ডারউইন দিবস ২০০৯ : পাঠকের প্রতিক্রিয়া (Feedback)

ডারউইন দিবস ২০০৯ উপলক্ষে আমরা আমাদের মুক্তমনা ওয়েবসাইটকে বিশেষভাবে সাজিয়েছি। যারা আমাদের আহবানে সাড়া দিয়ে লেখা পাঠিয়েছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।  সাইটটি কেমন লাগলো ?

ডারউইন দিবস ২০০৯

 

 

 

নীচে আপনার প্রতিক্রিয়া দিন

মুক্তমনা মডারেটর

About the Author:

অভিজিৎ রায়। লেখক এবং প্রকৌশলী। মুক্তমনার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। আগ্রহ বিজ্ঞান এবং দর্শন বিষয়ে।

মন্তব্যসমূহ

  1. Shahidur Rahman Sikder জুলাই 8, 2009 at 5:15 পূর্বাহ্ন - Reply

    “Charles Darwin wasn’t always right”

    Pensive it mentioned below the little serving as an example of evolution and see how is theory of evolution zoologist Darwin between me:

    On reflection of big bang theory such as; “Beginning of the creation a part of the power of the nature became divisible as a result of the big bang”. In this way; as I see it that our Universe was born in a black hole i.e. the universe may have been created by an explosion within a black hole through that part of power of the nature i.e. universe come from in single black hole or big black hole.

    On reflection of evolution theory of the universe such as: “Everything of the world of matter is the result of evolution from single dimension” i.e. revolving of the sole level picture and evolution of picture or advent of multilateral matter as a result of change. The changing function of everything in the universe is going on always and the present scenery was not similar with past and also will not resemble with the future. When the velocity of the energy reduced then the changes began in the attraction of gravitation of the primordial black hole. Moving of the sole power or change occurred as a result of the touch of speed and rolling in the specific dimension from becoming slow and from rolling, the combination of different material world in the different dimension of the evolution. Consequently, lawfully as I see it, in the information provided by the theory of evolution zoologist Darwin, there is no similarity thought about the enigma of creation. Scientist doesn’t research for our universe condition i.e. Darwin doesn’t know in our universe is everything is the evolution from single dimension.

    See into- http://www.universalrule.info/evolution.html

    See the light- http://www.flickr.com/photos/[email protected]/3687086642/

    • অভিজিৎ জুলাই 10, 2009 at 1:32 পূর্বাহ্ন - Reply

      @Shahidur Rahman Sikder,

      Consequently, lawfully as I see it, in the information provided by the theory of evolution zoologist Darwin, there is no similarity thought about the enigma of creation. Scientist doesn’t research for our universe condition i.e. Darwin doesn’t know in our universe is everything is the evolution from single dimension.

      Darwin’s theory of evolution does not deal with the origin of Universe, not even origin of Life.We have some sound theory in astrophysics such as Inflamation – explaining how universe might have originated thru quantum fluctuation in complete chaos (see for example, E.P. Tryon, “Is the Universe a Vacuum Fluctuation?”, Nature 246 (1973): 396-97, || or Alexander Vilenkin, “Creation of Universe from Nothing” Physics letters 117B (1982) 25-28, || or Andre Linde, “Quantum creation of the inflationary Universe,” Letter Al Nuovo Cimento 39(1984): 401-405 etc. )or Steinhardt and Turok’s “cyclic universe” model, in which our Big Bang is just one act in an eternal cycle of expansion and contraction. Darwin’s theory does not deal neither with origin of universe, nor with origin of life. Evolutionary theory deals mainly with how life changed after its origin. Check it out:

      http://evolution.berkeley.edu/evosite/misconceps/IAorigintheory.shtml

      You can also read Bonna Ahmed’s Bangla book – “Bibortoner Poth Dhore” to get the main concept.

      • Mithoon জুলাই 12, 2009 at 9:39 অপরাহ্ন - Reply

        প্রিয় অভিজিৎ দা,

        আমি আপনার লেখার দারুন ভক্ত। বিবর্তন সম্পর্কে আমি বলতে গেলে এই সেদিনও কিছুই জানতাম না। আমার জীবনে ঘটে যাওয়া খুব কষ্টদায়ক একটা ঘটনার কারনে নিদারুন ক্রিটিক্যাল এক মুহুর্তে আমি মুক্তমনার সন্ধান পাই। বলতে গেলে মুক্তমনার আপনিই প্রথম যার কাছ থেকে আমার যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর আমি তখন পেয়েছিলাম। খুব বেশী দিন আগের কথা না। মাত্র ৪/৫ মাস আগের কথা। মুক্তমনাই প্রথম আমাকে বিশ্বাসের ক্ষতিকর ভাইরাসটিকে চিনতে সাহায্য করেছিল। মুক্তমনার সংস্পর্ষে আসার পর ধীরে ধীরে আপনার এবং বন্যাদির কল্যানে আমি বিবর্তন বুঝতে শুরু করি। আমার জীবনে এত বড় একটি উপকার করলেন (শুধু আমার জীবনেই নয়, আমার পরবর্তী বংশধরদেরও), আজ এতদিন বাদে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে পেরে আমি যারপরনাই আনন্দিত। জীবনের দু:খময় সেই স্মৃতি (যা আমাকে আজীবন কাদাবে) আর মুক্তমনার কল্যানে আমার এই বদলে যাওয়া এগুলো গল্প আকারে লেখার ইচ্ছা আছে। কিন্তু সময় করে উঠতে পারছিনা। লেখা পাঠালে ছাপবেন তো?

        আপনার কাছে একটি বিষয়ে একটু পরিষ্কার হতে চাচ্ছিলাম। cyclic universe model টি যদি সত্যি হয় তবে আমরা কি অসীম চক্রের ধাধার ভিতরে পরে যাবনা? অসংখ্য বার contraction and expansion এর যেকোন একটি বারে আমাদের এই অস্তিত্ব। তাহলে এই চক্রের শুরু কিভাবে? শেষ ই বা কোথায়?

        • অভিজিৎ জুলাই 13, 2009 at 9:59 অপরাহ্ন - Reply

          @Mithoon,

          আপনি যেমন আমার লেখার ‘ভক্ত’ তেমনি আমি আপনার যুক্তিশীল মন্তব্যের দারুন ভক্ত। আপনার সাবলীল এবং যৌক্তিক উপস্থাপনা সত্যই অনেকেরই কাছেই শিক্ষনীয় হতে পারে। আপনার জীবনের দুঃখময় সমৃতির জন্য সমবেদনা প্রকাশ করছি। আমি সত্যই জানিনা আপনার জীবনে কি ঘটেছিলো, শুধু কামনা করব আপনি চলার পথে আরো দৃঢ় হয়ে উঠুন।

          আপনি অবশ্যই লিখবেন। লেখা মনোনীত হলে অবশ্যই ছাপানো হবে। আপনার জন্য বাংলা এবং ইংরেজীতে ব্লগ একাউন্ট খোলা হচ্ছে। আপনি এসংক্রান্ত ম্যাসেজের জন্য আপনার ইমেইল চেক করুন।

          সাইক্লিক ইউনিভার্স মডেল সম্বন্ধে আসলে অল্প কথায় এখানে বলা খুব কঠিন হবে। আপনি যে প্রশ্নটি করেছেন, তার উত্তরে বলা যায়, পল স্টেইনহার্ডট এবং নেইল টুর্ক প্রস্তাবিত সাইক্লিক মডেলে চক্রের কোন শুরু বা শেষ নাই। এ এক অনন্ত মহাবিশের মডেল। এ বিষয়টিকে ধারনা করা আমাদের জন্য কঠিন কারণ আমাদের মস্তিস্ক যে বিবর্তনের বন্ধুর পথে সৃষ্ট হয়েছে তা এ ধরনের অসীমত্বকে কল্পনা করতে পারে না। আমাদের ব্রেন কল্পনা করতে পারে না বলেই বিষয়টা মিথ্যে হবে সেটি ভাবারও কোন যুক্তিনিষ্ঠ কারন নেই। আমাদের ব্রেন গোলাকার পৃথিবী, আনবিক জগৎ, টাইম ডায়ালেশন, কিংবা স্ট্রিং তত্ত্বের এগারো মাত্রার জগৎ – এগুলো অনেক কিছুই সহজে ধারণ করতে পারে না। আসলে আমরা খুব দুর্ভাগ্যজনকভাবে ছোট পরিসরের পার্থিব বিবর্তনীয় স্রোতধারার আবর্তে বন্দি। তারপরও অনন্ত এই মহাবিশকে কিছু উদাহরণ দিয়ে ব্যাখ্যা করা যায়। সহজ কথায় বলতে গেলে এই মডেল হচ্ছে এক বৃহৎ মোটা বই, যার প্রথম পাতা বা শেষ পাতা বলে কিছু নেই (কিংবা থাকলেও তা আমরা জানি না)। কিন্তু বইয়ের প্রতিটি পাতা অর্থাৎ একেকটি চক্র কিভাবে তৈরি হয়েছে তা আমরা জানি। সাইক্লিক মডেল বলে – একেকটি চক্র তৈরি হয় স্ট্রিং তত্ত্বের প্রস্তাবিত দুটি ব্রেনের ক্রমিক সংঘর্ষে। প্রায় ১৩.৭ বিলিয়ন বছর আগে এমনি দুটি ব্রেনের সংঘর্ষে তৈরি হয়েছিলো বিগ ব্যাং এবং তার ফলশ্রুতিতে আমাদের এই দৃশ্যমান তিন মাত্রার বিশ্বজগত। তবে সেই বিগ ব্যাংই শেষ কথা নয়, নয় সবে ধন নীল মনি। বিজ্ঞানীরা বলছেন – ট্রিলিয়ন বছর পরে আবারো হবে এধরনের সংঘর্ষ, আবারো হবে ‘বিগ ব্যাং’ – আর তা তৈরি করবে নতুন কোন মহাবিশ্বের ক্রমিক ভিত্তি। এই সংঘর্ষের শুরু নেই, শেষ নেই – কাজেই মহাবিশ্ব তৈরির প্রক্রিয়ারও শুরু বা শেষ নেই। আপনি আরো বিস্তারিত জানতে চাইলে ‘Endless Universe: Beyond the Big Bang ‘ (2008) বইটি পড়ে দেখতে পারেন।

          অনেক ধন্যবাদ আলোচনার জন্য।

  2. দিগন্ত মে 15, 2009 at 9:56 পূর্বাহ্ন - Reply

    আমি তো অনেক বন্ধুকেই লিঙ্ক পাঠালাম। সাইটটা সুন্দর হয়েছে।

  3. রিফাত ফেব্রুয়ারী 25, 2009 at 12:30 পূর্বাহ্ন - Reply

    জটিল হইছে….াওনেক অনেক কিছু জানতে পারলাম….মুক্তমনাকে ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করতে চাইনা…ভবিষ্যতে আরও লেখা চাই…

  4. Akash Malik ফেব্রুয়ারী 20, 2009 at 8:55 অপরাহ্ন - Reply

    অভুতপূর্ব আয়োজন। ‘মুক্ত-মনা’ আমাদের নতুন প্রজন্মকে জীবন ও জগত নিয়ে নতুনভাবে ভাবতে প্রেরণা যোগাবে। হাতের কাছে (অনন্ত বিজয় দাসে’র পাঠানো উপহার) নারায়ণ সেনের ‘ডারউইন থেকে ডি এন এ, এবং চার’শো কোটি বছর’ আর আখতারুজ্জামানের ‘বিবর্তনবাদ’ পড়ছি, একই সাথে কম্পিউটার স্ক্রিনে ‘মুক্ত-মনা’র এই বিশাল আয়োজন দেখে বারবার মনে হয়েছে সেদিন বেশী দূরে নয়, বিশ্বের বেশির ভাগ মানুষের কাছে ডারউইন এর ‘বিবর্তনবাদ’ মানব রচিত জগতের সকল ধর্মগ্রন্থ মিথ্যা প্রমানিত করে দেবে আর এই পথ ধরেই একদিন পৃথিবী থেকে সকল ধর্ম বিলীন হয়ে যাবে। ‘মুক্ত-মনা’কে অশেষ ধন্যবাদ।

  5. আসিফ ফেব্রুয়ারী 19, 2009 at 11:59 অপরাহ্ন - Reply

    ডারউইন দিবস নিয়ে মুক্তমনার আয়োজন অবশ্যই প্রসংশার দাবিদার। আমি আশা করব যে ভবিষ্যতেও মুক্তমনা বিজ্ঞান সম্পর্কিত র্বিভিন্ন দিবস সম্পর্কে আমাদের সচেতন করবে এবং জ্ঞান বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।

  6. jahid_Russel ফেব্রুয়ারী 19, 2009 at 8:43 পূর্বাহ্ন - Reply

    Very well selected video collection,specially Richard dawkin’s documentary has made the collection rich.Thanks.

  7. Keshab K. Adhikary ফেব্রুয়ারী 18, 2009 at 12:12 অপরাহ্ন - Reply

    মুক্তমনা কে ধন্যবাদ, অনেক অনেক অনেক । আমার লেখাটা পোষ্ট করার জন্যে । যেখানে অসংখ্য গুরুত্বপূর্ন লেখা, সেখানে এই অখ্যাত কর্মটির যায়গা দেয়ায় আমি কর্তৃপখ্খের কাছে কৃতঙ্গ । প্র্যাকটিসের প্রত্যাশা রইলো ।

  8. Syed Kamran Mirza ফেব্রুয়ারী 18, 2009 at 8:01 পূর্বাহ্ন - Reply

    I have seen your great blog of Darwin day celebration in MM. Thanks for posting my article there along with very many good write-ups on Darwin’s evolution theory. This is really great collection of writings on the evolution for the readers. I hope to read them all. Good job by MM.

    Thanks again.

    SKM

  9. Mia Saheb ফেব্রুয়ারী 18, 2009 at 7:17 পূর্বাহ্ন - Reply

    খালেদা জিয়ার জন্মদিন সংক্রান্ত লেখাটি এই সংখ্যায় মানায় না। ওনার জন্মদিন সত্যি সত্যি ১৫ই অগাস্ট হলেও উনি জন্মদিন একদিন আগে বা পরে সেলিব্রেট করে সৌজন্যবোধের পরিচয় দিতে পারতেন।

  10. Mia Saheb ফেব্রুয়ারী 17, 2009 at 8:58 পূর্বাহ্ন - Reply

    আকরষণীয় পরিবেশনা। বাংলা ওয়েব ম্যগাজিন ডিজাইনে একটা অনুকরণীয় নমুনা হয়ে থাকবে। দেখলে যে কোন পাঠক/ দরশক ভালো করে চোখ বোলাতে বাধ্য হবেন। ভবিষ্যতে অন্য বিজ্ঞানীদের নিয়ে এ ধরণের সংখ্যার অপেক্ষায় থাকলাম
    অভিনন্দন।

  11. suman ফেব্রুয়ারী 15, 2009 at 7:16 পূর্বাহ্ন - Reply

    জোশ হইছে! শুধু চেহারায় নয় গুনগত মানেও। এত্ত নতুন লেখা কোনটা রেখে কোনটা পড়ি। মুক্ত-মনাকে ধন্যবাদ এমন চমৎকার আয়োজনে।

  12. M. A. Mahmud ফেব্রুয়ারী 13, 2009 at 11:55 অপরাহ্ন - Reply

    I have visited this site for the first time. I was expected this type of site and it seems to me that I have found my site. I have not yet read any article so I am not ready to commentnow but I hope this site could meet up our needs. Thanks to all Mukto monas.Hope to meet you next with many mokto-monas.

  13. Hasan Mahmud ফেব্রুয়ারী 13, 2009 at 11:09 অপরাহ্ন - Reply

    Hulusthul ayojon !

    Bishal byapar – Onek kosto koer jara eta korlen tader dhonyobad.

    Bangladehi-der kachhe ei diner ahwan niye jaowa Atynt dorokar – Otynto….

    Ejonyoi MM bishesh – ejonyoi MM classic.

    Ejonyoi MM-er bikolpo nei….

  14. মাহবুব আলম ফেব্রুয়ারী 13, 2009 at 8:54 পূর্বাহ্ন - Reply

    উদ্যোগটি চমৎকার হয়েছে। দুএকটি সংশোধনের প্রস্তাব করছি।
    মূল পাতায়:
    ১। লিংকগুলোর হভার (বোল্ড) বাদ দিন। শুধু কালার চেঞ্জ থাক। কারণ লিংকের উপরে মাউজ নিয়ে গেলে লাইনটা ভেঙে যায়। কোন কোন লিংক কাপতে থাকে।
    ২। বিবর্তনের ছবিটির নিচে অনেকটুকু জায়গা ফাকা রয়েছে। এটা খারাপ দেখাচ্ছে।
    ৩। একেবারে বামপাশের কলামটি ঠিক আছে। কিন্তু মাঝের মূল কলামটি ভেঙে ডানপাশে আনা যায় কিনা। খুব বড় হয়ে গেছে।
    ৪। ব্যাকগ্রাউন্ড কালো রঙ করার দরকার কি? অন্য কোন হালকা রঙ দিলে বোধহয় আকর্ষণীয় লাগত।
    যাহোক, সিদ্ধান্ত আপনাদের, আমি শুধু আমার কথাগুলো বললাম। সার্বিকভাবে ডারউইন দিবস নিয়ে আপনাদের আয়োজনের উচ্চ প্রশংসা করছি।
    এখানে উল্লেখ্য যে, মুক্তমনা ছাড়া বাকী বাংলা ফোরামগুলো যে বিজ্ঞানমনস্কতাকে ধারণ করে না, তা আর একবার প্রমাণিত হল। এক ‘আমাদের প্রযুক্তি’ ছাড়া আর কারও হেডারে ডারউইন দিবসটি প্রতিফলিত হয় নাই।
    আপনাদেরকে আবারো ধন্যবাদ।

    • অভিজিৎ ফেব্রুয়ারী 16, 2009 at 8:10 অপরাহ্ন - Reply

      @মাহবুব আলম,

      অনেক অনেক ধন্যবাদ। কষ্ট করে হলেও অনেকগুলো ভাল সাজেশন দিয়েছেন। আপনার সাজেশনের অনেকগুলোই খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমি ধীরে ধীরে ঠিক করার চেষ্টা করছি।
      অভিজিৎ

  15. শিক্ষানবিস ফেব্রুয়ারী 13, 2009 at 1:11 পূর্বাহ্ন - Reply

    ডারউইন দিবসের ড়্যালি ও সেমিনারে যোগ দিয়েছিলাম। অনেকগুলো ছবিও তুলেছি। ছবিগুলো ফেইসবুকে আপলোড করেছি। অ্যালবামের লিংকটা এখানে দিলাম:

    http://www.facebook.com/profile.php?id=1154584194&ref=profile#/album.php?aid=2018003&id=1154584194&ref=mf

    বেছে বেছে কিছু ছবি নিয়ে ডারউইন দিবস উদযাপন পাতায় যোগ করতে পারেন। এই ড়্যালি ও সেনিমারের উপর আলাদা লেখা আসলেও ভাল হয়। আমি কিছু লেখার চেষ্টা করছি। তবে ড়্যালিতে থাকলেও সেমিনারে মাত্র ১৫ মিনিট ছিলাম। এরপরই বন্ধুদের ডাকে বইমেলায় চলে যেতে হয়েছে। তাই সেমিনার নিয়ে খুব বেশী বলতে পারব না।

  16. অভিজিৎ ফেব্রুয়ারী 12, 2009 at 4:15 অপরাহ্ন - Reply

    আরো অনেকগুলা আর্টিকেল জমা আছে। আবার আগামীকাল দিব সেগুলো।

মন্তব্য করুন