যসমূহ

  1. adnan lermontov আগস্ট 11, 2009 at 7:51 অপরাহ্ন - Reply
  2. adnan lermontov আগস্ট 11, 2009 at 11:46 পূর্বাহ্ন - Reply

    Dear Friends,
    How are you all?

    “Shamsur Rahman/ Nisshanga Sherpa” by Humayun Azad is an astonishing piece work. It helps one to understand what poetry really is, and how it should be approached.

    Most importantly it teaches one how to separate a great poet from the bad and fake ones.

    One life is not enough to appreciate the monumental achievement of this work.

    I urge everyone to read this book. What I can guarantee is this: your life will never be the same again after you read this book, even if you try very hard to make that happen. Reading this book is like sharpening your senses; it is like growing a million roots. It is like seeing with a million eyes.

    I hope all of you can find a copy of this book. Read, read and read!

    Thank you
    Adnan Lermontov

  3. নুরুজ্জামান মানিক আগস্ট 11, 2009 at 8:36 পূর্বাহ্ন - Reply

    এই লিন্ক ফেসবুকে শেয়ার করলাম ।

  4. নুরুজ্জামান মানিক আগস্ট 11, 2009 at 8:31 পূর্বাহ্ন - Reply

    হুমায়ুন স্যার নেই আমি তা’ বিশ্বাস করিনা ।

    আপনার উদ্যোগ অবশ্যই সফল ও সার্থক হোক এই কামনা করি মলি আপা ।

  5. রণদীপম বসু জুলাই 27, 2009 at 12:01 পূর্বাহ্ন - Reply

    আপনার বাবা ড.হুমায়ূন আজাদ আমার প্রিয়তম মানুষদের একজন। আমার প্রেরণা। তাঁকে নিয়ে আপনার উদ্যোগ অবশ্যই সফল ও সার্থক হোক এই কামনা করি।
    সাথে সাথে অনুরোধ, নিয়মিত মুক্তমনাতে লিখুন। যার কন্দে কন্দে ছুঁয়ে আছে আপনার পিতার ছোঁয়া…।

    ভালো থাকুন, সবসময়…

  6. Adnan Lermontov জুলাই 24, 2009 at 5:55 পূর্বাহ্ন - Reply

    Dear All,

    Please read the article below from “Amader Shomoy”:
    http://www.amadershomoy.com/content/2009/07/24/news0428.htm

    thank you
    al

  7. Ratan Kumar Saha Roy জুলাই 23, 2009 at 9:12 অপরাহ্ন - Reply

    Honarabal Mauli Azad
    Your father was my inspiration. I will be happy if your dicission of Azad award bringing into the reality. It is a symbole of good children. In our country your father had given lots to the society. This award will make him a live even for his absence. All the best for your dicission. Let your dicission come in true. When it will be come in true my soul will be gets new breathing. Thanking you.

  8. Adnan Lermontov জুলাই 16, 2009 at 7:27 পূর্বাহ্ন - Reply

    Dear Mr. Avijit,
    How are you?

    Can we start a link to collect some fund for the “Azad Award” Project?

    I think a lot of us would be interested in donating into this new project.
    This project will need a lot of financial and organizational help in its infancy.

    What are your thoughts?

    MM is a very powerful community now, and Ms. Mauli’s post here proves that. I strongly believe that MM can help in a big way to support this project.

    Thank you
    al

    • অভিজিৎ জুলাই 22, 2009 at 3:04 পূর্বাহ্ন - Reply

      @Adnan Lermontov,

      I dont think Mauli is expecting money for Azad fund right now. If she needed, we would have considered it for sure. What she wants us right now to make the Azad puroshkar celebration successful. Let it happen by sending the books on poem as she mentioned in her articles. If you know any poet encourage him/her to send their books.

      Thanks for your proposal though.

  9. অভিজিৎ জুলাই 16, 2009 at 4:05 পূর্বাহ্ন - Reply

    মৌলি, মুক্তমনায় স্বাগতম!

    আপনার পিতা ড. হুমায়ুন আজাদ সবসময়ই আমাদের প্রেরণা। যখন পাক সার জমিন বইটা নিয়ে মৌলবাদীরা হুঙ্কার দিচ্ছিলো, তাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছিলো তখন তিনি মুক্তমনায় ইমেইল করে সেকথা জানিয়েছিলেন। আমরা মুক্তমনার পক্ষ থেকে প্রতিবাদ করেছিলাম, লাভ হয়নি কিছুই। তারপর বাংলা একাডেমির সামনে ঘটলো সেই মর্মান্তিক রক্তক্ষরণ। আমরা সাধ্যমত প্রতিরোধ প্রতিবাদ করেছিলাম…সীমিত সামর্থ্যে। তিনি সুস্থ হয়ে ফেরার পর একদিন উনার সাথে ফোনে কথা হয়েছিলো। বলেছিলাম, যদি প্রয়োজন মনে করেন দেশের বাইরে চলে আসুন, আমরা ব্যবস্থা করব। তিনি হেসে বলেছিলেন, অভিজিৎ, আমি দেশে থেকেই যুদ্ধ করতে চাই, পালাতে চাই না। আমি তখনই বুঝে গিয়েছিলাম…কী শক্ত মেরুদন্ডের মানুষ ছিলেন ড.হুমায়ুন আজাদ। বলেছিলেন জার্মানিতে এসে আমার সাথে ফনে যোগাযোগ করবে। কিন্তু মৃত্যু এসে সব কিছু গ্রাস করে নিলো। তার রহস্যময় মৃত্যু আমাদের মূক করে দিলো, করে দিল একেবারে বধির। আমি তাৎক্ষণিক একটি প্রতিক্রিয়ায় তখন লিখেছিলাম – এ লাশ আমরা রাখবো কোথায়, তেমন যোগ্য সমাধি কই? মুক্তমনার অন্যান্য সদস্যরাও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছিলেন সেসময়, তার উল্লেখ পাওয়া যাবে এখানে

    আপনার ‘আজাদ পুরস্কার’-এর উদ্যোগ খুব ভাল লেগেছে। আমি আশা করছি এ ব্যাপারে সদস্যদের কাছ থেকে উৎসাহব্যঞ্জক সাড়া পাওয়া যাবে।

    (বিঃদ্রঃ আপনি অভ্র ডাউন লোড করে নিলে নিজেও মন্তব্য করতে পারবেন এখানে।)

মন্তব্য করুন