ইসলাম বিরোধি প্রবন্ধ প্রকাশের দায়ে গ্রেফতার স্টেটসম্যান সম্পাদক

এই নিয়ে পশ্চিম বঙ্গের সংবাদপত্রে আমি কোন সংবাদই দেখিনি-বাংলাদেশের প্রথম আলো ছাপিয়েছে-যদিও ঘটনা ঘটেছে কোলকাতায়

যরত মুহাম্মদকে (সাঃ) নিয়ে আপত্তিকর প্রবন্ধ প্রকাশের দায়ে গতকাল গ্রেফতারকৃত ভারতীয় দৈনিক দ্য স্টেটসম্যানের সম্পাদক রবীন্দ্র কুমার ও প্রকাশক আনন্দ সিনহাকে জামিন দেয়া হয়েছে। বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, কোলকাতার একজন মুসলিম নেতা ইসলাম বিরোধী প্রবন্ধ প্রকাশের অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করলে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয় এবং এর স্বল্প সময় পরই আদালত তাদেরকে জামিন দেয়। সম্প্রতি দ্য স্টেটসম্যান পত্রিকায় ব্রিটিশ লেখক জন হ্যারির লেখা Why should I respect these oppressive religions? ( ‘কেন আমি এই অত্যাচারী ধর্মকে শ্রদ্ধা করবো’ ) শীর্ষক একটি নিবদ্ধ প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু ইংরেজি ঐ দৈনিকটির পক্ষ থেকে আজ পর্যন্ত বিতর্কিত নিবন্ধের জন্য ক্ষমা চাওয়া হয়নি। (সুত্র )
এর আগে জন হ্যারির বিতর্কিত ঐ লেখাটি পশ্চিমা কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

মূল প্রবন্ধ দেখতে হলে এখানে ক্লিক করুনঃ
 

প্রথমত জনহ্যারির লেখাটি ধর্ম সম্মন্ধে বিশেষত ইসলাম সম্মন্ধে কটূ সত্যকেই প্রকাশ করেছে। সেটা হল এই যে ইসলামের পশ্চাদপর অন্ধকার অন্ধবিশ্বাসকে কাজে লাগিয়ে, রাজনৈতিক ক্ষমতা লুটছে কিছু ব্যাক্তি। সেটা বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্থান-সব দেশের জন্যে সত্য। এই সত্যটুকু প্রকাশের অধিকারও কেড়ে নিলে-আমরা অন্ধকারে ডুবে যাব।
এই লেখাটিতে জন হ্যারি যে দাবি করেছেন তা আমিও করিঃ


The Universal Declaration of Human Rights stated 60 years ago that “a world in which human beings shall enjoy freedom of speech and belief is the highest aspiration of the common people”. It was a Magna Carta for mankind – and loathed by every human rights abuser on earth. Today, the Chinese dictatorship calls it “Western”, Robert Mugabe calls it “colonialist”, and Dick Cheney calls it “outdated”. The countries of the world have chronically failed to meet it – but the document has been held up by the United Nations as the ultimate standard against which to check ourselves.

এবং জন হ্যারি যে সমস্যার কথা বলেছেন তা আজকের নয়। মানবাধিকার আসলেই সার্বজনীন। ১৮২৪ সালে লর্ড বেন্টিং একই দ্বিধার সম্মুখীন ছিলেন-সতীদাহ প্রথা রধ করার জন্যে। এবং তিনিও সিদ্ধান্তে এসেছিলেন-মানবাধিকার সবার জন্যে-তা কোন পশ্চিমা ধারা নয়। তাই ধর্মের দোহাই দিয়ে হিন্দুরা সতীদাহ প্রথা চলাতে পারে না। অথচ ধর্মের নামেই সবথেকে বেশী মানবাধিকার লঙ্ঘন হয় পৃথিবীর সবদেশে। এই নিয়ে আমার ২০০৫ সালে লেখা একটি ব্লগ দেখতে পারেনঃ
লক্ষ্য করুন লর্ড বেনটিঙ্ক ও একই কথা বলেছেনঃ
With the firm undoubting conviction entertained upon this question, I should be guilty of little short of the crime of multiplied murder if I could hesitate in the performance of this solemn obligation

ধর্মকে সমালোচনা করার অধিকার নিয়ে মুক্তমনা যে লড়াই করছে-সেই লড়াকু অকুতোভয় যোদ্ধাদের জন্যে ঘটনাটা জানিয়ে রাখলাম। এর সাথে প্রথম আলোর পাঠকদের মন্তব্যগুলোও দিলামঃ

http://prothom-aloblog.com/users/base/broadcaster/131#

পাঠকরা নিন্দা জানাতেই পারেন। তবে কিছু কিছু পাঠকের বাক স্বাধীনতা হরন করার দাবি দেখে আসলেই দুঃখ হয় এরা কোন শতাব্দির লোক? এদের ভারতেও হিন্দুদের মধ্যেও দেখেছি। তবে ইসলামে এই ধরনের ডাইনোসরদের সংখ্যা অন্যধর্মের চেয়ে বেশী-সেটাও ঠিক।

ধর্মের মুখোশ এই ভাবে বেশীদিন আটকে রাখা যাবে না। ধর্মের আসল মুখ রাজনৈতিক ক্ষমতালিপ্সু কিছু অসৎ লোকের-আর মুখোসটা হচ্ছে মানবিকতা, নৈতিকতার নামাবলী। কোরান এবং গীতা পড়লে এটা ভালো বোঝা যায়। তখনকার সময়ে রাষ্ট্র গঠনে এসবের দরকার ছিল-সেটা মেনে নিতে আমার আপত্তি নেই। কারন তা সত্য। কিন্ত বর্তমানে ধর্মের নামাবলী চাপিয়ে ক্ষমতাদখলের রাজনীতি যারা করছেন-তাদের জেলে না ঢুকিয়ে-সাহসী সম্পাদকদের কেন জেলে ঢোকানো হবে-সেই প্রশ্নের উত্তর কিন্তু ভবিষ্যত চাইবে।

About the Author:

আমেরিকা প্রবাসী আলোক প্রযুক্তিবিদ ও লেখক।

মন্তব্যসমূহ

  1. মানস মার্চ 2, 2009 at 8:53 পূর্বাহ্ন - Reply

    যে ভয়ানক সত্যটি আলোচিত হয়নি, তা হল, পশ্চিম বাংলার এবং ভারতের সকল পত্র পত্রিকার সম্পাদকরা এবং সাংবাদিকরা ব্যাপারটা চেপে গেছেন। একজন সম্পাদকের গ্রেফতারের প্রতিবাদ করার যে ন্যুনতম প্রফেসনাল দায়িত্ত সেটুকু পালন করার সাহস ও কোন পত্রিকা সম্পাদক দেখায় নি। কংগ্রেস, সিপিএম, তৃণমূলের মতন বিজেপি ও সেকুলার হয়ে চুপ থেকেছে। মোদ্দা কথা হল এর পর স্টেটসম্যান আর মুসলমানদের ঘাটাতে যাবেনা। পশ্চিমবাংলার শিল্প সাহিত্য সাংবাদিকতার মাপকাঠি এখন নিয়ন্ত্রণ করেন দুই ইমাম – নাখোদা মসজিদ ও টিপু সুলতান মসজিদ থেকে। আনন্দবাজার থেকে ‘গণশক্তি’ সবাই এটা মেনে নিয়েছেন। পশ্চিমবাংলাকে এখন পশ্চিম বাংলাদেশ বললে অন্যায় হবে না।

  2. biplab ফেব্রুয়ারী 26, 2009 at 8:52 পূর্বাহ্ন - Reply

    I thank Biplob for his article in Mukto-Mona. It would have been good to know, why Biplob thinks that quranic or geeta laws were to some extent necessary during that period (when quran or geeta were written). I think, any evil law (all religious laws) may bring some stability in some society for some time by oppression, however, we should not say that these oppressive laws were good or necessary for that society for some time.

    I have explained that in the Bengali article:

    http://biplabpal2000.googlepages.com/Businessofreligion.pdf

    While asking this question-what is good or bad, the objective of that law must be asked. And that objective was reproductive fitness of the society-what social laws would make a society more fit against disease, political instability, invasion of foreigners etc. Matter of fact, during Buddhism in India, medical science excelled, but military depleted-which led to invasion of Islam. Gradually Islamic culture dominated India because it was militarily superior and socially more cohesive compared to Hinduism.
    http://blog.mukto-mona.com/?p=946

    Therefore, the question of good or bad, has to be looked on as to what culture was selected over other and survived and why? Without that question being answered, we will have half understanding of religion and its force. It will be difficult for us to beat religious force, if we do not understand what historical purpose it served.

  3. sajjad ফেব্রুয়ারী 25, 2009 at 9:54 অপরাহ্ন - Reply

    I thank Biplob for his article in Mukto-Mona. It would have been good to know, why Biplob thinks that quranic or geeta laws were to some extent necessary during that period (when quran or geeta were written). I think, any evil law (all religious laws) may bring some stability in some society for some time by oppression, however, we should not say that these oppressive laws were good or necessary for that society for some time.

    Sajjad
    Canada

  4. biplab ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 8:04 পূর্বাহ্ন - Reply

    রোগটা এক হলেও মাত্রায় বিস্তর পার্থক্য। আসলে একজন ঈশ্বরচন্দ্র, একজন রামমোহন, একজন বিবেকানন্দ মুসলমান্দের খুব দরকার।

    মুসলিম সমাজে মুতাজিলরা অনেক দিন আগে থেকেই এসেছে-জালালুদ্দিন রুমিও ১২ শতাব্দিতে এসেছে। রেনেসাস মুসলিমদের মধ্যেই আগে এসেছে-কিন্তু ওই যে বল্লাম রাজনীতি এবং সমাজ থেকে ধর্ম আলাদা হতে পারে না-সেই কারনেই সেই রেনেসার হারিয়ে গেছে। ইউরোপে রেনেসাস কেন টিকলো? কারন ওই রেনেসাস থেকেই মারাত্মক উন্নততর অস্ত্র আর নৌবিদ্যা শিখল ওরা নতুন বিজ্ঞান আর প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে। বাঙালী হিন্দুদের মধ্যে রেনেসাস কেন এল? কারন ইংরেজী শিক্ষাই শিক্ষিত হলে-ভাল চাকরী পাওয়া যাচ্ছিল-বৃটিশরাও এই উদার বাবুদের পছন্দ করতেন লয়ালিটির জন্যে। ভালোবাসাটা মিউচুয়াল ছিল!

    এটাই মুসলমান বিশ্বের সমস্যা সেখানে রেনেসাস ব্যক্তিত্বের কদর নেই-কারন সবইত কোরানে লেখা আছে! যারা কোরানে বিজ্ঞান খুঁজে পায় সেই সব ছাগলরা যদি একটা সমাজের হিরো হয়, তাহলে সেই সমাজে রেনেসাস ব্যাক্তিত্ব বা নতুন আলো আসবে কি করে? এই সমস্যাটা হিন্দুদের মধ্যেও আছে-তবে ব্যাতিক্রমের সংখ্যাও বেশী আছে। সেটাই ইসলামিক বিশ্বের মূল সমস্যা হয়ে যাচ্ছে। প্রকৃত পন্ডিতদের ছেরে জাকির নায়েক, সমসের আলিদের কদর বেশী সেখানে। ভারতেও বালক ব্রহ্মচারী, বাবা লোকনাথ, রবিশঙ্কর জনপ্রিয় -কিন্ত এক্যাডেমিক্স বা পন্ডিত মহলে তাদের কেও পাত্তা দেয় না। ফলে এরা ইন্টেলেকচুয়াল ডিসটার্বান্স নয়–

    • পলাশ ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 10:38 পূর্বাহ্ন - Reply

      @biplab,

      কিন্ত এক্যাডেমিক্স বা পন্ডিত মহলে তাদের কেও পাত্তা দেয় না

      ISRO-er পন্ডিত মহল কিন্তু প্রচন্ড ধার্মিক

      http://www.sachalayatan.com/diganta/16102

      • biplab ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 1:03 অপরাহ্ন - Reply

        @পলাশ,

        হিন্দু বিজ্ঞানীদের ৫৫% ঈশ্বরে বিশ্বাস করে। ইসলামিক বিশ্বে সেটা ৯০% এর ওপরে।

        • Avijit ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 9:16 অপরাহ্ন - Reply

          @biplab and @palash,

          আমার মনে হয় বিষয়টাকে হিন্দু- মুসলিম বিতর্কের দিকে ঠেলে না দেওয়াই ভাল। ওভারঅল তৃতীয় বিশ্বের অবস্থাই খুব নাজুক। ধর্ম থেকে বিজ্ঞানকে আলাদা করতে না পারার, কিংবা এই ধরনের দর্শন সম্বন্ধে কোন ভাল জ্ঞান না থাকার ফল এই হয়। সেই জন্য কোরানের মধ্যে বিগব্যাং খোঁজা শমশের আলীও আমরা যেমন দেখি তেমনি আমরা দেখি কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধএর উপকথাকে এটোমিক ওয়ার বানানোর মত ছদ্মবিজ্ঞানীদেরও।

  5. biplab ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 7:51 পূর্বাহ্ন - Reply


    Talat,
    Modernism is misunderstood term. I will not be worried whether a woman is wearing a bikini or Burkha-all we need to make sure, whether she is taking decision rationally or swept away by belief.

    It is hard for me to believe human beings and a state can survive on faith-because decision making is needed at every moment. And if those decisions are not rational, a person will simply sink.

    Therefore, when people show up, put up their faith-there are other rationality than pure rationality of existence of Allah. And that is-they want to be accepted as ‘social being’. Yes, lot of Muslim students come to USA as faithful-but how many of them remain religious for long? Look out-not many. Most of them soon realize, being religious means he will be avoided by society and without social networking, his career is no good-besides, religious people do not do well in career in any way-loss of rationality forces them to make too many mistakes.

    Even in India, intellectual sphere is consisting of atheists or agnostics. In Bangladesh, too, true intellectuals are always atheists or agnostic.

    Therefore, as the time will pass, and the people will be forced to take decision rationally, you would see atheism would emerge automatically. Atheism works only in pure jungle and pure competition where you have to survive each moment on your own intellect. In human society, we have made a too comfortable system for the people, where they can follow the faith and not their intellect and yet they can survive. This happened because it helped in reproductive fitness of the society. In capitalism, this comfort zone goes away and a person tends to be more rational. That is only way to change from practice.

  6. Truthseeker ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 7:39 পূর্বাহ্ন - Reply


    To Mr.Biplab,

    I heard from my uncle that once Dr. Murli Manohar Joshi (of BJP. I guess he was a science and technology minister) said that if expecting women eat some specific herbal stuff, then the newborn baby will be a boy :))

  7. Truthseeker ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 7:28 পূর্বাহ্ন - Reply


    Hi Banglababa,

    Relax. Relax. Take a chillpill! Watch the religion based comedy.
    http://www.anandautsav.com/anandautsav/jsps/mahishasurpala/mahishasur.jsp

    http://anandutsav3.tripod.com/

    Hope the above links work, otherwise you are going to behead me :))

    http://www.youtube.com/watch?v=HTyGDLnvI7Y

    I got to go.

  8. banglababa ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 4:08 পূর্বাহ্ন - Reply


    You need an expert/dada from west bangle to approve/disapprove as to how students of private university in Bangladesh should dress/behave? The sheer absurdity of such mindset speaks volume of metal bankruptcy of the people of this unfortunate land. I advise you pack your bag and move to wb.

  9. Talat ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 5:18 অপরাহ্ন - Reply


    Biplobda,

    what’s the medicine of the deasease u mentioned ? We need a cure.

    For example, students of my university (North South University) r generally considered the most “modern” and “advansed” in the whole country. Actually most of them come from the elite class families. They regularly follow western culture. Their dress-up, their movement, their way of verbal communication. their way of life, thier eating habbit, their thoughts- all reflect as if they themselves r western people. They always try to show off themselves in that way. But surprisingly, they respect religious people. They go to jummra prayer on friday. They stop listening song during the ajan. They say ” chi chi chi” (in bangla) when hear the word”sex”. Very few female students come to classes wearing top to bottom veil. Only their eye r kept open. Students praise them saying ” O she’sa good girl.. wearing veil.. islam has given rights to women… women can do everything doing porda” 🙂 Girls who dont wear veil/hijab r not considered awkwardly but those who wear veil/hijab always get extra respect, extra honour which reflects students’ weakness to religion.

    There’s a sports club in this university. i never saw any female member of that sports club. It has been a convention that sports club is only for boys. The question why females dont be the member of sports club – never comes in the mind of so called “modern”, “advansed” ” western culture follower” students of this university. They make laugh when they hear about women’s sports. But they claim themselves “very fast,very conscious”.

    i’ve become a new member of the “earth club” in this university. The new members of this club were asked to introduce themselves and say a word which relates to their characteristics on the orientation day. One student said the word “religious”. Within a moment, all the students gave a big hand for his being religious. See, still now u can get a big hand for being religious in this society. i was really surprised to see their love and affection to religion although they dont follow a single rule of religion. Religion didnt solve their problems. They couldn’t lead the life they r leading if they follow their loving religion and they realise it very well. But despite that, i dont know why, they r weak about religion for a myterious, unknown reason. May b it’s the socialisation process, the process in which we’ve been grown up.

    One thing also needs to be mentioned that (it’s my own perception, i dont know what the others will say) i think bengali people r by born narrow minded. They r naturally narrow and religion makes them narrower. Their narrow view, narrow mentality hardly change as much as they pretend to be “western”. So far i’ve seen in this society, i’ve realised this. what do u think, Biplobda ? r the westerners also same?

    These may sound irrelevant to the above article. But i think u might guess the similarities .

    • সাধু ফেব্রুয়ারী 24, 2009 at 7:37 পূর্বাহ্ন - Reply

      মাইরের উপরে আর কোন ভাল ওষুধ দেখি না !

    • অনিরুদ্ধ রায় ফেব্রুয়ারী 26, 2009 at 12:41 অপরাহ্ন - Reply

      @Talat,
      NSU-r ছেলেদের elite class বলছেন কোন যুক্তিতে? ৯২% student এর বাপ ঘুশখোর, চোরাকারবারী, ব্যবসায়ী। এরা elite?

      • Talat মার্চ 3, 2009 at 12:18 পূর্বাহ্ন - Reply

        @অনিরুদ্ধ রায়,

        sorry! আসলে আমি elite class বলতে বুঝিয়েছি পয়সাওয়ালা, বিপুল ধন-সম্পত্তির মালিক গোষ্ঠিকে। ক্ষমা করবেন আমার ইংরেজী জ্ঞান কম বিধায় ভেবেছিলাম elite মানে অভিজাত গোছের কেউ। আপনার জবাব এর পর ডিকশনারী ঘেটে দেখলাম elite শব্দের অর্থ “select or the best part” ( বাছাই করা বা সেরা অংশ) অর্থাৎ আমি বোঝাতে চাইছি সমাজে সাধারনত যারা উচ্চবিত্ত বা যাদের আমরা সাধারনত অভিজাত শ্রেণীর মনে করি তারা। এ গোষ্ঠির ধন-সম্পদের উৎস কোথায় তা একটি ভিন্ন বিতর্ক। তবে তাদের সন্তানেরা সবসময় অনেক সূ্যোগ-সুবিধা ও উন্নত পরিবেশে বড় হয়। তাই সেই সন্তান্দের কাছে আমার উচু প্রত্যাশা ছিল। কিন্তু বিধি বাম!

  10. Atiq ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 3:41 অপরাহ্ন - Reply

    রোগটা এক হলেও মাত্রায় বিস্তর পার্থক্য। আসলে একজন ঈশ্বরচন্দ্র, একজন রামমোহন, একজন বিবেকানন্দ মুসলমান্দের খুব দরকার।

    • Truthseeker মার্চ 4, 2009 at 8:56 পূর্বাহ্ন - Reply

      @Atiq,

      Hi Atiq,

      You can watch the video on a discussion between Irshad Manji and Salman Rushdie at the 92nd Street Y. It was held at New York University. It is long, patiently listen the one hour thirty eight minute video discussion. It will address many of your questions in your mind.

      http://www.youtube.com/watch?v=lc60ro81dIw

      Irshad Manji has tried to pick up good things from quran to handle (argue against) the negative things of quran and hadith. Irshad has written a book “The Trouble with Islam Today: A Muslim’s Call for Reform in Her Faith”.

      1. Another book.

      “Defending the West: A Critique of Edward Said’s Orientalism” written by Ibn Warraq

      In that discussion Irshad mentioned that few youths in USA wrote a book in order to reform islam, and publish a book. But the publishers finally decided not publish the book due to the probable backlash from islamic community.

      If someone writes about the negative aspects of islam, then that person is considered as racist, kafir, enemy of peaceful religion etc. Violent reactions, death threats etc come. That’s why reformation and reformers do not come.

      If you like you can visit the website:

      http://www.centerforinquiry.net/isis

      http://www.youtube.com/watch?v=2lTjhxBk_b8

      http://www.youtube.com/watch?v=lYDdgG9U36o

      http://www.youtube.com/watch?v=jfzYLVe2-W8

      http://www.youtube.com/watch?v=v3nNR2tnb9Q

      Thank you for your good attitude and good mindset.

  11. banglababa ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 12:37 অপরাহ্ন - Reply


    The face that prothom-alo decided to publish such junk from next door big brother Kolkata speak volume to their subservient mindset. but..

    I bet my bottom dollar to you pseudo non-muslim India loving supremacist that any Hindu or shikh in India is any bit tolerant than your average Bangladeshi ( this “truthseeker”guy is very fond of vilifying). I dare you to show me that your average Hindus in India are more fair minded and “tolerant” bunch as you so conveniently claim . shama on you. :reallypissed:

    • Truthseeker মার্চ 2, 2009 at 2:09 অপরাহ্ন - Reply

      @banglababa,

      Watch the video on a discussion between Irshad Manji and Salman Rushdie at the 92nd Street Y. Its long, patiently listen the one hour thirty eight minute video discussion. It will address many of your questions in your mind.

      http://www.youtube.com/watch?v=lc60ro81dIw

      Irshad says she is a muslim (I think She is Shia Agha Khani community), and tries to pick up good things from quran to handle (argue against) the bad things of quran and hadith. Irshad has written a book “The Trouble with Islam Today: A Muslim’s Call for Reform in Her Faith”. Go to the website,

      http://www.amazon.com

      and search for the book.

      Please see other books also.

      1.

      “Defending the West: A Critique of Edward Said’s Orientalism” written by Ibn Warraq

  12. biplab ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 9:17 পূর্বাহ্ন - Reply

    I talked to these people. They all think Quran is science, Quran is perfect, Islam is peace, Islam is tolerant, and Islam is the best. In every discussion there is frequent use of Alhamdullillah, Insallah etc. Hope for the best and prepare for the worst.

    শিক্ষিত মুসলমানদের অনেকের ব্যাবহারে ধর্মীয় প্রভাব খুব বেশী থাকলেও খেটে খাওয়া মানুষ মোটেও অতটা ধার্মিক না। সেটা কোন ধর্মেই না। আর সেটাই আশা-ভরসার জায়গা। আই আই টীতে বুয়েটের যেসব অধ্যাপকরা পি এইচ ডি করতে আসত-তাদের ধর্মীয় ব্যাবহারে ভারতীয় মুসলমানরা পর্যন্ত হাঁসাহাসি করত। আমার পাশের রুমে সিভিলে একটা মুসলিম ছেলে পি এই চডি করত-তাকে বুয়েটের এক লেকচারার যে মেকানিকালে পি এইচ ডী করছিল-আল্লার অস্তিত্বের গণিতিক প্রমানের এক পেপার পাঠায়। ও আমায় লুকিয়ে বলল বাংলাদেশের গণিত শেখায় কি আল্লার অস্তিত্বের প্রমান করার জন্যে??

    আসলে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। কোরানই বলেছে ধর্ম নিয়ে বাড়াবারি কম করতে আবার কোরান জুরেই এই কর-আর করোনার উপদেশ। ফলে লোকেরা বিভ্রান্ত হয়েছে। ধর্মটা যদি এরা ইতিহাস এবং সমাজবিজ্ঞানের পরিপেক্ষিতে শিখত-কোরানের আয়াতগুলো আরো ভাল বুঝত এবং এই রকম অন্ধ মন তৈরী হত না। সত্যি মুসলিম বিশ্বের দিকে তাকালে অবাকই লাগে-মনে হয় এইসব দেশে বিজ্ঞান শিক্ষা দেওয়া হয় আল্লার অস্তিত্ব প্রমান করতে।

    তবে এই ব্যাপারে ভারত এবং হিন্দুরাও খুব কম যাচ্ছে না। বিজেপির সময়ে মুরালী
    মনোহর জোশী পাইকেরী রেটে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভেডিক বিজ্ঞান খুলতে চেয়েছিলেন। সেই একই রোগ।

  13. Truthseeker ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 8:30 পূর্বাহ্ন - Reply


    I agree with Talat. I met with Ph.D. degree holders from Bangladesh. Most of them did Ph.D. from Japan and then came to USA to continue research. Only very few of them did and doing Ph.D. in USA. I talked to these people. They all think Quran is science, Quran is perfect, Islam is peace, Islam is tolerant, and Islam is the best. In every discussion there is frequent use of Alhamdullillah, Insallah etc. Hope for the best and prepare for the worst.

  14. Truthseeker ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 8:17 পূর্বাহ্ন - Reply


    To Mr.Biplab,

    You write your articles with a goodness of your heart to promote humanity. There are fanatic people in all belief systems. But, here all the readers of Prothom Alo, who commented have similar opinion including the newspaper itself. Winning of election of Awami League does not reflect the liberal/open-minded rational mentality of the majority people of Bangladesh. Mr. Biplab, You never lived in an islamic country/muslim majority (practicing or, non-practicing) country. When it comes to critical analysis of religion, then muslims are very sensitive, rigid and narrow-minded. Now, Mr.Biplab you saw the reality and hence the proof.

    “Freedom of speech” is really a joke in islamic countries 🙂

    The identity of a tree is reflected in its fruit. Is it due to Islam? Are muslims victim of islam/political islam?

    Confusing!

    Bye.

  15. biplab ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 6:44 পূর্বাহ্ন - Reply


    The fact that those comments came form Protham Alo readers is definitely hurting-then what is the difference between Jamat and progressives. Not that situation on other side is any better-I have seen more pseudoseculars than seculars.

  16. Talat ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 3:52 পূর্বাহ্ন - Reply


    i completly agree with Truthseeker. Those comments r written by the educated, coscious citizens of Bangladesh. That’s the most hurting thing. If the privileged, conscious citizens of the country can comment in such a dogmatistic, irrational way, what would be the situation in case of the common people? Prothom Alo is considered the most progressive and prominent newspaper in Bangladesh. Accordingly, its readers can also be mentioned as “progressive”( although i’m doubtful about that now seeing those comments) But what have our so called progressive citizens commented? They opposed that editor’s article indiscriminately. They forgot to realise the freedom of speech of a person. They wanna keep islam in deep freeze. So that nobody can handle it or raise questions about it. Then why do we always blame jamat? r these so called progressive people very different from jamat? i think these people r more dangerous than jamat. They r masked. Surprisingly these people always claim themselves as “oshamprodayik bangali, mukti juddher chetonae bissasi”. But do their comments prove that they really beleive in this spirit?

    After all, the fact is most of the bangladeshi people’s mindset is still very narrow.

    • Truthseeker মার্চ 2, 2009 at 2:06 অপরাহ্ন - Reply

      @Talat,

      Hi Talat,

      Watch the video on a discussion between Irshad Manji and Salman Rushdie at the 92nd Street Y. Its long, patiently listen the one hour thirty eight minute video discussion. It will address many of your questions in your mind.

      http://www.youtube.com/watch?v=lc60ro81dIw

      Irshad says she is a muslim (I think She is Shia Agha Khani community), and tries to pick up good things from quran to handle (argue against) the bad things of quran and hadith. Irshad has written a book “The Trouble with Islam Today: A Muslim’s Call for Reform in Her Faith”. Go to the website,

      http://www.amazon.com

      and search for the book.

      Please see other books also.

      1.

      “Why I Am Not a Muslim” written by Ibn Warraq

      2.

      “Defending the West: A Critique of Edward Said’s Orientalism” written by Ibn Warraq

      3.

      “Leaving Islam: Apostates Speak Out” written by Ibn Warraq

      Thanks.

  17. suman ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 2:12 পূর্বাহ্ন - Reply

    ধার্মিকরা অন্ধ ঘোড়ার মত ছুটতে থাকে, কিছুই মানতে চায়না। অনেকে আছে যারা না বুঝে হুদাই ফাল পারে। না বোঝার দলের কাছে মুক্তমনাকে পৌছুতে হবে। অনেক বিবেক সম্পন্ন ব্যাক্তি আছেন যাদের নাস্তিকতা এবং যুক্তিবাদের জ্ঞান শুন্যের কোঠায়। পৌছুতে হবে তাদের কাছেও। নইলে এমনটা ঘটতেই থাকবে অনন্তকাল। ধন্যবাদ বিপ্লব পালকে।

  18. Truthseeker ফেব্রুয়ারী 23, 2009 at 12:00 পূর্বাহ্ন - Reply


    Hi Mr. Biplab,

    You have seen that in Prothom-Alo all the readers’ comments go against the Author and against publishing the article. Now, you understand the mindset of most of the people of Bangladesh, and any islamic country in that matter. The few educated progressive reformist minded people from Bangladesh who think logically and write in Mukto-Mona, hats off to them; they are really great people. They are fortunate that they have come out of the narrow religious vision and look at the issues from logical and humanitarian point of view.
    These few people are in a boat against the tide in their own country. Thanks to Mukto-Mona for their effort. It may seem simple in that west, but pursuing this type of work in a muslim
    (practising or, non-practising) majority country is really very challenging.

মন্তব্য করুন